বুধবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ২ ১৪২৬   ১৮ মুহররম ১৪৪১

নারায়ণগঞ্জ পুলিশে রাজাকার শিবির আছে : শামীম ওসমান

প্রকাশিত: ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : সিদ্ধিরগঞ্জে গণপিটুনিতে বাকপ্রতিবন্ধী সিরাজ হত্যা মামলা প্রসঙ্গ টেনে সাংসদ শামীম ওসমান বলেছেন, এই মামলার বাদীর নাম সাখাওয়াত হোসেন মৃধা থানায় জিডি করেছেন তার স্বাক্ষর নকল করা হয়েছে। কে করেছে? যতদূর জানি তার নাম সেলিম। 


আওয়ামী লীগ নেতাদের জানাতে চাই পুলিশ সুপারের সাথে কথা হয়েছে তিনি একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি। উনি সমস্ত ঘটনা শুনেছেন। আমি তাকে বলেছি এই গেইমগুলো হচ্ছে। অতি উৎসাহী কিছু অফিসার আছে সংখ্যায় কম নিজেরা শিবির টিবির করতো, নয়তো বাপ-দাদা রাজাকার ছিলো। আমার যা মনে হয়। 


আমি এসপি সাহেবকে বলেছি এ বিষয়টি দেখতে। তিনি আমাকে কথাও দিয়েছেন। উনি বলেছেন লিডার আমি আপনাকে কথা দিচ্ছি এই মামলায় তো কোন নিরপরাধ ব্যক্তি থাকবেনই না। সাথে সাথে এই কথাও দিয়েছেন যারা এইটার ষড়যন্ত্র করেছেন আমি পুলিশের নিয়ম অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেবো। আমি উনার কথায় বিশ্বাস রাখতে চাই। জানি উনি অসত্য কথা বলবেননা। 


শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নগরীর নবাব সলিমুল্লাহ সড়কের রামকৃষ্ণ মিশনের উল্টোদিকে রাস্তায় ট্রাকে অস্থায়ী মঞ্চে আয়োজিত সমাবেশে শামীম ওসমান এসব কথা বলেন।    


এর আগে শামীম ওসমান এই মামলা প্রসঙ্গে বলেন, নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপারকে আমি এটি সম্পর্কে বলেছিলাম। চৌকস পুলিশ সুপার। তিনি আসছিলেন। আমি তার সাথে কথা বলেছি। সিদ্ধিরগঞ্জের মানুষ যখন উত্তেজিত। ৭৪ জন মানুষের নামে মামলা দেয়া হয়েছে। আমি তাদের কাছে ক্ষমা চেয়েছি। আমি জনপ্রতিনিধি। আমার কাজ হচ্ছে জনগণের পক্ষে কথা বলা। 


৭৪ মানুষের সাথে আরও ৪০০ টোটালি ৪৯৫ জন মানুষ। ঘটনা ঘটেছে ১নং ওয়ার্ডে। মামলা হয়েছে ১নং থেকে ১০নং ওয়ার্ড পর্যন্ত। এদের মধ্যে ৭০ ভাগ আওয়ামী লীগ নেতা আর ৩০ ভাগ স্বাধীনতার পক্ষের শক্তির বড় ব্যবসায়ী। উদ্দেশ্যটি কি? সিদ্ধিরগঞ্জটা আওয়ামী লীগের গোপালগঞ্জ। আমার মনে হয় এর মধ্যে খেলা আছে। 


নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসকের একটি বক্তব্যের অংশ টেনে শামীম ওসমান বলেন, তিনি বলেছেন স্বাধীনতার চেতনা বিরোধী কাউকে পুলিশে নেয়া যাবেনা। কথাটা ঠিক আছে। কিন্তু সেখানে পুলিশ শব্দটা হবেনা। আমি মনে করি স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি শুধু প্রশাসন না কোথাও যাতে অবস্থান না করতে পারে। এটা আমাদের দেখা উচিৎ।  

 
এই জনসভা আয়োজন সম্পর্কে শামীম ওসমান বলেন, অন্য কোন বিষয়ে নয় আজকে সমাবেশ না। রোহিঙ্গাদের কোরবানির ঈদে মাংস বিতণের নাম করে একটি এনজিও অস্ত্র বিতরণ করে আসছে। সম্প্রীতির দেশ বাংলাদেশের নামে দেশের বাইরে প্রিয়া সাহা ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে নালিশ করেছে। কে পাঠিয়েছে তাকে?  গায়ে চর্বি জমালে হবে না। আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। যদি নেত্রী ডাক দেন কোন অপশক্তির বিরুদ্ধে, বলেন কোন ষড়যন্ত্রকারী এসেছেন , যদি ডাক দেন স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে তার জন্য আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। এরজন্য এই সমাবেশের আয়োজন।  


জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি চন্দন শীলের সভাপতিত্বে সমাবেশে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো. বাদল, য্গ্মু সম্পাদক আবু জাফর চৌধুরী বীরু, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর সোহেল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা, যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফুল্লাহ্ বাদল, সাধারণ সম্পাদক এম শওকত আলী, সোনারগাঁ থানা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শামসুল ইসলাম ভূঁইয়া, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূঁইয়া সাজনু, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম চেঙ্গিস, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রফেসর শিরিন বেগম, মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসরাত জাহান স্মৃতি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহমেদ দুলাল প্রধান, নাজমুল আলম সজল, আব্দুল করিম বাবু, শফিউদ্দিন প্রধান, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নাজিমউদ্দিন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক মোহসিন মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরো খবর