শনিবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ১১ ১৪২৬   ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

বিবি মরিয়ম স্কুলে ‘মুক্তিযুদ্ধ কর্নার’ চালু

প্রকাশিত: ৮ জানুয়ারি ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : দায়িত্ব নেয়ার  দেড় মাসেই বিবি মরিয়ম স্কুলকে অনেকটা বদলে দিয়েছেন নবনির্বাচিত ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বিশিস্ট শিল্পপতি মডেল গ্রুপ এর চেয়ারম্যন মোঃ মাসুদুজ্জামান মাসুদ। স্কুলে  খোলা হয়েছে মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার। টয়লেটগুলো বেশ ঝকঝকে চকচকে। নিয়মশৃঙ্খলা, পাঠ্যসূচীতেও পরিবর্তন আসছে। 

 

বুধবার অভিভাবকদের সমাবেশ, মুক্তিযুদ্ধ কর্ণার উদ্বোধন ও বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসে আমন্ত্রিত বীরমুক্তিযোদ্ধা, অভিভাবক, বিশেষ অতিথি ও প্রধানঅতিথি  জেলা প্রশাসক  মোঃ জসীমউদ্দিনসহ সকলেই মুগ্ধ হন। 

 

অনুষ্ঠানে জাতির সূর্য্য সন্তান বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনার আয়োজন থাকায় মুগ্ধ হয়ে  জেলা প্রশাসক মোঃ জসীমউদ্দিন অনুষ্ঠানে প্রবেশের সময় সকল মুক্তিযোদ্ধাকে নিজহাতে উত্তীরিয় পরিয়ে দেন। তাছাড়া সংবর্ধনাকালে মঞ্চ থেকে নেমে এসে  জেলা প্রশাসক মহোদয় মুক্তিযোদ্ধাদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন। এ সময় সংবর্ধনা প্রাপ্ত বীরমুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে থেকে কয়েকজন বক্তব্য দানকালে বীরমুক্তিযোদ্ধা এড. নুরুল হুদা জেলা প্রশাসককে ‘মুক্তিযোদ্ধা বান্ধব জেলা প্রশাসক’ হিসেবে অভিহিত করেন।

 

অনুষ্ঠানে বিবি মরিয়ম বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও বিশিস্ট শিল্পপতি মোঃ মাসুদুজ্জামান মাসুদ বলেন, এই স্কুল আমাদের সকলের। সবাই সময় দিবেন। প্রয়োজনে যার যার সামর্থ্য অনুযায়ী হাত বাড়িয়ে দিবেন। স্কুলের দায়িত্ব নিয়েছি এখনো দুই মাস হয়নি। কিছু কমিটমেন্ট করেছি তা এখনো সম্পন্ন হয়নি। ধীরে ধীরে সব গুছিয়ে নিতে পারবো।  

 

জেলা প্রশাসক মহোদয় কথা দিয়েছেন প্রয়োজনে মাঝে মধ্যে দুই একজন ম্যাজিস্ট্রেট পাঠিয়ে ক্লাস নিবেন। আমরা বঞ্চিত এলাকার মানুষ। আশাকরি আমাদের সমস্যাগুলো দূর হবে। সর্বশেষ বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান জানিয়ে বিদায় নিচ্ছি।

 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে  জেলা প্রশাসক মোঃ জসীমউদ্দিন বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। এই প্রতিষ্ঠান এমন শিক্ষা দিবে যা দেখতে অন্য জেলা  থেকে মানুষ আসবে। নিজেদের ক্যাম্পাস নিজেদের পরিস্কার রাখতে হবে। অভিভাবকদের অনুরোধ আপনার  মেয়েকে  কোচিংসেন্টারে নিবেন না। আজকাল সমাজে শিক্ষকদের প্রতি আগের মত শ্রদ্ধা নেই। আজকাল সালিশেও কেহ শিক্ষকদের ডাকেনা।

 

জেলা প্রশাসক  জসিম উদ্দিন শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আমাদের এই দেশটাকে সুন্দরভাবে গড়তে হলে শিক্ষার্থীদের মান সম্মত শিক্ষায় নিশ্চিত হতে হবে। মান সম্মত শিক্ষা মানে জিপিএ-৫ পাওয়া নয়। মানসম্মত শিক্ষা হলো আদব-কায়দা, নিয়ম কানুন শেখা। 

 

বড়দের শ্রদ্ধা করা, সকলকে সহযোগিতা করার মতো এরূপ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ স্কুল হবে সেটা যেই স্কুলের টয়লেট ক্লাসরুম থেকে পরিস্কার হবে। নিজের স্কুলের আঙিনা নিজেদের পরিস্কার করতে হবে। মুক্তিযোদ্ধাদের বলা প্রতিটি কথা তোমাদের অনুপ্রেরণার উৎস।

 

অভিভাবকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, বিবি মরিয়মের বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়য়ের শিক্ষার্থীদের কোচিং সেন্টারে দিবেন না। যদি এই স্কুলের কোন শিক্ষার্থী কোচিংয়ে যায় সে পরীক্ষায় সব উত্তর দিলেও ফেল করবে। আর এই স্কুলের ১০-৩০% শিক্ষার্থীদের হাফ ফ্রি ও ফুল ফ্রি বেতন করা হবে।

 

তিনি আরো বলেন, যে শিক্ষকরা এই স্কুলে শিক্ষার্থীদের কোচিং করাবে না, মেয়ে শিক্ষার্থীদের ধমক দিবে না, ভালোভাবে পড়াবে তাদেরকে স্কুল থেকে পুরস্কার দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। আর যে শিক্ষক গোপনে কোচিং করায় তাদের এই স্কুলে থাকার দরকার নেই। তারা অন্য স্কুলে যেতে পারেন।

 

অনুষ্ঠানে অভিভাবকদের মধ্যে থেকে বক্তব্য রাখেন মো. কুতুবদ্দিন। তিনি বলেন, এই স্কুলের সামনে যে সড়কটি রয়েছে এই সড়কের নাম বীরমুক্তিযোদ্ধা গিয়াসউদ্দিন বীরপ্রতীক রাখা হলেও আজো তা বাস্তবায়িত হয় নাই। 

 

জেলা প্রশসাক  মোঃ জসীমউদ্দিন একজন মুক্তিযোদ্ধা বান্ধব তাই এই সড়কটির সকল সাইনবোর্ড এমনকী স্কুলের নামের নীচেও বীর প্রতিকের উল্লেখ করা উচিৎ। আরো বক্তব্য রাখেন, ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়ালী মাহমুদ খান, মুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন মহি, বীরমুক্তিয়োদ্ধা এড. নুরুল হুদা,  স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক এম, এ রাসেল।

 

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি  মোঃ মাসুদুজ্জামান মাসুদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকারের উপ পরিচালক মোহাম্মদ জায়েদুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) রেহানা আক্তার, জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম। 

 

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন, ১১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জমসের আলী ঝন্টু, নারায়ণগঞ্জ মাদক বিরোধী সচেতন নাগরিক সমাজের আহবায়ক মো. বদরুল হক, মহানগর শ্রমিকলীগের আহবায়ক আলমগীর কবির বকুল, ব্যবসায়ী মোফাজ্জল হোসেন মিন্টু, নারায়ণগঞ্জ ক্রিড়া সংস্থার সদস্য মো. আসলাম, মাহাল উদ্দিন মালু  সহ প্রমুখ।  
 

এই বিভাগের আরো খবর