শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৪ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

মিরজুমলা সড়কের আবর্জনার দুর্গন্ধে নাজেহাল মানুষ (ভিডিওসহ)

প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  

শামীমা রীতা (যুগের চিন্তা ২৪) : একদিকে রাস্তাজুড়ে পানি আর কাঁদার সংমিশ্রণ অন্যদিকে রাস্তার পাশে স্তুপ করে রাখা হয়েছে আবর্জনা। নগরীর দ্বীগুবাবু বাজারের মূল সড়কের আবর্জনার পঁচা দুর্গন্ধে নাজেহাল মানুষ।

সরেজমিন বাজার ঘুরে দেখা যায়, এ সড়কের অন্যান্য স্থান যেমন-তেমন হলেও সড়কের একটি স্থানে এসে আটকে যেতে হচ্ছে সবাইকে। ব্যবসায়ীরা বলছে, কয়েকবার কর্তৃপক্ষকে কয়েকবার বলা সত্ত্বেও এ ব্যাপারে কর্ণপাত করছে না কেউই। 

এদিকে দিন দিন এ অস্বাস্থ্যকর ও দুর্গন্ধযুক্ত পরিবেশে বেচাকেনা করা দায় হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ ব্যবসায়ীদের। অনেকে এ অস্বস্তিকর পরিবেশে থাকতে থাকতে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বাজার করতে আসা মানুষদের তো দুর্ভোগের সীমা নেই।

দ্বীগুবাবু বাজার ঘুরে দেখা যায়, দ্বীগু বাজারের মূল সড়কে যত্রতত্র ভ্যান, রিকশাজটলা। জটলা অতিক্রম করতেই দেখা যায়, সড়কের পাশেই ফেলে রাখা হয়েছে  ময়লা আবর্জনা। দুর্গন্ধ আর কাঁদা মাখা রাস্তাস্তেই বাজারের দরদাম নিয়ে করছে ক্রেতা-বিক্রেতা দু’পক্ষেরই। কাঁদা আর ময়লাতে যানবাহন চলাচলেও ব্যহত হচ্ছে।

বাজারের এক সবজি বিক্রেতা ইসমাইল হোসেন জানান,ময়লাগুলোর জন্য আমাদের বসতে সমস্যা, পথচারীদের চলতে সমস্যা । এছাড়া গাড়ি চলতেও সমস্যা হয়। যদি এদিক থেকে সবময়লাগুলো সরিয়ে দেয়া হয় তাহলে আমাদের জন্য সুবিধা। 

কারণ প্রতিদিন ময়লা সিটি করপোরেশন বর্জ্য পরিষ্কার করালেও দিনশেষে একই অবস্থা হয়ে যায়। ময়লার কারণে পানি জমে রাস্তা পিচ্ছিল হয়ে যায়,এ কারণে অনেক সময় দুর্ঘটনাও ঘটে। আমরা চাই এখান থেকে ভালোভাবে ময়লা সরিয়ে দেয়া হোক। কর্তৃপক্ষ যাতে আমাদের কথা রাখে।

আরেক ব্যবসায়ী জানান, এখান থেকে ময়লা আবর্জনা সরিয়ে দেয়া হলে আমাদের জন্য সুবিধা হবে। ময়লার দুর্গন্ধে এখানে বসে থাকা অসম্ভব  হয়ে পরে। আগে অবশ্য এ জায়গায় বাজারের ময়লা ফেলা হত  না। 

কিন্তু  সিটি করপোরেশন এ জায়গায় ময়লা ফেলা শুরু করার পর থেকে আমাদের নানান সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। ময়লার কারণে ক্রেতারা থেকে কেনাকাটা করতে চায় না। এখানে যানজট লেগে থাকে। রাস্তাটা পানিতে স্যাঁতস্যাতে হয়ে থাকে। আমরা এ সমস্যার স্থায়ী সমাধান চাই ।

তবে এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন হিরণ জানান, তাঁরা প্রতিদিনই বাজারের ময়লা পরিষ্কার করছেন। 

তিনি বলেন,  এখন আমরা আর কী করতে পারি?  মূল রাস্তায় তো আর ময়লা ফেলতে পারি না। এখন কি করা যায়, কি করতে পারেন এ ব্যাপারে সমাধান চেয়ে তিনি  এ প্রতিবেদকের কাছে প্রশ্ন রাখেন।  
 

এই বিভাগের আরো খবর