সোমবার   ০৪ মার্চ ২০২৪   ফাল্গুন ২১ ১৪৩০

নারায়ণগঞ্জে সাড়ে চার লাখ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

 

জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন- ২০২৩ উপলক্ষে সাংবাদিকদের জন্য ওরিয়েন্টেশন কর্মশালার আয়োজন করে নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন। গতকাল রবিবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১২ টায় নারায়ণগঞ্জ  জেলা সিভিল সার্জনের সম্মেলন কক্ষে ও দুপুর ২টায় নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের নগর ভবনের সম্মেলন কক্ষে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন উদযাপন উপলক্ষ্যে সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন ও সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

এ সময় জেলা সিভিল সার্জন কার্যলয়ে সাংবাদিক ওরিয়েন্টেশন ও সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা: আবুল ফজল মো.মুশিউর রহমান। মেডিকেল অফিসার ডা. একে.এম মেহেদী হাসান ও জেলা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট লুৎফর রহমান'র যৌথ উপস্থাপনায় সভায় ভিটামিন 'এ' প্লাস ক্যাম্পেইনের উপর প্রেজেন্টেশন উপস্থাপন করেন জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসার ডা.শিল্পী আক্তার।

 

 

এ সময় জেলা সিভিল সার্জন ডা: আবুল ফজল মো.মুশিউর রহমান বলেন, ২০ ফেব্রয়ারি সোমবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি উপজেলায় (নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন ব্যতিত) ৬-১১ মাসের ৩৮,৯০৩ জন শিশুকে একটি নীল রঙের ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল ( ১,০০,০০০ আই ইউ) এবং ১২-৫৯ মাস বয়সের ২,৮৪,৭৪০ জন শিশুকে ১টি লাল রংঙের ভিটামিন 'এ' ক্যাপসুল (২,০০,০০০ আই ইউ) খাওয়ানো হবে।

 

 

অত্র জেলায় (সিটি করপোরেশন ব্যতিত) স্থায়ী ও অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্র ১,০৫৬টি, প্রতি কেন্দ্রে মোট ৩ জন (স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মীসহ) শিক্ষক ও স্বেচ্ছাসেবকের মাধ্যমে জাতীয় ভিটামিন-এ প্লাস ক্যাম্পেইন কার্যক্রম বাস্তবায়নের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

 

 

ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল নিরাপদ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার তেমন কোন ঝুকি নেই। দুপুর ২টায় নগর ভবনের সম্মেলন কক্ষে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেডিকেল অফিসার ডা: শেখ মোস্তফা আলী’র সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন নাসিকের প্রধান নির্বাহী অফিসার শহিদুল ইসলাম।

 

 

এ সময় তিনি বলেন, ২০ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন ৩৪০টি টিকাদান কেন্দ্রের মাধ্যমে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী প্রায় ২১,৭৪৩ জন শিশুকে নীল রংয়ের ১টি করে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল ও  ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী ১,০৯,৬৯৬জন শিশুকে লাল রংয়ের ১টি করে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

 

 

তিনি আরও বলেন, ভিটামিন ‘এ’ যে শুধুমাত্র অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে শিশুদের রক্ষা করে তাই নয়, ভিটামিন ‘এ’ শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, ডায়রিয়ার ব্যাপ্তিকাল ও জটিলতা কমায় এবং শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমায়। ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল ভরাপেটে খাওয়ানো ভালো।

 

 

ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল শিশুর জন্য সম্পূর্ন নিরাপদ এবং  ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ালে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হওয়ার তেমন কোন ঝুঁকি নেই, আর যদি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হয় তাহলে নিকটস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যোগাযোগ করবেন। মারাত্মক অসুস্থ্য শিশুকে স্বাস্থ্যকর্মী বা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী  ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়াতে হবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর