মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬   ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

কমেছে মাছ, মুরগি ও সবজির দাম

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪): বাজারে মাছ, মুরগির মাংস ও সবজির দাম কমেছে। বিক্রেতারা জানান, কিন্তু অধিকাংশ পণ্যের দাম কমলেও বাজারে তেমন ক্রেতাদের উপস্থিতি নেই। রমজানের শুরুর দিকেই অনেকে পুরো মাসের বাজার সেরে ফেলায়, দু’এক সপ্তাহের ব্যবধানে সব ধরণের পণ্যের দরদাম বিবেচনা করলে দেখা যাবে, রোজার শুরুতে যেসব ক্রেতারা বাজার করে ফেলেছে অনেক ক্ষেত্রেই তাঁরা এর সুফল পচ্ছেনা।


৭ দিন আগেও বাজারে চিংড়ি মাছ বিক্রি হতো ৭০০ টাকা কেজি। কিন্তু আজ শনিবার (১৮ এপ্রিল) নগরীর বিভিন্ন বাজারগুলোতে দেখা যায়, প্রতিকেজি চিংড়ি মাছ বিক্রি হচ্ছে, ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকায়। শিং মাছ ৪০০ টাকা কেজি, পাবদা ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা কেজি, রুই ২৫০ টাকা কেজি ও ইলিশের তেমন উপস্থিতি না থাকলেও বিক্রি হচ্ছে ১৮০০ থেকে ২০০০ টাকা হালি। 


অন্যদিকে সবজির বাজারে অন্যান্য সময়ের চেয়ে কয়েকদিন যাবত বিভিন্ন শাক-সবজির সরবরাহ বেশি থাকলেও তেমন বিক্রি নেই। তাই দাম কমতির দিকে। রমজানের আগেও কাঁচামরিচ ও বেগুনের দাম শতকের কাছাকাছি থাকলেও এখন বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকার মধ্যে। এছারা, ঢেড়স ২৫ টাকা কেজি, উস্তা ১৫ টাকা কেজি, শসা ৩০ টাকা কেজি, পটল ২০ টাকা কেজি, টমেটো ২০ টাকা কেজি, লুব্বা ২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। 


দিগুবাবুর বাজারে এক সবজি বিক্রেতা জানালেন, অনেইে রোজার শুরুতেই সম্পূর্ণ মাসের বাজার করে ফেলেছে। ভেবেছিলো পরে দাম আরো বাড়বে। কিন্তু হয়েছে উল্টো দাম এখনই কম। কিন্তু ক্রেতার অভাব!  


এক সপ্তাহ আগেই কেজিতে ৩০ টাকা পর্যন্ত কমেছে বয়লার মুরগির দাম। কিন্তু এ সপ্তাহে কেজিতে ৩০ টাকা কমেছে লাল মুরগির দামাও। তাই মুরগির বাজারে বয়লার ১৩০ টাকা ও লাল মুরগি ১৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছারা নগরীর দিগুবাবুর বাজারে অধিকাংশ গরুর মাংসের দোনাকেই দেখাগেছে, প্রতিকেজি মাংস  বিক্রি হচ্ছে ৫২৫ টাকায়। এবাং ঢাকা সিটি করপোরেশনের বরাত দিয়ে প্রতি কেজি খাসির মাংস ৭৫০ টাকা ও ভেড়া বরকির মাংস ৬৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 


এবং পেয়াজের দাম একটু বাড়লেও আদা- রসুন, চিনি, ছোলাসহ অন্যান্য পন্য বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই। আদা ১০০ টাকা কেজি, রসুন ৮০ টাকা, ছোলা ৬৫ ও চিনি ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। 
 

এই বিভাগের আরো খবর