বুধবার   ২৭ মে ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১২ ১৪২৭   ০৪ শাওয়াল ১৪৪১

তথ্য গোপন করার ফল কখনো ভাল হয়নি হবেও না : রাজিব

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার ( যুগের চিন্তা ২৪ ) : বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সারাবিশ্বে মতো বাংলাদেশেও এর বিস্তার লাভ করেছে । স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে সংক্রমিত হয়েছে আরও ৩৫ জন। মারা গেছে ৩ জন। দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা  প্রথমবারের মতো একশ ছাড়াল। এখন সর্বমোট করোনাভাইরাস আক্রান্ত মানুষ ১২৩ জন। 

 

মরনঘাতী করোনা ভাইরাস নিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাশুকুল ইসলাম রাজিব সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম তার নিজস্ব ফেইসবুকে আইডিতে লিখেছেন তথ্য গোপন করার ফল কখনো ভাল হয়নি হবেও না ।

 

বিশ্বের সব দিক দিয়ে সামর্থ্যবান রাস্ট্রগুলো যখন করোনা মোকাবেলায় ব্যর্থ তখন আমাদের দেশ সামর্থ্য দিয়ে সেটা মোকাবেলা করে সফল হবে এটা ভাবার মিনিমাম সুযোগ যেমন নাই তেমনি এটা বুঝার জন্য বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন নেই । তাই এখানে সরকারের ব্যর্থতা বা সফলতার কিছু নাই । যেটা সবচেয়ে জরুরী সেটা হলো সত্য প্রকাশ করা ।

 

রাজিবের ফেইসবুকের লেখাটি  তুলে ধরা হলো, তথ্য গোপন করার ফল কখনো ভাল হয়নি হবেও না । বিশ্বের সব দিক দিয়ে সামর্থ্যবান রাস্ট্রগুলো যখন করোনা মোকাবেলায় ব্যর্থ তখন আমাদের দেশ সামর্থ্য দিয়ে সেটা মোকাবেলা করে সফল হবে এটা ভাবার মিনিমাম সুযোগ যেমন নাই তেমনি এটা বুঝার জন্য বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রয়োজন নেই । তাই এখানে সরকারের ব্যর্থতা বা সফলতার কিছু নাই ।

 

যেটা সবচেয়ে জরুরী সেটা হলো সত্য প্রকাশ করা । তাহলে মানুষ এমনিতেই সচেতন হবে । একদিকে লকডাউন আর একদিকে লক্ষ লক্ষ শ্রমিক এনে আবার প্রত্যাহার একদিনের আগের সিদ্ধান্ত নেয়ার মাঝে যে সমন্নয়ের অভাব এটা স্পষ্ট দৃশ্যমান। ডেথ সার্টিফিকেটে ব্রেইন স্ট্রোক তারপর করোনা সনাক্ত এগুলো বন্ধ করা জরুরী।

 

মৃত্যুর পর বাড়ি লকডাউন করে কি লাভ হবে কারন এর আগেই উনি কতজনকে সংক্রামিত করে গেছেন তা আল্লাহ ই জানেন। তাই সরকারের সরকারি কর্মকর্তারা যারা নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন তাদের প্রতি বিনীত অনুরোধ কাজের ধরন টা একটু পালটান মানুষকে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য উৎসাহিত করুন ।

 

এই বলে যে কারো মধ্যে যদি করোনার উপসর্গ দেখা দেয় সে যেন নিজ থেকে চিকিৎসকের কাছে বা প্রশাসনকে ইনফর্ম করে যাতে সে নিজেও বাচে অন্যকেও বাচাতে সাহায্য করে ।  আর তা নাহলে কেউ যদি এটা বিশ্বাস করে বসে যে, সে নিজে চিকিৎসা পাবেনা বা বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে । তখন তার মধ্যে সচেতনতা জাগ্রত করা অনেক কঠিন কাজ হয়ে দাড়াবে।

 

তাই সবার সচেতন হওয়ার যেমন বিকল্প নাই তেমনি সরকার বা সরকারি কর্মকর্তাদের মানুষকে সাহস ও নির্ভরতা দানের মাধ্যমে বিশ্বাসযোগ্য হয়ে উঠা ছাড়া কোন বিকল্প নাই।মনে রাখতে হবে করোনা ধনী,গরীব,অক্ষম,সবল,সরকার, বিরোধী এগুলো বিবেচনায় নিবেনা। এই জাতীয় দূর্যোগে আমরা সবাই অসহায় কেউ আমরা বিপদমুক্ত নই। তাই সবাইকে বিশ্বাসের সাথে একযোগে সাহস নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে ।

 

এ জাতি বীরের জাতি ইনশাআল্লাহ আমরা আল্লাহর রহমতে আল্লাহর সাহায্য নিয়ে এ দূর্যোগ মোকাবেলা করে জয়ী হবোই হবো। সবাই নিরাপদে থাকুন বেশিবেশি করে আল্লাহকে ডাকুন যারা আমাদের জন্য কাজ করছে তাদের জন্য সহ প্রত্যেকে প্রত্যেকের জন্য পরিবারের জন্য এবং দেশবাসীর জন্য দোয়া করুন ।নিশ্চয়ই আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেফাজত করবেন।

এই বিভাগের আরো খবর