মঙ্গলবার   ০৭ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২৪ ১৪২৬   ১৩ শা'বান ১৪৪১

গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা নাকি হার্টের ব্যথা কীভাবে বুঝবেন ?

প্রকাশিত: ২ মার্চ ২০২০  

ডেস্ক রিপোর্ট (যুগের চিন্তা ২৪) : হার্টের ব্যথাকে বেশির ভাগ মানুষ গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা মনে করে গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। কিন্তু বেশির ভাগ সময় সে ঘুম আর ভাঙে না। পাশে শুয়ে থাকা মানুষটিও টের পায় না রাতে কীভাবে লোকটি হার্টব্লক করে মারা গিয়েছে। 

 

গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা : সাধারণত এই ব্যথা পেটের উপরের অংশে হয় এবং নির্দিষ্ট একটা জায়গা জুড়েই হয়। শরীরের অন্য অংশে এই ব্যথা ছড়ায় না।

 

হার্টের ব্যথা : যেহেতু আমাদের হার্ট বুকের বাম পাশে তাই হার্টের ব্যথা বুকের বামপাশ কিংবা মাঝখান থেকে শুরু হয়ে ঘাড়, বাম বাহু বা বাম হাতে ছড়িয়ে পড়ে। এই ব্যথা এতটাই তীব্র হয় যে, অনেকটা হাতির পা বুকে চাপ দিলে যেমনটা হয় ঠিক তেমনি। আবার অনেকের ক্ষেত্রে ভারী পাথর বুকের উপর রাখলে যেমনটা ফিল হয় অনেকটা সেরকম।

 

এই ব্যথায় রোগী শুয়ে থাকলে কিংবা দাঁড়ানো অবস্থায় থাকলেও নিজেই নিজের হাতে বুকের বাম পাশটা চেপে ধরে বসে পড়েন।

হার্টের ব্যথায় কখনোই যা করবেন না : হার্টের ব্যথায় রোগীর শরীরে ঠাণ্ডা ঘাম বের হওয়া স্বাভাবিক। এই ক্ষেত্রে রোগীরর বাড়ির লোকজন ১৮ ডিগ্রী সে. এসি চালিয়ে দেন। এতে ঠাণ্ডায় ব্লাড ফ্লো কমে যায়।

 

তাই এসি না চালিয়ে নরমাল ফ্যানের বাতাসে রোগীকে রাখুন। অনেকেই আবার এই ব্যথায় রোগীকে সোজাসুজি শুইয়ে দেন। তা আরো একটি ভুল পদ্ধতি। কারণ ব্লাড সার্কুলেশনের অভাবে হার্ট অ্যাটাক হয়।এই সময় রোগী শুয়ে থাকলে ব্লাডের গতি আরো কমে যায়। 

 

এসময় রোগীকে খাটে বসিয়ে পিঠের পেছনে বালিস দিয়ে হেলান দিয়ে রাখুন এবং যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসের কাছে নিয়ে যান।
 

এই বিভাগের আরো খবর