বুধবার   ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪   ফাল্গুন ৮ ১৪৩০

লোক কারুশিল্প মেলা আজ উদ্বোধন করবেন ওবায়দুল কাদের

যুগের চিন্তা রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারি ২০২৩  



সোনারগাঁয়ে মাসব্যাপী লোক কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব ২০২৩ এর শুভ উদ্বোধন করবেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ বুধবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ ও বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী, লোক ও কারুশিল্প অনুরাগী মোহাম্মদ আবুল হাশেম খানের সবাপতিত্বে এই উদ্বোধন করা হবে।

 

 

এ বিষয়ে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক এস এম রেজাউল ইসলাম বলেন, আমাদের মেলার যাবতিয় সকল প্রস্ততি সম্পন্ন হয়েছে। আগামীকাল (১৮ জানুয়ারি) সকালে মাননীয় সেতুমন্ত্রী মাসব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন করবেন।

 

 

বাংলার হারিয়ে যাওয়া সকল ঐতিহ্যকে একত্রিত করে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে আয়োজন করা হয় মাসব্যাপী লোক কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় আয়োজিত এবারকার মেলায় পুরনো বাংলা যেন জীবন্ত, সচল হয়ে ওঠে।

 

 

গ্রামের প্রতি নাড়ির চিরন্তন টান আর ভালোবাসার আকর্ষণে রাজধানীসহ বিভিন্ন শহরের মানুষও দলবদ্ধভাবে ভিড় করে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের গড়ে তোলা এ শিল্পগ্রামে। মেলা উপলক্ষে ফাউন্ডেশনের বিশাল চত্বরকে সাজানো হয়েছে বর্ণাঢ্য সাজে, ভিন্ন আঙ্গিকে ও বর্ণিল ঢঙে।

 

 

লাল নীল ও সবুজ বাতি দিয়ে মালার মতো করে জড়িয়ে দেয়া হয়েছে ভবনগুলোর ইটের তৈরি শরীরে। এই বাতিগুলো সন্ধ্যা নামতে না নামতেই জ্বলা নেভার লুকোচুরি খেলায় মেতে ওঠে।

 

 

ফাউন্ডেশন সূত্র জানা গেছে, ফাউন্ডেশনের প্রধান ফটকের পাশে ‘কাঁদায় পড়া গরুর গাড়ি’ ভাস্কর্যের সামনের রাস্তার দু’পাশে দুটো বর্ণাঢ্য মুরালে গেট তৈরি করা হয়েছে।

 

 

দেশীয় সংস্কৃতির পুনরুজ্জীবনে আয়োজিত মাসব্যাপী এ লোক কারুশিল্প মেলায় কর্মরত কারুশিল্পী প্রদর্শনী, লোকজ প্রদর্শনী, পুতুল নাচ, বাইস্কোপ, নাগরদোলা, গ্রামীণ খেলাসহ বিভিন্ন পণ্য প্রদর্শনের ব্যবস্থা থাকবে। প্রতিদিন লোকজ মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্কুলের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় বিলুপ্তপ্রায় গ্রামীণ খেলা, কর্মরত কারুশিল্পীর কারু পণ্যের প্রদর্শনীসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।


 

মেলা চলাকালীন সময়ে ওই এলাকার যানজট, আইনশৃঙ্খলা ও খাদ্যের মূল্য তালিকা নিয়ে মতবিনিময় সভায় আলোচনা করা হয়েছে। মেলা আগামী ১৮ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে।

 

 

জানা গেছে, এবারের মেলায় কর্মরত কারুশিল্পী প্রদর্শনীর ২৪টি স্টলসহ ১০০টি স্টল বরাদ্ধ করা হয়েছে। গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলের খ্যাতনামা ৪৮ জন কারুশিল্পী সক্রিয়ভাবে অংশ নেবে। সোনারগাঁয়ের দারুশিল্পের কারুকাজ, হাতি-ঘোড়া, মমি পুতুল, জামালপুরের তামা-কাঁসা-পিতলের শৌখিন সামগ্রী, সোনারগাঁয়ের বাহারি জামদানি শিল্প, বগুড়ার লোকজ বাদ্যযন্ত্র।

 

 

কক্সবাজারের শাঁখা ঝিনুক শিল্প, ঢাকার কাগজের শিল্প, রাজশাহীর মৃৎশিল্প, শখের হাঁড়ি, বাটিক শিল্প, খাদিশিল্প, মণিপুরী তাঁতশিল্প, রংপুরের শতরঞ্জি শিল্প, টাঙ্গাইলের বাঁশ-বেতের কারুপণ্য, সিলেটের বেতশিল্প, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সুজনি কাঁথা, কিশোরগঞ্জের টেরাকোটা পুতুল, খাগড়াছড়ি ও মৌলভীবাজারের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর কারুপণ্য। 

 

 

মৌলভীবাজারের বেতের কারুশিল্প, ঠাকুরগাঁয়ের বাঁশের কারুশিল্প, মাগুড়া ও ঝিনাইদহের শোলাশিল্প, চট্টগ্রামের তালপাতার হাতপাখা, পাটজাত কারুপণ্য, লোকজ অলঙ্কার শিল্প, নাগর দোলা, বায়স্কোপ ও মিঠাই-মণ্ডার পসরা থাকবে স্টলগুলোতে। 

 

 

এ বিষয়ে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক এস এম রেজাউল ইসলাম বলেন, আমাদের মেলার যাবতিয় সকল প্রস্ততি সম্পন্ন হয়েছে। স্টল গুলোতে স্ব স্ব প্রতিষ্ঠানের মানুষ নিজেদের মতো করে সাজাচ্ছে। আজ (১৮ জানুয়ারি) মাননীয় সেতুমন্ত্রী মাসব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন করবেন। এন.এইচ/জেসি