বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ২ ১৪২৬   ১৮ মুহররম ১৪৪১

শহীদ মিনারে আড্ডা বন্ধে পুলিশের বিশেষ পদক্ষেপ, সাধুবাদ নগরবাসীর

প্রকাশিত: ২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : চাষাঢ়া শহীদ মিনারে শিক্ষার্থীদের আড্ডা বন্ধ করে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে পুলিশ। এর আগে শহীদ মিনারে একাধিকবার শিক্ষার্থীদের আড্ডা দেওয়ায় নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। তবুও শিক্ষার্থী সহ সকল শ্রেনীর মানুষ শহীদ মিনারে আড্ডাবাজিতে মেতে থাকে। 


তাই এবার শিক্ষার্থীদের মিনারে আড্ডা বন্ধ করতে কঠোর ভূমিকা পালন করছে পুলিশ।  প্রতিদিন সকাল ৭ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত শহিদ মিনারের গেট লাগানো থাকবে। স্কুল কলেজ চলাকালীন সময়ে ভিতরে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। ৫টার পর শহীদ মিনারের গেট খুলে দেওয়া হবে।  


এদিকে শিক্ষার্থীদের আড্ডা বন্ধ করতে পুলিশের এ বিশেষ পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানিয়েছে নগরবাসী। নগরবাসীর প্রত্যাশা এর বাস্তবায়ন সাময়িক যেন না হয়। তাদের দাবি এ নিয়মটি স্থায়ীভাবে করা হউক। 


সোমবার (২ সেপ্টেম্বর ) বেলা সাড়ে ১১ টায় শহীদ মিনারে সবসময়ের দেখা চিত্রের চেয়ে পুরোপুরি ভিন্ন এক চিত্র দেখা যায়। শহীদ মিনারের প্রধান ফটক সহ তিনটি গেটই বন্ধ। মিনারের ভিতর পুরো ফাঁকা। 


মিনারের বেদি সহ আশেপাশের জায়গাগুলো পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন। কোন ময়লা আবজর্না নেই। ভিতরে কোন আড্ডা নেই, পুরোপুরি নিস্তব্ধ। মিনারের চারপাশের চাসহ অন্যান্য দোকানগুলো বন্ধ। 


মিনারের দরজা বন্ধ থাকায় ভিতরে প্রবেশ করতে না পারায় স্কুলের ও কলেজের শিক্ষার্থীরা মিনারের আশেপাশে ঘোরাঘুরি করছে। 
শহীদ মিনারের সামনে সাইনবোর্ড টানানো আছে যে, শহীদ মিনারের পবিত্রতা রক্ষা করুন। শহীদ মিনারের মর্যাদা সমুন্নত রাখুন, স্যান্ডেল বা জুতা পায়ে শহীদ মিনারের বেদিতে উঠা থেকে বিরত থাকুন, শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে ধুমপান বা মাদক সেবন থেকে বিরত থাকুন, শহীদ মিনারে এলাকায় যে কোন ধরণের অনৈতিক কার্যকলাপ থেকে বিরত থাকুন, শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে যত্রতত্র বর্জ্য ফেলা নিষেধ, শহীদ মিনার এলাকায় বা অভ্যন্তরে হকার বসা সম্পূর্ন নিষেধ। 


সাইনবোর্ডে টানানো প্রতিটি নির্দেশনাকে  বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শণ করে সবগুলো ঘটনাই ঘটে চাষাঢ়া শহীদ মিনারে। এমনকি গত ১৯ জুন শহীদ মিনারের বেদিতে বসে শিক্ষার্থীদের তাস খেলার চিত্র দেখা যায়। 


শহীদ মিনারের পবিত্রতা ও মান রক্ষার্থে মিনারের বিভিন্ন স্থানে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ব্যানারে শহীদ মিনারের পবিত্রতা রক্ষা করার অনুরোধ করা হয়ছে। জুতা পায়ে বেদিতে উঠতে ও বেদিতে বসে আড্ডায় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। 


এছাড়াও স্কুল ও কলেজ চলাকালীন সময় ও ইউনিফর্ম পড়া অবস্থায় শহীদ মিনারে আড্ডা দিতে নিষেধ করা হয়েছে। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা দিলেও নিষেজ্ঞা না মেনেই সকল ঘটনা ঘটেই চলছে। 


এই বিষয়ে সদর মডেল থানার এস আই সাইফুল ইসলাম বলেন, শহীদ মিনারে তো সব সময়েই আড্ডা বন্ধ থাকার কথা। এখন এই বিষয়ে কড়াকড়ি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। 


সকাল ৭ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত মিনারের গেট লাগানো থাকবে। স্কুল কলেজ চলাকালীন সময়ে মিনারে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। 
 

এই বিভাগের আরো খবর