শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৯ ১৪২৬   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

আজমেরী ওসমানের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের হানা, পণ্ড (ভিডিও)

প্রকাশিত: ২৬ জুন ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : শহরের পাইকপাড়ায় আদি ফুডল্যান্ডে চাঁদার দাবিতে মঙ্গলবার রাতে ব্যাপক হামলা ও লুটপাট চালিয়ে শোরুম, ফ্যাক্টরী ও অফিস ভাঙচুর করে আজমেরী ওসমানের সেকেন্ড ইন কমান্ড শীর্ষ সন্ত্রাসী লিমন, দারুন, রমজান, পিন্টু ও শিপলুসহ তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা। এ হামলার ঘটনায় তাদের সবাইকে অভিযুক্ত করে আদি ফুডল্যান্ডের মালিক হাবিবুর রহমান হাবিব।

 

এঘটনার পরদিন বুধবার (২৬ জুন) বিকেলে চাষাঢ়া বালুর মাঠ ভাষা সৈনিক রোডে হাবিবের বিরুদ্ধে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করতে লোকজন জড়ো করে নারায়ণগঞ্জ দোকান ও প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ইউনিয়নের ব্যানারে আজমেরী ওসমানের লোকজন। তবে পুলিশের উপস্থিতিতে সে আয়োজন পন্ড হয়ে গেছে। ঘটনাস্থলে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম, পুলিশের সদস্য এবং পরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি এনামুল হকের নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক সদস্য উপস্থিত ছিলেন। পুলিশের সদস্যরা পুরো ভবনের নিচ তলা থেকে তিন তলা পর্যন্ত ঘিরে রাখে। ফলে সংবাদ সম্মেলন আর শেষ করতে পারেনি আয়োজকরা। 

 

বুধবার দুপুর থেকেই নারায়ণগঞ্জ দোকান ও প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ইউনিয়ন অফিসের সামনে নানা রঙের অসংখ্য লোকজন জড়ো হতে থাকে। এসময় ওই এলাকায় একটি ভৌতিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। শুরুতে একজন এসআই ও কয়েকজন পুলিশ সদস্য থাকলেও সংবাদ সম্মেলন শুরু হতেই অপরিচিত লোকের আনাগোনা অনেক বেড়ে যায়। সংবাদ সম্মেলন শুরুর এক পর্যায়ে সদর থানার ওসি ঘটনাস্থলে আসেন। এসময় সংবাদসম্মেলনকে ঘিরে আসা ওই সংগঠন ও বহিরাগতরা সটকে যেতে শুরু করেন। ওসি কামরুল জানতে চান এই সংবাদ সম্মেলনটি কারা এবং কেন আয়োজন করেছেন। ওসি কামরুল প্রশ্ন রাখেন, যার দোকন ভাঙলো তিনি আসলেন না সংবাদ সম্মেলন করতে আপনারা কার জন্য সংবাদ সম্মেলন করছেন।

 

এসময় ওসি আয়োজকদের পরিচয় জানতে চান। এসময় আয়োজকদের প্রধান নারায়ণগঞ্জ দোকান ও প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোজাম্মেল হক বলেন, আমাদের সংগঠনের উপদেষ্টা আজমেরী ওসমানের নামে অপপ্রচার শুরু করেছে তাই এই সংবাদ সম্মেলন।  নারায়ণগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু খায়ের, জাতীয় নীট ডায়িং গার্মেন্ট শ্রমিক ইউনিয়ন ফেডারেশন, নারায়ণগঞ্জ  জেলা বাস, মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত হোসেন ব্যাপারীর নাম টুকে নেন পুলিশের সদস্যরা। 

 

আদি ফুডল্যান্ডে হামলার ঘটনায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে জানিয়ে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, আদি ফুডল্যান্ডে হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় পাঁচজনের নাম উল্লেখ করে এবং আরো ২০/২৫ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। সন্দেহভাজন হিসেবে দুজনকে ইতিমধ্যেই আটক করা হয়েছে। গোপন সংবাদে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ দোকান ও প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ইউনিয়নের অফিসে আমরা গিয়েছি। আমরা যেই তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে গিয়েছিলাম তার মিল না থাকায় আমরা সেখান থেকে চলে এসেছি। কাউকে আটক কিংবা গ্রেপ্তার করা হয়নি।

 

