বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২৫ ১৪২৬   ১৫ শা'বান ১৪৪১

সবুজের উপন্যাস ক্র্যাক প্লাটুনের গাজী গোলাম দস্তগীরকে উৎসর্গ

প্রকাশিত: ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

যুগের চিন্তা রিপোর্ট :  এবারের বাংলা একাডেমীর বই মেলায় এসেছে শরীফ উদ্দিন সবুজের কিশোর এডভেঞ্চার উপন্যাস ‘বটেশ্বর পাহাড়ে পিচ্চিদের একরাত’। পাওয়া যাচ্ছে ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ এর প্যাভিলিয়নে (প্যাভিলিয়ন নাম্বার ১০)। এটি সবুজের ১৭ তম বই। 


বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে গাজী গোলাম দস্তগীর বীর প্রতীককে। এ ব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে শরীফ উদ্দিন সবুজ  দৈনিক যুগের চিন্তাকে বলেন, আমি বইটি বর্তমান পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী গাজী গোলাম দস্তগীরকে উৎসর্গ করিনি। 


আমি বইটি উৎসর্গ করেছি গাজী গোলাম দস্তগীর বীর প্রতীককে। বইয়ের উৎসর্গপত্রেও তা লিখেছি। ক্র্যাক প্ল্যাটুনের বীর যোদ্ধা গোলাম দস্তগীর মুক্তিযুদ্ধে যে অতুলনীয় ভ‚মিকা রেখেছেন সে ভ‚মিকাকে সম্মান জানাতে আমার এ বইটি তাকে উৎসর্গ করেছি।  উৎসর্গপত্রে লেখক শরীফ উদ্দিন সবুজ লিখেছেন, 

ক্র্যাক প্লাটুন ও গাজী গোলাম দস্তগীর বীর প্রতীক : 

১৯৭১ সালের জুন মাস। মুক্তিযুদ্ধে মাঝামাঝি সময়। পাকিস্থান সরকার বিদেশীদের বোঝাতে চাচ্ছিলেন পরিস্থিতি তাদের নিয়ন্ত্রনে। দেশ শান্ত রয়েছে। হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে বিদেশী সাংবাদিক, বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধি ও বিদেশী অতিথিরা অবস্থান করছিলেন। 

তাই সেক্টর কমান্ডার খালেদ মোশাররফ মুক্তিযোদ্ধাদের একটি দলকে নির্দেশ দেন ঢাকা শহরের আশেপাশে কিছু গ্রেনেড ও গুলি ছুঁড়তে। যাতে এ খবর হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে পৌছলে বিদেশীরা বুঝতে পারে যে দেশের পরিস্থিতি শান্ত নয়। 


এই দলে ছিলেন মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম, শহীদ বদিউল আলম বদি বীর বিক্রম, গাজী গোলাম দস্তগীর বীর প্রতিক, শহীদ শফি ইমাম রুমি, রাইসুল ইসলাম আসাদসহ আরো অনেকে।  

কিন্তু দুঃসাহসী এই তরুনরা ৯ জুন ঢাকার আশে পাশের বদলে একেবারে হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে গিয়েই গ্রেনেড হামলা করেন। এবং আবার বীরদর্পে ফিরে আসেন। ঢাকা শহরব্যাপী পাকিস্থানী সেনাবাহিনীর ভারি অস্ত্র নিয়ে প্রহরার ভেতরে এমন ঘটনা ঘটানো অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ন ও অচিন্তনীয়।  


ঐদিন সন্ধ্যায় বিবিসির খবর থেকে খালেদ মোশাররফ এই অপারেশনের কথা জানতে পেরে বলেন, 'দিজ অল আর ক্র্যাক পিপল! বললাম, ঢাকার বাইরে বিস্ফোরণ ঘটাতে আর ওরা হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালেই বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এসেছে।' সেই থেকে এই প্ল্যাটুনটি ‘ক্র্যাক প্লাটুন" নামে পরিচিত হয়।’ 


এই প্লাটুন ঢাকায় অনেক গুরুত্বপূর্ন অপারেশন পরিচালনা করে। ক্র্যাক প্লাটুনের সদস্যরা সাতজন বীর বিক্রম ও তিনজন বীর প্রতীক খেতাব অর্জন করেন। ক্র্যাক প্ল্যাটুনের এই বীর যোদ্ধাকে আমার এই বই উৎসর্গ করলাম।