শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বন্দরে থ্রী হুইলার শ্রমিকলীগের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ

প্রকাশিত: ২৩ অক্টোবর ২০১৯  

বন্দর (যুগের চিন্তা ২৪) : বন্দরে নাসিক ২৩ নং ওয়ার্ড থ্রী হুইলার পরিবহন শ্রমিকলীগের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ পাওয়া গেছে। বন্দরের কামাল উদ্দিনের মোড় এলাকায় থ্রী হুইলার পরিবহন শ্রমিকলীগসংগঠনের কার্যালয় উদ্বোধনের কয়েকদিন যেতে না যেতেই রিসিট বই ছাপিয়ে এ চাঁদাবাজি চলছে বলে জানা যায়। পরিবহনে চাঁদাবাজি  এবং  বঙ্গবন্ধুর শ্লোগান ছাপিয়ে চাঁদাবাজির বিষয়টি নিয়ে বন্দরে চলছে নানা  আলোচনা ও সমালোচনা। 


সংগঠনের সভাপতি মো.আলমগীর, সাধারণ সম্পাদক মো. নূর আলী ও সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রিপন মিলেসংগঠনের কার্যালয় উদ্বোধন করে এ সড়কে চলাচলরত প্রতিটি ইজিবাইক, অটো রিক্সার চালকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা।

                  
ক্ষমতাসীন দলের সাইন বোর্ড ব্যবহার করে তাদের এই চাঁদাবাজিকে ভাল দৃষ্টিতে দেখছেন না সচেতনমহল। তবে 'জয় বাংলা-জয় বঙ্গবন্ধু' শ্লোগানটি চাঁদাবাজির রিসিটে ব্যবহার নিয়ে জনমনে মিশ্রপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। সরকার দলীয় নেতা-কর্মীদেরদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।


নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ নেতা দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, চাঁদাবাজির রিসিটে যে শ্লোগানটি ব্যবহার করেছে তা মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে। শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শুক্কুর মাহমুদের দৃষ্টি কামনা করেছেন অনেকেই। এ ব্যাপারে সংগঠনের সভাপতি আলমগীর মিয়ার মোবাইল নম্বরে ফোন দিয়ে পাওয়া যায়নি। 


বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ রশিদের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন সংগঠন বা ক্লাব কার। ক্লাব থাকলেই যে চাঁদাবাজি করবে তা হবে না। রিসিটে শ্লোগানের কথা উল্লেখ করলে তিনি বলেন, এটা সত্য বা প্রমাণ হলে অব্যশই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এ বিষয়ে বন্দর থানা পুলিশের পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম জানান, কোন প্রকার চাঁদাবাজির ঘটনাকে মানা হবে না। থ্রী হুইলার পরিবহনের চাঁদাবাজি সর্ম্পকে আমার জানা নেই। ঘটনা সত্য হলে অব্যশই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

এই বিভাগের আরো খবর