শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৫ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

ফতুল্লায় সন্ত্রাসী হামলায় পিতা-পুত্র আহত :  ভাংচুর লুট, গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ফতুল্লা (যুগের চিন্তা ২৪) : ফতুল্লায় পাওনা টাকার জন্য দেনাদারের বাড়িতে সন্ত্রাসী দিয়ে হামলা চালিয়ে বৃদ্ধ পিতা ও পুত্রকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করে ব্যাপক লুটপাট চালানোর ঘটনা ঘটেছে।

 

রোববার রাত ১১টায় ফতুল্লার পশ্চিম হাজীগঞ্জ ওয়াবদারপুল এলাকায় এঘটনা ঘটে। পরে সোমবার সকালে সন্ত্রাসী সহদর দুই ভাই রনি ও জনিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রনি ও জনি ওয়াবদারপুল এলাকার খোরশেদ আলমের ছেলে। তাদের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর একাধিক অভিযোগও রয়েছে।


এ ঘটনায় মামলার বাদী সোহরাব সিকদার জানান, তিনি জুট ব্যবসায়ী। তার মেঝো ছেলে রুবেল এর সঙ্গে বন্দর উপজেলা এলাকার ফরহাদ হোসেনের ব্যবসায়ীক লেনদেন রয়েছে। এতে তার ছেলে রুবেলের কাছে কয়েক হাজার টাকা পাওনা ফরহাদ।


এ টাকার জন্য স্থানীয় রনি ও জনিসহ কয়েকজন সন্ত্রাসীকে ভাড়া করে রোববার রাতে আমাদের বাসায় নিয়ে আসে ফরহাদ। হাতে রাম দা ও চাপাতি নিয়ে আমার বাসায় প্রবেশ করেই আমার ছেলে রুবেলকে মাথায় কোপ দেয়। এসময় রুবেল পালানোর চেষ্টা করলে তার ডান হাতে কোপ লেগে হাড় বেড়িয়ে যায়। 


তখন আমি ভাত খাচ্ছিলাম। এসময় সন্ত্রাসীরা আমাকেও লোহার রড দিয়ে মারতে থাকে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা আমার ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে নগদ টাকাসহ কয়েক লাখ টাকার স্বর্ণালংকার লুটে নিয়ে চলে যায়। পরে থানায় সংবাদ দিলে পুলিশ এসে আমাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।


ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, এঘটনায় মামলা নিয়ে দুজনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। অন্যদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


এবিষয়ে জানতে চাইলে কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল হাই বলেন, পাওনা টাকাকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনায় ফতুল্লার পশ্চিম হাজীগঞ্জ ওয়াবদারপুল এলাকায় সন্ত্রাসী সহদর দুই ভাই রনি ও জনিকে আদালতে হাজির করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। 
 

এই বিভাগের আরো খবর