সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

শিক্ষা ও শিক্ষক কর্মচারী উন্নয়ন পরিষদ সদরের নির্বাচন শুক্রবার

প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০১৯  

স্টাস্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : একটি মামলা দায়ের করার পর যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার ব্যাপারে অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়া শিক্ষা ও শিক্ষক কর্মচারী উন্নয়ন পরিষদ সদরের নির্বাচন অবশেষে শুক্রবারেই (১২ জুলাই) অনুষ্ঠিত হবে। ত্রুটিপূর্ণ ভোটার তালিকা নিয়ে নির্বাচন সম্পন্নের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এমন অভিযোগ তুলে নির্বাচন স্থগিত করার দাবি তুলে আদালতে একটি মামলা  (দেওয়ানী ৩১/১৯) দায়ের করেন নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক এসএইচ এম মনিরুজ্জামান সরকার। তার প্রেক্ষিতে ৯ জুলাই এব্যাপারে ২ দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য বলেন।

 

১১ জুলাই নারায়ণগঞ্জ বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারি জজ ৪র্থ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট উভয়পক্ষের শুনানি শেষে নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হওয়ার পক্ষে রায় দেন। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন এড.আনিসুর রহমান দিপু, এড.জসিম উদ্দিন, এড.জালালউদ্দিন আহমেদ, এড.রাজীব, এড.কানিজ প্রমুখ। বাদী মনিরুজ্জামানের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন এড.হারুন অর রশিদ, এড. রেজাউল করিম রেজা। যার ফলে যথাসময়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে আর কোন বাধা রইলো না।

 

শুক্রবার (১২ জুলাই) সকাল ৯টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা  এবং বিকেল ২টা থেকে ৫টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ বার একাডেমীতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।ইতিমধ্যে ২৩ জুন থেকে প্রার্থীদের মধ্যে মনোনয়নপত্র বিতরণ, মনোনয়নপত্র জমা, বাছাই, প্রত্যাহার ও প্রতীক বরাদ্দের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনে ১৪ টি পদে ৩৪ জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করছেন। এরমধ্যে সভাপতি পদে ৪ জন, সহসভাপতি পদে ৪ জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ২ জন, কোষাধ্যক্ষ পদে ২ জন, সহসাধারণ সম্পাদক পদে ২ জন, সাংগঠনিক সম্পাদক পদে ২ জন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক পদে ২ জন, প্রচার সম্পাদক, ক্রীড়া সম্পাদক , সাহিত্য সম্পাদক, ধর্ম সম্পাদক , দপ্তর সম্পাদক পদে ২ জন কওে, সহ কোষাধ্যক্ষ পদে ১ এবং কার্যকরী সদ্য পদে ৬ জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করছেন।  

 

সভাপতি পদে হেভীওয়েট প্রার্থী হিসেবে মনিশংকর হালদার (চিত্তরঞ্জন কটন মিল স্কুল, প্রতীক দোয়াত কলম), মো.একেএম ইব্রাহিম (মুসলিম নগর হাইস্কুল, প্রতীক বই) এবং সুলতানা বেগম রতœা (বেগম রোকেয়া খন্দকার, স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতীক গোলাপফুল) এর মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছেন। মনিশংকর নিজেকে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি বলে নিজেকে দাবি করে নির্বাচনে প্রচারণা চালাচ্ছেন। 

 

সাধারণ সম্পাদক পদে মো. রেজাউল করিম মিয়া (রেকমত আলী উচ্চ বিদ্যালয়, প্রতীক ছাতা) এবং আব্দুস সোবহান (ইসদাইর রাবেয়া বিদ্যালয়, প্রতীক চেয়ার) এর মধ্যে তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন ভোটাররা। রেজাউল করিম নিজেকে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তির প্রার্থী হিসেবে দাবি করেন।    
 

এই বিভাগের আরো খবর