শুক্রবার   ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৯ ১৪২৬   ১৫ রবিউস সানি ১৪৪১

অবৈধ বালু উত্তোলণ বন্ধে জেলা প্রশাসককে চিঠি দিয়েছিলেন এমপি খোকা  

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০১৯  

সোনারগাঁ (যুগের চিন্তা ) : সোনারগাঁ উপজেলাধীন মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলণ বন্ধে গত ২৬ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা বালু মহাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মো. জসিম উদ্দিনকে উপানুষ্ঠানিক পত্র দিয়েছিলেন এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা। যার প্রেক্ষিতে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নিয়ে রবিবার রাতের মত ভয়ঙ্কর সংঘর্ষ ও হত্যাকান্ডের ঘটনা হয়তো ঘটতো না বলে উপজেলাবাসীর ধারনা।  

জানা যায়, প্রশাসনের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজসে বালু সন্ত্রাসী চক্র দীর্ঘদিন যাবত উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ও বারদী ইউনিয়নে মেঘনা নদীর কয়েকটি স্থান থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলণ পূর্বক বিক্রি  করে আসছে। 

বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের আনন্দবাজারসহ অন্যান্য স্থানে বালু উত্তোলণের নেতৃত্বে রয়েছে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নবী হোসেন, টেকপাড়া গ্রামের আমির হোসেন, আল-আমিন, শান্ত, নজরুল, ইসমাঈল মেম্বার ও তার ছেলে রকির নেতৃত্বে কয়েকটি গ্রুপ। এছাড়া বারদী ইউনিয়নের নূনেরটেক এলাকায় স্থানীয় বালু সন্ত্রাসীদের পাশাপাশি মেঘনা থানার বালু সন্ত্রাসীরা সিন্ডিকেট করে দীর্ঘদিন যাবত অবৈধভাবে বালু উত্তোলণ করে আসছে। 

নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে দীর্ঘদিন যাবত অবাধে বালু উত্তোলণের কারণে ওইসব এলাকায় মেঘনা নদীর তীরবর্তী ফসলি জমি ও অসংখ্য বসত ঘরবাড়ি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। আনন্দবাজার এলাকায় আমান ইকোনমিক জোনের শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোও রয়েছে হুমকির মুখে। 

এ বিষয়টি তুলে ধরে সোনারগাঁয়ের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা গত ২৬ নভেম্বর অবৈধ বালু উত্তোলণ বন্ধ করতে কার্যকরী পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে উপানুষ্ঠানিক পত্র দেন। 
 

এই বিভাগের আরো খবর