রোববার   ১৮ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৩ ১৪২৬   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

ঈদে প্রতিবারই কোন না কোন দূর্ঘটনা ঘটতো : মশিউর রহমান রনি

প্রকাশিত: ১৪ জুন ২০১৮   আপডেট: ১৪ জুন ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : বিএনপির দুঃসময় কাটিয়ে উঠতে ভ্যানগার্ড হিসেবে কাজ করতে হবে ছাত্রদলকে। প্রায় ২ যুগ সময় ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটির সভানেত্রী কারাগারে বন্দী। নেতারাও হামলা মামলায় বিপর্যস্ত। দলটির দাবি স্বৈরতান্ত্রিক কায়দায় চলছে দেশ। বলছেন, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে এবার গড়ে তুলতে হবে গণআন্দোলন।

 

দলের এই ক্রান্তিলগ্নে যখন ভরসার মানুষ খুঁজে পাওয়াটা দায় ঠিক তখনই নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হিসেবে অগ্রজ নেতারা ভরসা রেখেছেন তার উপর। তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সদ্য ঘোষিত কমিটির সভাপতি উদীয়মান রাজনৈতিক নেতা মশিউর রহমান রনি। যুগের চিন্তা ২৪ এর ঈদ আড্ডায় এই ছাত্র নেতা শুনিয়েছেন তার অজানা অনেক গল্প। যুগের চিন্তা ২৪ এর পাঠকদের জন্য তুলে দেয়া হলো সেই আড্ডার অংশ বিশেষ।

 

যুগের চিন্তা: কেমন আছেন?

ভাল আছি। আপনি ভাল আছেন?

যুগের চিন্তা: ঈদ নিয়ে আপনার উপলব্ধি কি?

মুসলমানের জন্য ঈদটা ভাল লাগার ও আনন্দের বিষয়। তবে নেত্রী কারাগারে বলে এবারের ঈদটাকে তেমনভাবে উপলব্ধি করতে পারছি না।

যুগের চিন্তা: ঈদ আনন্দের সঙ্গে যোগ হয়েছে ফুটবল বিশ্বকাপের উন্মাদনা, বিশ্বকাপ নিয়ে বলুন।

ঈদে বিশ্বকাপটা বাড়তি পাওয়া। আমি আর্জেন্টিনার সাপোর্টার। প্রিয় খেলোয়ার ম্যারাডোনা ও মেসি। ব্যস্ততার মধ্যেই খেলা দেখার ইচ্ছা আছে। অন্তত আর্জেন্টিনার খেলাতো দেখবোই।

যুগের চিন্তা: কোথায় এবং কিভাবে ঈদের দিনটা কাটাবেন? নারায়ণগঞ্জে আত্মীয় স্বজন ও পরিবারের সঙ্গেই ঈদ উদযাপন করবো। নামাজ পড়বো। টানা কাজের ফলে কিছুটা ক্লান্ত, ঈদে সারাদিন ঘুমাবো। বিকেলে নেতাকর্মীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় হবে।

যুগের চিন্তা: ঈদে প্রিয় খাবার?

হাতে তৈরী সেমাই। অবশ্যই মায়ের হাতের।

যুগের চিন্তা: শৈশবের ঈদ কেমন ছিল?

বাবা পেশায় একজন ঠিকাদার। তিনি ঈদের দুদিন আগে সময় পেতেন। ফলে আগে আগে জামা কেনা হতো না। তখনতো আর সেটা বুঝতাম না। দেখা যেতো প্রতি বছর নতুন জামার জন্য কান্নাকাটি করতাম। বাবা সময়ের অভাবে মার্কেটে নিয়ে যেতে পারতেন না। বেশির ভাগ সময়েই দেখা যেতো ঈদের দুদিন আগে বা চাঁদ রাতে বাবার সঙ্গে কেনাকাটা করতে যেতাম। তখন ইচ্ছেরও বেশি কেনাকাটা করে দিতেন।

যুগের চিন্তা:ঈদের কোন স্মৃতিটা সবচেয়ে বেশি মনে পড়ে?

ঈদে সব সময় নানা বাড়ি যেতাম। আর প্রতিবারই কোন না কোন দূর্ঘটনা ঘটতো। হয়তো বাশের কঞ্চি দিয়ে হাত কেটে গেছে, সাইকেলের চেইনে পা আটকে গেছে কিংবা পুকুরে গোসল করতে গিয়ে পা কেটে ফেলছি এমন অনেক ঘটনা আছে। বিশেষ করে ক্লাস সিক্স পর্যন্ত।

যুগের চিন্তা: পরিবারের বাইরে কখনো ঈদ কাটানো হয়েছে?

মামলার কারনে বিগত তিন বছর টানা পরিবারের বাইরে ঈদ কাটাতে হয়েছে। যদি সবকিছু ঠিকঠাক থাকে, প্রশাসনিক ঝামেলা না হলে এবার বাবা মায়ের সঙ্গেই ঈদ কাটাবো।

যুগের চিন্তা: ঈদের পরের রাজনৈতিক পরিকল্পনা সম্পর্কে বলুন।

জেলা ছাত্রদলের নবনির্বাচিত সভাপতি হিসেবে সংগঠনকে সু সংগঠিত করাই হলো প্রধান পরিকল্পনা। থানা ও ওয়ার্ড কমিটিগুলো সাজাতে হবে। তার বাইরে আন্দোলনের প্রয়োজনে যে কোন কর্মসূচীতে সর্বোচ্চ মাত্রায় সক্রিয় থাকবো।

এই বিভাগের আরো খবর