বৃহস্পতিবার   ২৮ মে ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭   ০৫ শাওয়াল ১৪৪১

হাজীগঞ্জে করোনাতেও কমেনি কিশোর গ্যাং এর উৎপাত

প্রকাশিত: ২৯ মার্চ ২০২০  

ফতুল্লা প্রতিনিধি : প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনা আতঙ্কে দেশজুড়ে চলছে প্রায় লকডাউন পরিস্থিতি। সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জ জেলাতেও মানুষ জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছে না। পুলিশ-প্রশাসন ছাড়াও কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করার দায়িত্বে নিয়োজিত সেনাবাহিনী মানুষকে সচেতন করার প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

 

কিন্তু এসবের ফাঁকফোকর দিয়েও হাজীগঞ্জ এলাকার মুলিবাঁশ মোড় এবং তল্লা চেয়ারম্যান বাড়ির আশেপাশে চলছে কিশোর গ্যাং এর বেপরোয়া আড্ডাবাজি।

 

সরজমিনে দেখা যায়, মুলিবাঁশ মোড় এলাকায় মূল সড়ক থেকে একটু ভেতরে ঢুকতেই জ্বীননূরাইন মসজিদ সংলগ্ন গলির ভেতরে, তল্লা চেয়ারম্যান বাড়ির পাশের মাঠে প্রতিদিন দুপুরের পর জড়ো হয় প্রায় শতাধিক তরুণ ও কিশোর। 

 

এদের অনেকেই মাদকাসক্ত এবং উশৃঙ্খলতার জন্য এলাকায় পরিচিত। করোনা ছড়ানোর ভীতি থাকা সত্ত্বেও এরা একে অপরের সাথে দেদারসে আড্ডা দিয়ে যাচ্ছে দিনের পর দিন। এদের মধ্যে কেউ কেউ ঘুড়ি ওড়ানোর জন্য এলাকাবাসীর বাসায় বিনা অনুমতিতে ঢুকে যাচ্ছে। 

 

জোড় জবরদস্তি করে অন্যের বাড়ির ছাদে জড়ো হয়ে উশৃঙ্খলতায় মেতে উঠে। দুপুরের পর থেকে শুরু হওয়া এই কিশোরদের উৎপাত চলে রাত পর্যন্ত। এদের ভয়ে দিনের পর দিন মুখবুজে সহ্য করে যাচ্ছেন স্থানীয়রা।

 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা বলেন কয়েকজন বাড়িওয়ালা। তারা বলেন, করোনা ভীতির এই সময়ে এভাবে আড্ডায় নিষেধ করলে কয়েকজনের বাড়িতে উপর্যুপরি ঢিল মারা এবং হেনস্তা করে কিশোর গ্যাং সদস্যরা।

 

অনেকের বাসার স্কুল এবং কলেজ পড়ুয়া মেয়েদের বাসায় গিয়ে জ্বালাতন করে। তাদের উৎপাতে স্থানীয়রা অনেকটাই কোনঠাসা হয়ে পড়েছেন।

 

স্থানীয় দোকানি জানান, কিশোর গ্যাং এর উৎপাতে স্থানীয়রা রীতিমতো তটস্থ। কমবেশি সারা বছরজুড়েই এদের উৎপাত অব্যাহত থাকে। কিন্তু করোনা সংক্রমণের মত দুর্যোগকালীন সময়ে এদের উৎপাত মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে। 

 

মূল সড়কের আড্ডা এখন অলিগলিতে ও এলাকাবাসীর বাসায় গিয়ে পৌঁছেছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এসব বেপরোয়া কিশোরদের উশৃঙ্খল আড্ডা বন্ধ  করার জরুরি উদ্যোগ না নিলে যেকোন সময় বিপদ ঘটে যেতে পারে।

 

এ ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, আমরা এই ব্যাপারে খোঁজ নিবো। যদি এর সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

এই বিভাগের আরো খবর