বৃহস্পতিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ১৯ মুহররম ১৪৪১

শামীম ওসমানের শঙ্কা ছিলো ভিকিকে ক্রসফায়ার দেয়া হতে পারে

প্রকাশিত: ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

যুগের চিন্তা ২৪ :  নারায়ণগঞ্জে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাঙচুর ও চালককে মারধর করে রাস্তায় তান্ডব চালানোর অভিযোগে দ্রুত বিচার আইনে মামলা হয় সাংসদ শামীম ওসমানের আত্মীয় মিনহাজ উদ্দিন আহমেদ ওরফে ভিকির বিরুদ্ধে। এরপর শনিবার সন্ধ্যায় তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। 


রোববার জামিনে বেরিয়ে যায় তিনি। তার আগে শনিবার রাত থেকে রোববার দুপুর পর্যন্ত ভিকিকে জড়িয়ে নিতে শামীম ওসমান নান জায়গায় দৌড়ঝাঁপ ও তদবির করেন বলে জানা গেছে। 


পুলিশ জানায়, মিনহাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে এর আগে চাঁদাবাজি, ভূমি দখল ছিনতাইয়ের অভিযোগও মামলা আছে। অবৈধ অস্ত্র প্রদর্শণের অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে। ভিকি শামীম ওসমানের ছেলে অয়ন ওসমানের স্ত্রীর বড় ভাই। ভিকিকে ছাড়িয়ে নিতে রোববার দুপুরে সচিবালয়ে যান শামীম ওসমান। 

তিনি একাধিক মন্ত্রীর কাছে নারায়ণগঞ্জ পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। এরপর দ্রুত বিষয়টি সুরাহা করতে পুলিশকে বলেছেন একজন মন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের একজন কেন্দ্রীয় নেতা। সচিবালয়ের একাধিক কর্মকর্তা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই কর্মকর্তারা বলেন, এ সময় শামীম ওসমান এও বলেছিলেন যে,  জামিন না হলে ভিকিকে ক্রসফায়ারে দেয়া হবে। পরে অবশ্য সচিবালয়ে বসেই শামীম ওসমান নিশ্চিত হন যে তার আত্মীয়ের জামিন হয়েছে।  

পুলিশ জানায়, গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে চাষাঢ়ার রাইফেলস ক্লাবের সামনে একটি সিএনজি আটো রিকশার গাতি রোধ করে ভিকিসহ আরো ৪ থেকে ৫ জন। তারা অটোরিকশা চালক কামাল হোসেনকে হকিস্টিক, রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। এ সময় সিএনজি আটো রিকশাটিও ভাঙচুর করা হয়। 


এ ঘটনায় কামাল হোসেন বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা করেন। এরপর শনিবার সন্ধ্যায় শহরের মাসদাইর এলাকার নিজ বাসা থেকে মিনহাজ উদ্দিন ভিকিকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

রোববার নারায়ণগঞ্জ আদালতে ভিকি জামিন আবেদন করেন। জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আবতাবুজ্জামান দ্রুত বিচার আইনে করা মামলায় ভিকির জামিন মঞ্জুর করেন।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আব্দুল হাই বলেন, আদালত জামিন মঞ্জুর করার পর রোববারই ভিকি মুক্তি পান।ভিকি মেধাবী ছাত্র ত্বকী হত্যা মামলার আসামি তায়েফ উদ্দিনের চাচাতো ভাই।

মামলার ডিবির পরিদর্শক এনামুল হক বলেন, ভিকির বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, জমি দখল ও সন্ত্রাসীসহ নানা অপকর্মের অভিযোহ রয়েছে। তাকে বিভিন্ন জায়গায় অবৈধ পিস্তল নিয়ে ঘুরতে দেখা গেছে বলের অভিযোগ রয়েছে।

এর আগে গত ১৯জুন নিতাইগঞ্জে পাটের বস্তা ছিনতাইয়ের ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। তখন পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাঁর হেফাজত থেকে পাট উদ্ধার করতে পারলেও তাঁকে গ্রেফতার করতে পারেনি। 

তার আগে গত ২৯মার্চ শহরের জামতলায় ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে এক প্রবাসীর জায়গা দখলের অভিযোগে ফতুল্লা থানায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হয়। বর্তমানে ওই দুটি মামলা আদালতে বিচারাধীন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ভিকি নিতাইগঞ্জের বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের কাছে চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধ করলেও কেউ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দিতে সাহস পায়না। প্রভাবশালী সাংসদের আত্মীয় হওয়ায় নারায়ণগঞ্জ দাপিয়ে বেড়ান।
(তথ্যসূত্র : প্রথম আলো)
 

এই বিভাগের আরো খবর