শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৮ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

ত্বকী হত্যার বিচারের নির্দেশ দিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান

যুগের চিন্তা

প্রকাশিত : ০৯:০৮ পিএম, ৮ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : ‘শেখ রাসেলের জন্মদিনে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন শিশু হত্যাকারীদের তিনি কখনও ক্ষমা করবেন না, ছাড় দেয়া হবে না’- তাই নারায়ণগঞ্জে মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার বিচার শুরু ও চিহ্নিত আসামীদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানিয়েছেন নিহত ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বি। 


শুক্রবার সন্ধ্যায় নগরের আলী আহাম্মদ চুনকা নগর পাঠাগার ও মিলনায়তনে প্রাঙ্গণে ত্বকী হত্যার ৮০ মাস পূর্তি উপলক্ষ্যে ‘চিহ্নিত খুনীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে’ নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ধারাবাহিক মোমশিখা প্রজ্জ¦ালন কর্মসূচীতে বক্তারা এ আহবান জানান। 


সংগঠনের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক নিহত ত্বকীর বাবা রফিউর রাব্বি, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, খেলাঘর আসর জেলা কমিটির সভাপতি রথীন চক্রবর্তী, জেলা সিপিব সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, ন্যাপ জেলার সম্পাদক আওলাদ হোসেন, উদীচী শিল্পগোষ্ঠির জেলা কমিটির সভাপতি জাহিদুল হক। 


এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন জোটের সাবেক সভাপতি জিয়াউল ইসলাম কাজলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 


রফিউর রাব্বি বলেন, ত্বকীর ঘাতকরা চিহ্নিত হয়েছে। তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাবের তদন্তে উঠে এসেছে ত্বকীকে কারা, কেন, কীভাবে অপহরণের পর হত্যা করেছে। গত ৮০ মাসেও ত্বকী হত্যার বিচার শুরু হয়নি। খুনীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হয়নি, গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না।

 

কিন্তু শেখ হাসিনা সরকারের আমলেই ত্বকীর বিচার বন্ধ হয়ে আছে। খুনীদের রাষ্ট্র ও সরকার থেকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। অথচ প্রধানমন্ত্রী বলছেন, দেশের আইনের শাসন চলছে। অবিলম্বে ত্বকীসহ সংঘটিত সকল হত্যাকান্ডের নির্দেশ দিতে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানান তিনি। 


কর্মসূচীতে বক্তারা বলেন, রাতের অন্ধকারে যেসব হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়েছে, সেসব হত্যাকান্ডের বিচার হয়েছে। কিন্তু ত্বকী হত্যার বিচার হচ্ছে না। আমরা ত্বকীর হত্যার বিচার চাই, শান্তি প্রিয় নারায়ণগঞ্জ চাই।

 

খুনীদের সংসদের দেখতে চাই না। সম্প্রতি সময়ে সরকার প্রধান কঠোর হয়েছেন। তার দল থেকে বির্তকিত ও দুর্বৃত্তদের অপসারণও করেছেন। তাই ত্বকী হত্যার বিচার শুরু ও চিহ্নিত খুনীদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয়ার জন্য আহবান জানান তারা। 

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৬ মার্চ নগরীর শায়েস্তা খান রোডের বাসা থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হয় মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী। দু’দিন পর ৮ মার্চ শীতলক্ষ্যা নদীর কুমুদিনী শাখা খাল থেকে ত্বকীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই বছরের ১২ নভেম্বর আজমেরী ওসমানের সহযোগী সুলতান শওকত ভ্রমর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে জানায়, আজমেরী ওসমানের নেতৃত্বে ত্বকীকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়। এর পর থেকে ত্বকীর হত্যার বিচার শুরু ও চিহ্নিত আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে প্রতি মাসের ৮ তারিখ মোমশিখা প্রজ্জা¡লন কর্মসূচী পালন করে আসছে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট।