শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২১ ১৪২৬   ১০ শা'বান ১৪৪১

ফতুল্লায় গ্যাসের আগুনে দগ্ধ আরো ১ জনের মৃত্যু 

প্রকাশিত: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : ফতুল্লার সাইনবোর্ড সাহেবপাড়া এলাকায় গ্যাসের আগুনে দগ্ধ হওয়া একই পরিবারের ৮ জনের মধ্যে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে।

 

নিহতের নাম আবুল বাশার ইমন (২৮)। দগ্ধ হয়ে দীর্ঘ ১২ দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থেকে সোমবার ভোরে তিনি মারা যান। অগ্নিদগ্ধের ঘটনায় এ নিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। দগ্ধ আরো পাঁচজনের চিনকিৎসা চলছে। 


বিষয়টি নিশ্চিত করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর বাচ্চু মিয়া জানান, আগুনের ঘটনায় মা নুরজাহান বেগম (৭০), ছেলে কিরণ ( ৫৫) ও নাতি আবুল বাশার ইমন (২৮)সহ এ পর্যন্ত তিনজন মারা গেছেন। চিকিৎসাধীন রয়েছেন ওই পরিবারটির আরো ৫ সদস্য। তবে তারা কেউই আশংকামুক্ত নন।


নিহত কিরণের ভায়রা মোস্তফা খান আবুল বাশার জানান, সোমবার দুপুরে ইমনের লাশ সাইনবোর্ড সাহেবপাড়া এলাকায় বাসায় নিয়ে আসা হয়। বিকেলে সাহেবপাড়া জামে মসজিদে নামাজে জানাজার পর স্থানীয় কবরস্থানে নিহত ইমনের পিতা কিরণ মিয়া ও দাদি নূরজাহানের কবরের পাশে তার মরদেহ দাফন করা হয়েছে।


প্রসঙ্গত, ফতুল্লা থানার সাইনবোর্ড এলাকার সাহেবপাড়া এলাকায় বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা ফারুক হোসেনের বাড়ির ৫ তলা বাড়ির নিচ তলায় একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন নূরজাহান বেগম ও তার পরিবারের সদস্যরা। গত ১৭ই ফেব্রুয়ারি ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে গ্যাসের চুলায় আগুন ধরাতে গিয়ে আগুনে দগ্ধ হন নুরজাহান বেগম।

 

গ্যাসের চুলার চাবি চালু রেখে রাতে ঘুমিয়ে পড়ায় গ্যাস বের হয় পুরো ঘরে ছড়িয়ে যাওয়ার কারণে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে যায় এসময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে দগ্ধ হন দুই ছেলে মেয়ে নাতিসহ একই পরিবারের আটজন সদস্য।

 

আগুনের ঘটনায় এ পর্যন্ত তিনজন মারা গেছেন। তবে এখনো চিকিৎসাধীন রয়েছেন হিরণ মিয়া, তার স্ত্রী মুক্তা, মেয়ে শিশু ইলমা, হিরণের ভাই কিরণ মিয়ার ছোট ছেলে আপনসহ তাদের এক ভাগিনা।
 

এই বিভাগের আরো খবর