মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ১ ১৪২৬   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪০

দল আপনাকে আকাম করতে বলে নাই :  এসপি হারুন

প্রকাশিত: ৩ জুলাই ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪): জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ বলেছেন, এখানে দলের কিছু নাই। এখানে দল আপনাকে বলে নাই আকাম (অকাজ) করার জন্য। দল আপনাকে বলে নাই কারো বাড়ি দখল করার জন্য। দল আপনাকে বলে নাই যে মাদক ব্যবসা করেন, বালু ব্যবসা করেন, তেল  চুরি করেন। দল বলেছে যার যার দল করবেন এবং সুষ্ঠু ও সঠিক কাজটি করবেন। এসময় এসপি হারুন আরো বলেন, অনেকেই সময়ের প্রহর গুনছেন যে কবে এসপি চলে যাবে? কবে আবার সে সময় আসবে?  সে নতুন দিন আর আসবে না । পুলিশ ঘুরে দাঁড়িয়েছে।।

 

বুধবার (৩ জুলাই) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের শহীদ হানিফ খান মিলনায়তনে এনটিভির ১৭তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

 

এসপি হারুন বলেন, এক সময় আমার স্বপ্ন ছিলো যদি নারায়ণগঞ্জে চাকরি করতে পারতাম। আমি তখন ঢাকার চেয়ে নারায়ণগঞ্জকে প্রাধান্য দিতাম। নারায়ণগঞ্জ ঢাকার পাশ্ববর্তী জেলা হলেও এর শিক্ষা-দিক্ষা, ইতিহাস, ঐতিহ্যের দিক দিয়ে ঢাকার চেয়ে নারায়ণগঞ্জ অনেক এগিয়ে। অথচ সে নারায়ণগঞ্জ কলুসিত হবে, মাদকাসক্ত,অপরাধীদের,হত্যাকান্ডের কারণে নষ্ট হবে এটা হতে পারে না। আমি যতদিন নারায়ণগঞ্জে থাকবো এসকল কিছুর বিরুদ্ধে আমাদের এ সংগ্রাম অভিযান চলবে এবং চলতেই থাকবে। 

 

এসপি হারুন বলেন, এখানকার মানুষ যুগে যুগে কষ্ট করেছি কেউ জায়গা জমি দখল করে নিয়েছে, তার বাড়িতে মাদক ব্যবসায় হচ্ছে, কেউ জোর করে ডিস ব্যবসা নিয়ে যাচ্ছে জোর করে লাইন দিয়ে দিচ্ছে। তার বিরুদ্ধে  বিচার দিবে সেই মানুষটা নাই।  আর আমার পুলিশের কাছে বিচার দিবিতে তো দুরে কথা। আমার পুলিশ গিয়ে বসে থাকে যে অপরাধ করছে তার কাছে যেয়ে বসে থাকে । যারা অপরাধ করছে তার কাছেই যদি পুলিশ বসে থাকে তাহলে কার কাছে মানুষ বিচার দিবে। আমরা এ দিকটাকে পরিবর্তনের চেষ্টা করছি।

 

এসপি হারুন বলেন, তিনদিন আগে এক ইতালী প্রবাসী নারী তার বন্ধুকে মুঠোফোন বার্তায় বলল যে চার থেকে পাঁচ বছর যাবৎ তার ফ্ল্যাটটি জোরপূর্বক দখল হয়ে আছে। সেখান থেকে কোনো ভাড়া পাচ্ছে না। আমাকে এ বিষয়টি জানানোর পর আমি সাথে সাথে ফ্ল্যাটাটিতে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছি। পরে যে দখল করে রেখেছে তার মা (আজমেরী ওসমানের মা পারভীন ওসমান) এসে আমাকে বলল যে,  ‘সে কি করলে খুশি হবে’। ফ্ল্যাটের দাম ৭৫ লাখ টাকা। কিন্তু এ টাকা আমি চাই না। সে ৪ থেকে ৫ বছরে যে টাকা এখান থেকে খাইছে সে ভাড়া আমাকে দিতে হবে। পরে সে ৯০ লাখ টাকা দিয়ে এ বাড়ি ছাড়িয়ে নিয়ে যান। আমার কাছে বিষয়টা এটা না । মূল কথা হলো অভিযোগ আসতে হবে। 

 

এসপি হারুন বলেন, আমরা পুলিশ বাহিনী ইচ্ছে করে কারো গায়ে হাত দিতে চাই না। আমরা অনেককে জেলে নিয়েছি এটা তো আইন। কিন্তু আমরা সারা বছর একজনকে জেলে রাখবো এই এখতিয়ার আমাদের হাতে নেই। আমরা সকল মিলে পুলিশ ,সাংবাদিক ও সাধারণ মানুষ  এক সাথে এক সূত্রে  কাজ করি তাহলে নারায়ণগঞ্জে আর গডফাদার, চাঁদাবাজ মাদক ব্যবসাই নারায়ণগঞ্জে ঠাঁই হবে না। 

 

নারায়ণগঞ্জের মানুষ তো ভুলেই গিয়েছিলো যে পুলিশ কাজ করতে জানে উল্লেখ করে এসপি হারুন বলেন, মানুষ ভাবতো তারা (সাধারণ মানুষ) চাঁদাবাজি, দখলদারিত্বে অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছিলো। আর আমার পুলিশরা তাদের চামচামিতে অভ্যস্ত। আর এ সকল কাজ থেকে পুলিশ বাহিনী ঘরে দাড়ানোর জন্য রাষ্ট্র কাজ করছে।পুলিশ বাহিনীদের প্রতি আমার অনুরোধ থাকবে যে আপনারা আপনাদের কাজটি সঠিকভাবে করুন। আমরা একসূত্রে গাঁথা থাকতে পারি তাহলে এ নারায়ণগঞ্জে কোনো চাঁদাবাজ,গডফাদার টিকে থাকতে পারবে না।

 

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্যে রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই, জেলা মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান,সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, জাতীয় শ্রমিকলীগের শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক নেতা কাউসার আহাম্মদ পলাশ, নারায়ণগঞ্জ সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বী, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম, সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান শামীম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক খন্দকার শাহ আলম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শরীফ উদ্দিন সবুজ, নারায়ণগঞ্জ  জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের (এনইউজে) সভাপতি আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন পন্টি,  বৈশাখীর জেলা প্রতিনিধি রফিকুল ইসলাম রফিক প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনা করেন এনটিভি’র নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি নাফিজ আশরাফ। অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আব্দুল্লাহ্ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নূরে আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) সুবাস চন্দ্র সাহা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী, সদর থানা ওসি কামরুল হাসান, ডিআইও-২ সাজ্জাদ রোমন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 
 

এই বিভাগের আরো খবর