শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

নগরীতে তিন দফা দাবিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের মানববন্ধন 

প্রকাশিত: ১৪ অক্টোবর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : বুয়েটর শিক্ষার্থী আবরার হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, ছাত্র রাজনীতি বন্ধের ষড়যন্ত্র রুখে দাঁড়াও, গণতান্ত্রিক শিক্ষাঙ্গণ নিশ্চিত করার দাবিতে মানববন্ধন করেছে জেলা সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট। 


সোমবার (১৪ অক্টোবর) সকালে সভাপতি সুলতানা আক্তার  সভাপতিত্বে  চাষাড়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।  মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সহ সভাপতি জেসমিন আক্তার,  সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোসেন, অর্থ সম্পাদক মুন্নি আক্তার,  মহিলা কলেজ শাখার সভাপতি সানজিদা শান্ত প্রমুখ। 


এ সময় বক্তারা বলেন, ১৯৪৭ এ  আমরা কলকাতা বন্দর ব্যবহার করতে চেয়েছিলাম কিন্তু ভারত সরকার তখন রাজি হয়নি । কিন্তু এখন আমরা মংলা বন্দর তাদের সাথে ভাগ করে দিচ্ছে। আমাদের গ্যাস বিভিন্ন কোম্পানি ভারতে সাথে চুক্তি করছে । আমাদের দেশের গ্যাস দিয়ে দিবে।


আমাদের ফেনী নদীর পানি তাদের দিয়ে দিচ্ছে। আবরার শুধু এই ব্যাপারগুলো নিয়ে কথা তুলেছিলো এইটাই কি ছিল তার অপরাধ?  এই অসম চুক্তির বিরুদ্ধে আবরার কথা বলেছিলো। 


ক্ষমতাসিনদর স্বার্থ সিদ্ধির জন্য যে অসম চুক্তির করেছিলো তার বিরুদ্ধে আবরার কলম ধরেছিলো সেটাও রাজনীতি। যে রাজনীতি আপনারা বন্ধ করতে বলছেন কিন্তু আবরারের যে স্বপ্ন, যে দাবি সেটা নিয়ে আপনারা কথা বলছেন না। সে অসম চুক্তি আপনারা বাতিল করছেন না। আপনারা ছাত্র রাজনীতি বন্ধ নামে যে প্রহসন শুরু করছেন। তার অন্তরালে আছে কি ? 


যারা ক্যাম্পাসে প্রগতিশীল কথা বলবে, দেশের স্বার্থে কথা বলবে, জনগণের কথা বলবে , সিট বানিজ্যের  বিরুদ্ধে কথা বলবে, সেই ছাত্ররা সংগঠনরা  যেনো সংগঠিত না হতে পারে । তারা যদি সংগঠিত হয় তাহলে আপনাদের ভিত কাঁপিয়ে দিবে। 


যে ছাত্ররা ১৯৫২ ভাষা আন্দোল, ১৯৬২ শিক্ষা আন্দোল, ১৯৬৯ গণঅভ্যুত্থান এবং ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধো প্রত্যেকটার সাথে এই দেশের ছাত্র সমাজ যুক্ত ছিলো । তাই আপনাদের ভিতরে ভয় কাজ করছে। আজকে তাদের তুটি চেপে ধরার জন্য ছাত্র রাজনীতি নাম নিয়ে যে ষড়যন্ত্র করছে। সারা দেশে ১২ টি বিশ্ববিদ্যালয়ে মধ্যে ৫৮ টি টার্চার সেল সেখানে তৈরি করেছে। 


তার অন্তরালে আছে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য লাঠিয়াল বাহিনী, র্টচার সেল বাহিনী, ওই ছাত্রলীগ বাহিনী, সন্ত্রাসি বাহিনী। লুট পাট , চাঁদাবাজি, দুর্নীতি, টেন্ডার বাজি। সারা দেশে  লুট পাটের যে রাজত্ব কায়েম করছে সেটাকে টিকিয়ে রাখা। 
 

এই বিভাগের আরো খবর