শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২১ ১৪২৬   ১০ শা'বান ১৪৪১

বোস কেবিনে বিতর্ক 

শামীমা নূর পাপিয়া, না রীতা খানম

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

যুগের চিন্তা রিপোর্ট : নরসিংদীর বহিষ্কৃত যুব মহিলা লীগ নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়াকে বিলুপ্ত টানবাজার পতিতালয় নেত্রী রিতা খানমের সঙ্গে তুলনা করে তুলোধূনো হলেন এক ব্যাক্তি। গতকাল বোস কেবিনে এ তুলনার জন্য তাকে সতীর্থ আড্ডাবাজদের অর্বাচীন, মূর্খ, গাড়লস্য গাড়ল ইত্যাদি নানা গালি শুনতে হয়েছে।


বোস কেবিন হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের প্রধান সামাজিক কেন্দ্র। এখানে এলে জানা যায়, এ শহরের সাধারন লোক কি ভাবে, কি বলে। এখানে কায়দা মাফিক একে অন্যের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে  দেয়ার কোন রেওয়াজ নেই। আলাপ শুরু করলেই অনায়াসে একটি আড্ডায় ঢুকে যাওয়া যায়। মনে রাখতে হবে, এসব আড্ডায় গুণীজ্ঞানীরা অংশগ্রহণ করেন না। 


সমাজের রহিম, করিম, যদু, মধোরাই এখানে প্রধান বক্তা। এখানে তারা বিভিন্ন বিষয়ে তাদের রাগ ও ক্ষোভ ঝাঁড়ে এবং দুনিয়াব্যাপী কঠিন কঠিন সমস্যার কি করে সমাধান করা যায়, তার ব্যবস্থাপত্রও প্রদান করেন। 


গতকাল এমনি একটি আড্ডা দুনিয়াব্যাপী করোনা ভাইরাস, দিল্লীর রায়ট, আওয়ামী লীগ নেতা দু’সহোদর এনামুল ও রূপমের জুয়া থেকে কোটি কোটি টাকা আয় হয়ে লাস্যময়ী যুব মহিলা লীগ নেত্রী নরসিংদীর পাপিয়া কতটুকু খারাপ, এ আলোচনায় পৌঁছে। 


এ সময় আড্ডার এক সদস্য পাপিয়াকে রীতা খানমের সঙ্গে তুলনা করলে অন্যদের তোপের মুখে পড়েন। রীতা খানমের পক্ষে সকলের সাধারন যুক্তি, রীতা খানম পতিতাদের সর্দারনী ছিলেন সত্যি। তবে, তিনি তার পেশার প্রতি সৎ ছিলেন। দেহ বিক্রি করলেও খদ্দেরের সঙ্গে প্রতারণা ও খদ্দেরকে ব্ল্যাকমেইলিং করার কোন অভিযোগ তার বিরুদ্ধে নেই। যা পাপিয়ার বিরুদ্ধে রয়েছে। পাপিয়া না রাজনীতি, না দেহব্যবসা, কোন পেশাতেই সৎ নন। 
 

এই বিভাগের আরো খবর