আদি ফুডল্যান্ডের হামলার ঘটনার পরপরই মালিক হাবিবুর রহমান হাবিব অভিযোগ করেন, এবার রমজান মাসেও তার উপর অত্যাচার করেছে সন্ত্রাসীরা। শীর্ষসন্ত্রাসী লিমন তার মাথায় পিস্তল ধরে ডিসবাবুর (১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর) অফিসে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে বেধরক মারধর করে সন্ত্রাসীরা। ডিসবাবুর সামনেই সন্ত্রাসীরা তাকে মারধর করে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা তাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। মঙ্গলবার রাতে আজমেরী ওসমানের সেকেন্ড ইন কমান্ড লিমন তার বাহিনী নিয়ে হাবিবের প্রতিষ্ঠানে (ফুডল্যান্ড) শোরুম, ফ্যাক্টরী ও অফিসে হামলা চালিয়ে ধ্বংসস্তুপে পরিণত করে। এছাড়া ক্যাশ থেকে ৬ লাখ টাকা লুট করে। সকল আসবাবপত্র, ৩টি টেলিভিশন, ফ্রিজ ভেঙেছে। অফিসের সামনে থাকা ২টি মোটরসাইকেলও তারা ভেঙে দিয়েছে। মহল্লাবাসী আজমেরী বাহিনীর তান্ডব দেখে ভয়ে দরজা জানালা লাগিয়ে দেয়। এ ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছায়। 

 

তখন এঘটনার পর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ইসলাম জানান, হাবিব আর আজমেরী নাকি এক সাথেই চলতেন। তারা দুজনে বন্ধু। তবে ঘটনার যারা ঘটিয়েছে তারা আজমেরীর লোক বলে আমরা শুনেছি। তদন্তে সব বেরিয়ে আসবে। 

 

এদিকে পুলিশের উপস্থিতিতে সংবাদ সম্মেলন ঠিকঠাকভাবে শেষ না করতে পারলেও নারায়ণগঞ্জ দোকান ও প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোজাম্মেল হকের লিখিত বক্তব্যের সারমর্ম ছিলো এরূপ। তিনি তাতে লিখেন, দোকান প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ইউনিয়ন, নারায়ণগঞ্জ জেলা বাস মিনিবাস শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন, জেলা নীট ডাইং গামেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, জেলা নীট ডাইং গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, জেলা ট্রাক ট্যাংকলড়ী শ্রমিক ইউনিয়ন, হোসিয়ারী শ্রমিক ইউনিয়ন, মাঝি সমিতি, অন্ধ কল্যান সংস্থা ‘আসোক’, দুরপাল্লা বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়ন, খানপুর (৩৮১০) শাখা ইউনিয়ন নারায়ণগঞ্জ, মাইক্রোবাস  ট্যাক্সি শ্রমিক ইউনিয়ন, নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল কিকেট একাডিমী,  পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ, সরকারী খাদ্য গুদাম শ্রমিক ইউনিয়ন, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিম ওসমান দুঃস্থ ও জনকাল্যান ফাউন্ডেশন সহ কয়েকটি সংগঠনের উপদেষ্টা আজমেরী ওসমান।

 

আজমীর ওসমানকে নিয়ে তার ব্যাক্তিগত বিষয় নিয়ে সম্মানহানী করে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে । যা সম্পূর্ন মিথ্যা, ষড়যন্ত্রমূলক উদ্দেশ্যে প্রণোদিত ও ভিত্তিহীন । আমরা এর তীব্র নিন্দা  ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি । আদি ফুডল্যান্ডের মালিক হাবিবুর রহমান হাব্বি এর সম্পর্কে ভালো করে খোঁজ নিয়ে দেখতে পারেন। যে তার মানষিক ভারসাম্য হারিয়ে গেছে সম্ভবত। অথবা নিজের ব্যক্তিগত আক্রোশ নিয়ে একটি পরিবারের সন্তান যিনি সর্বদা সাধারণ মানুষের জন্য সেবামূলক কাজ করেন তার ব্যাপারে এত বড়  অপপ্রচারে করতেন না ।

 

তিনি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে লিখেন,  বিগত সময়ে এই ওসমান পরিবারের সুনাম ক্ষুন্ন করতে বিভিন্ন সময় এই পরিবারের সদস্যদের নাম ব্যবহার করে বিভিন্নভাবে চাঁদা দাবী করে আসতো কতিপয় ব্যক্তি। যাদের কয়েকজনকে ইতিপূর্বে আজমেরী ওসমান নিজেই পুলিশে দিয়েছিলেন। এর মধ্যে এই হাবীবকেও আজমেরী ওসমানের নাম ব্যাবহার করে এলকায় আধিপত্য বিস্তার করে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ ও চাঁদাবাজীর অভিযোগে গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে থাকতে হয়েছিলো। হয়তো সেই জেদ ধরে সুনাম ক্ষুন্ন করার পন্থা বেঁছে নিয়েছেন।

এই বিভাগের আরো খবর