মঙ্গলবার   ২৬ মে ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৭   ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

আইনজীবীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ নিলেন বার সভাপতি মোহসীন

প্রকাশিত: ১৫ এপ্রিল ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার ( যুগের চিন্তা ২৪ ): বিশ্বব্যাপী মহামারি রূপ নেয়া করোনা ভাইরাসের প্রকোপে বাংলাদেশেও আতঙ্ক ছড়িয়ে পরছে সর্বত্র। স্কুল কলেজ বন্ধ হয়ে গেছে অনেক আগেই, ঘোষনা করা হয়েছে সাধারণ ছুটি।

 

২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষনা করেছিলো সরকার, সেই ছুটি বাড়ানো হয়েছে ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত। সেই সাথে দেশের সকল মার্কেট, সুপার মার্কেট ও দোকানপাট বন্ধ ঘোষনা করেছে দোকান মালিক সমিতি, বন্ধ রয়েছে গন পরিবহনও। শুধুমাত্র নিত্যপন্যের দোকান ও ঔষধের দোকান ছাড়া বাকী সব বন্ধ থাকবে সেসময়।


করোনা ভাইরাসের রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত নারায়ণগঞ্জের পরিস্থিতি রীতিমত ভয়াবহ। গত প্রায় এক সপ্তাহ যাবত পুরোপুরি লক ডাউন চলছে নারায়ণগঞ্জে। গত ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল আদালত। এতোটা সময় কর্মহীন থাকেননি নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ার আইনজীবীরা।

 

এ কারনে অনেক তরুণ আইনজীবীর জীবনযাপণে সাময়িক সমস্যা পরিলক্ষিত হওয়ায় জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. মোহসীন মিয়া সমিতির ফান্ড থেকে ১০ হাজার টাকা লোন দেওয়ার ঘোষনা দিয়েছিলেন।

 

এ লক্ষ্যে সকল আইনজীবীদের কাছে একটি ক্ষুদে বার্তা প্রেরণ করা হয়। যেখানে উল্লেখ করা হয়, করোনা ভাইরাস জনিত দূর্যোগ পরিস্থিতিতে যে সকল বিজ্ঞ নিয়মিত সদস্যগন আইনজীবী সমিতি হইতে লোন (পরিশোধের শর্তে) গ্রহন করতে ইচ্ছুক তাদেরকে ১২ এপ্রিল  রাত ১২ টার মধ্যে যোগাযোগ করে নাম এন্ট্রি করার জন্য অনুরোধ করা হলো। ০১৫১৫৬৫৬৮৬৮ (এড: হাছিব-উল-হাছান রনি)।

 

মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) সকাল থেকে দিনভর আইনজীবীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছেন বার সভাপতি এড. মোহসীন মিয়া এবং যারা লোনের জন্য নাম এন্ট্রি করেছিলেন তাদের ঘরে ঘরে গিয়ে সেই টাকা পৌছে দিয়েছেন। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন আইনজীবী সমিতির যুগ্ম সম্পাদক এড. বরুন চন্দ্র দে, আইন ও মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক এড. হাসিবুল হাসান রনি ও বার সভাপতির বন্ধু সুমন।

 

এ বিষয়ে নারায়নগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. মুহাম্মদ মোহসিন মিয়া বলেন, করোনাভাইরাস একটি বৈশ্বিক মহামারি। সারা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশও এই মহামারির কবলে। করোনার বিস্তার ঠেকাতে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি চলছে। সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জ আদালতের আইনজীবীগণও ছুটিতে রয়েছেন। এ সময়ে অনেক জুনিয়র আইনজীবীর আর্থিক সমস্যার সম্মুখিন হয়েছেন। তাদের সুবিধার্থে আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে ১০ হাজার লোন দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

 

আজ আমরা বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ঘুরে আইনজীবীগনের খোঁজ খবর নিয়েছি এবং সেই লোনের টাকা তাদের বাড়িতে পৌছে দিয়েছি, আইনজীবী সমিতির সভাপতি হিসেবে এটা আমার দায়িত্ব। নারায়ণগঞ্জের আইনজীবীদের যে কোন প্রয়োজনে তাদের পাশে রয়েছে জেলা আইনজীবী সমিতি। সেইসাথে কুতজ্ঞতা প্রকাশ করছি আমার সাথে থাকা তিনজনের প্রতি, তারা এই দূর্যোগের সময়েও আমার সাথে থেকে আইনজীবীদের সেবায় কাজ করেছেন।

 

তিনি আরো বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে সকল আইনজীবীগণকে বলবো আপনারা ঘরে থাকুন, নিজে সুস্থ্য থাকুন, অন্যকেও সুস্থ্য রাখুন। বেশী বেশী করে ইবাদত করুন, নিশ্চয়ই সুষ্টিকর্তা সকল মুসিবত থেকে আমাদের হেফাজত করবেন।

এই বিভাগের আরো খবর