বুধবার   ২৩ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৩ সফর ১৪৪১

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনায় বন্ধ ‘পাঠাও পে’ সেবা

প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  

ডেস্ক রিপোর্ট (যুগের চিন্তা ২৪) : অনুমোদন না থাকায় বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনায় রাইড শেয়ারিং সেবা প্রতিষ্ঠান পাঠাও এর ওয়ালেট সেবা ‘পাঠাও পে’ বন্ধ হয়ে গেছে। পাঠাও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অনুমোদন ছাড়া ‘পাঠাও পে’ নামক ওয়ালেট সেবা চালু করায় তা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

গত ৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকের পেমেন্ট সার্ভিস বিভাগ এই নির্দেশনা দেয়। এ ধরনের অননুমোদিত সেবা মানি লন্ডারিংয়ের ব্যবহার হওয়ার আশংকা থাকায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সংস্থা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘পাঠাও’কে এই সেবা চালুর অনুমতিই দেয়া হয়নি, সেখানে তারা এই সেবা চালু রাখলে তা হবে আইন লঙ্ঘন, সেক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও বিএফআইইউ (বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিলিজেন্স ইউনিট) এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে।

রাইড শেয়ারিং ছাড়াও পাঠাওয়ের কুরিয়ার এবং ফুড ডেলিভারি সেবা রয়েছে। ছয় সপ্তাহ আগে পাঠাও তাদের গ্রাহকদের জন্য ‘পাঠাও পে’ নামে এই ওয়ালেট সেবা চালু করে। এখানে ‘পাঠাও পয়েন্ট’ নামে ডিজিটাল মানি সংরক্ষিত থাকে এবং গ্রাহক পাঠাও এর বিল পরিশোধে তা ব্যবহার করতে পারেন।

রাইড শেয়ারিং সেবার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) এর একজন কর্মকর্তা জানান, রাইড শেয়ারিং গাইডলাইন অনুসারে এধরনের ওয়ালেট সেবা চালুর কোনো এখতিয়ার নেই পাঠাওয়ের। বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা মেনে পাঠাও তাদের পাঠাও পে সেবা বন্ধ করে দিয়েছে। তবে যেসব গ্রাহকের ওয়ালেট এখনো ডিজিটাল মানি সংরক্ষিত আছে তারা তা ব্যবহার করতে পারবেন।

পাঠাওয়ের সিইও হুসেইন মো. ইলিয়াস ঢাকাটাইমসকে বলেন, পাঠাও পে সেবাটি আপাতত বন্ধ রয়েছে। প্রযুক্তিগত উন্নত, সেবার মান বৃদ্ধির জন্য সিস্টেমটি আমরা কাজ করছি। বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গেও আলোচনা চলছে আমাদের। এছাড়াও আমাদের ব্যাংকিং পার্টনার করার বিষয়ে কথা বলছি। আশা করি আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে আমরা আবারও সার্ভিসটি পুনরায় চালু করতে পারবো। তবে যেসব গ্রাহকের ক্রেডিট রয়েছে তারা লেনদেন করতে পারবেন।
 

এই বিভাগের আরো খবর