বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ৩০ ১৪২৬   ১৬ সফর ১৪৪১

ফুটপাত হকারমুক্ত হবে কবে!

প্রকাশিত: ৮ অক্টোবর ২০১৯  

যুগের চিন্তা রিপোর্ট : এ শহরের ফুটপাত আর কবে হকারমুক্ত হবে? হকাররা কী রাক্ষসের রক্তবীজ-এক ফোটা রক্ত থেকে দশটির জন্ম হয়, না অজর অমর। যে কারণে ওদের শহরবাসীর পথ আগলে থাকা অবস্থান থেকে কোন প্রকারেই সরানো যাচ্ছে না। এ ব্যার্থতা কার? ফুটপাতে দাঁড়িয়ে শহরবাসীকে এখন নিজ অদৃষ্টকেই ধিক্কার দিতে হচ্ছে, কেন জন্ম হলো এ শহরে।

 

অথচ, এ শহরের নগরপতিও (মেয়র) নগরবাসীর অধিকার আদায়ে সোচ্চার। ফুটপাত পথচারীর অধিকারে রাখতে ইতিমধ্যে তিনি সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলায় একবার আহতও হয়েছেন। তবে, প্রাচীনকাল থেকে নগর কোতোয়ালই একটি নগরের আইন শৃঙ্খলা এবং নাগরিকের সম্পদ ও সম্মানের দেখভাল করেন। আমাদের এসপি বার বার আমাদের হকারমুক্ত নিরাপদ ফুটপাতের আশ্বাস দিয়েছেন। তবু ফুটপাত হকারমুক্ত হচ্ছে না। 

 

দুর্গা পূজা উপলক্ষ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের নেতারা পুলিশ সুপারের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন, পুজোর সময় আমরা পুরো পরিবার পরিজন নিয়ে মণ্ডপে মণ্ডপে প্রতিমা দর্শনে যাই। অন্ততঃ একটি দিন চাষাঢ়া থেকে উকিলপাড়া পর্যন্ত রাজপথের দু’পাশের ফুটপাত হকারমুক্ত রাখুন। হিন্দুদের এ আবেদনও উপেক্ষিতই থেকে গেছে।

 

শহরবাসী জানিয়েছে, এ শহরের ফুটপাত হকারমুক্ত গতবছরের ১৬ জানুয়ারি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলার শিকার হয়েছিলেন। সে সময় তার সঙ্গে কয়েকজন সাংবাদিক এবং শহরের সুধী সমাজের প্রতিনিধিও আহত হয়েছিলেন। এ শহরে হকারদের নিয়ে নানা মহলের ইন্ধন ও উস্কানী থাকলেও বর্তমান পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ এসে শহরবাসীকে ফুটপাত হকারমুক্ত রাখার নানা আশ্বাস দিয়েছিলেন। প্রাথমিকভাবে তাঁর নেয়া বিভিন্ন ব্যবস্থা ইতিবাচক ফলও দিয়েছে। তবে, তা স্থায়ী হয়নি।

 

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, দুনিয়ার কোথায় ব্যবসায়ীরা বিনা ট্যাক্সে ব্যবসা করে না। হকাররাও ট্যাক্স না দিয়ে ব্যবসা করে না। তারা হয়তো সরাসরি সরকারকে ট্যাক্স দেয় না, তবে, সরকারি দলের নেতাসহ অনেককে নিয়মিত ট্যাক্স দেন। সরকারকে দিলে হয়তো এর চেয়ে অনেক কম দিতে হতো। এ শহরে হকার প্রতি একশ টাকা করে হলেও প্রতিদিন ফুটপাত থেকে চাঁদার পরিমাণ লক্ষাধিক টাকা।

 

এ টাকাই সকল অনর্থের মূল। হকাররা ফুটপাত দখলে বেপরোয়া, রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের আড়কাঠিরা তাদের পেছনে, এর সঙ্গে টাকার গন্ধে ছোঁক ছোঁককারী আইনশৃংখলা রক্ষার কাজে নিয়োজিতদের নিস্পৃহতাই ফুটপাত দখলমুক্ত না হওয়ার প্রধান কারণ। 

এই বিভাগের আরো খবর