সোমবার   ২৫ মার্চ ২০১৯   চৈত্র ১১ ১৪২৫   ১৮ রজব ১৪৪০

সড়ক দখলে বাস মালিকদের নৈরাজ্য, দূর্ভোগ নগরবাসীর

প্রকাশিত: ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : নগরীর ব্যস্ততম সড়কে যানজটসহ পরিবহন চালক এবং প্রতিষ্ঠানের নৈরাজ্যের জন্য সৃষ্ট নানা ধরণের দূর্ভোগ নগরবাসীকে সেই বহু আগে থেকেই ভোগাচ্ছে। 


বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, নারায়নগঞ্জ থেকে রাজধানী ঢাকার উদ্দেশ্যে প্রতিদিন একাধীক বার রওনা করে, বন্ধন এবং উৎসবসহ কিছু বাস কোম্পানীর কর্তৃপক্ষের খামখেয়ালীপনার কারনেই এমনটা ঘটছে।


নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ (বিপিএম পিপিএম বার) যোগদানের পরপরই মাদক, হকার এবং শহরের যানজট ইস্যুতে সমস্যা সমাধানের কঠোর বক্তব্য প্রদান করে। 


এরই মধ্যে মাদক ব্যবসায়ী, এবং হকারদের নৈরাজ্য থামাতে কঠোর ভাবে মাঠে নেমেছেন পুলিশ সুপার এবং একপ্রকার সফল বললেও চলে! কিন্তু যানজট নিরসনে এখন পর্যন্ত তেমন কোন গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় নি । 


তাই নগরবাসী ভাবছেন এবার হয়তো যানজটের মহা সমস্যা সমাধানের জন্য মাথাচারা দিয়ে উঠবেন পুলিশ সুপার। আর এই সমস্যা সমধানের একমাত্র মাধ্যম হিসেবে খুজে বের করবেন এর উৎস।  


সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, শহরের যাতায়তের জন্য অন্যতম ব্যস্ত একটি সড়ক কালিবাজার থেকে ১নং রেলগেট পর্যন্ত, বন্ধন উৎসব, বন্ধুসহ অন্যান্ন বাস কর্তৃপক্ষের ভয়হীন সচেতন চিন্তাধারার দরুণ বাসগুলো অবৈধভাবে দখল করে আছে রাস্তার দু’পাশ। 


এর ফলে সৃষ্টি হচ্ছে অনাকাঙ্খীত যানজট। এবং  ১নং রেলগেটে (বিআইডবিলউটি) এর জায়গা দখল করে বাসে যাত্রী উঠানামার দৃশ্যও চোখে পড়বার মতো।  
১নং রেলগেট সংলগ্ন নারায়ণগঞ্জ (বিআইডব্লিউটি) এর আধিকাংশ জায়গা দখল করে বাসস্ট্যান্ড তৈরী এবং তা ব্যবহার করার পর সাধারন মানুষের মনে প্রশ্ন ওঠে যে, এতবড় একটি সরকারী প্রতিষ্ঠার কি আসলেই বেসকারী বাস কোম্পানীগুলোর কাছে জিম্মী? 


শহরের গুরুত্বপূর্ণ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের প্রতিদিনের যাতায়ত এই রাস্তা দিয়ে হওয়াতে যানজট যেন চলারপথের সঙ্গীহয়ে উঠেছে সাধারন শিক্ষার্থীদের। 
নারায়ণগঞ্জ কলেজের এক শিক্ষার্থী বলেন,আমাদের কলেজ কালিবাজারে অবস্থিত আর সেখান থেকে এই ১নং খেয়াঘাটে আসতে সময় লাগার কথা মাত্র ৫মিনিট সেখানে লাগে ১ঘন্টা। আমাদের দূর্ভাগ্য সড়কে এই বাস চালকদের নৈরাজ্যের কারনে সৃষ্ট যানজটের বিরুদ্ধে কথা বলার মতো কেউ নেই।


অন্যদিকে, ব্যস্ততম সড়কের খানপুরে শীতল এসি বাস, মৌমিতা, হিমাচলসহ বিভিন্ন আন্তঃজেলা রুটের গাড়ি দিনভর সড়কের দুপাশে দাড়িয়ে থেকে সৃষ্টি করছে জনদূর্ভোগ। 


আর এসব পরিবহনের নেপথ্যে রাজনৈতক নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন প্রভাবশালীরা জড়িত রয়েছে বলে নাসিক ও পুলিশ প্রশাসন কোন উদ্যোগ নিতে পারছেনা বলে সমাজ বিশেষজ্ঞ মত প্রকাশ করেন। 


এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ পুলিশের পক্ষে (মিডিয়া ইন্সপেক্টর) সাজ্জাত রোমন জানান, জনগনের নির্বিঘেœ চলাচলের জন্য প্রশাসন বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়ে থাকে। ইতিমধ্যে কিছু স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করা হয়েছে। পর্যাক্রমে সবগুলো অবৈধ স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করা হবে।  
 

এই বিভাগের আরো খবর