লিটনের ক্যাচ মিসে অবাক মুশফিক

প্রকাশিত: ২২:৪১, ২৪ অক্টোবর ২০২১

লিটনের ক্যাচ মিসে অবাক মুশফিক

মুশফিকুর রহিম হাসিমুখে সংবাদ সম্মেলনে আসতে পারেননি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৭১ রানের পুঁজি নিয়েও যে বাংলাদেশ জিততে পারেনি। 

হার-জিত ম্যাচেরই অংশ, কিন্তু বাংলাদেশ ম্যাচে যেভাবে হারল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে পারে। সংবাদ সম্মেলনে সে প্রশ্নই উঠল—দায়টা কার? এ প্রশ্নের জবাব দেওয়ার আগে বাংলাদেশের হারের ধরন সম্পর্কে জানিয়ে রাখা ভালো। শ্রীলঙ্কার ৫ উইকেটের জয়ে পঞ্চম উইকেটে ৫২ বলে ৮৬ রানের জুটি গড়েন পাথুম আসালাঙ্কা-ভানুকা রাজাপক্ষে। 

তার আগে দ্বিতীয় উইকেটে পাথুম নিশাঙ্কার সঙ্গেও ৪৫ বলে ৬৯ রানের জুটি গড়েন আসালাঙ্কা। ৪৯ বলে ৮০ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। রাজাপক্ষে করেন ৩১ বলে ৫৩ রান। শ্রীলঙ্কার জয়ে সবচেয়ে বেশি অবদান রাখা এ দুই ব্যাটসম্যানই ‘জীবন’ পেয়েছেন। রাজাপক্ষে ব্যক্তিগত ৯ রানে এবং আসালাঙ্কা ৬৩ রানে থাকতে তাদের ক্যাচ ছাড়েন লিটন দাস।

ব্যাটিংয়েও সময়টা ভালো যাচ্ছে না লিটনের
ব্যাটিংয়েও সময়টা ভালো যাচ্ছে না । সংবাদ সম্মেলনে স্বাভাবিকভাবেই এই ক্যাচ ছাড়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। শেষ ১০ ওভারে বোলিংও ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। সব মিলিয়ে হারের কারণটা কি—এ প্রশ্নের জবাবে মুশফিকের ব্যাখ্যা, ‘দায় চাপানোর কিছু নেই। আমরা যত বড় সংগ্রহই করি না কেন, ম্যাচে ছোটখাটো কিছু ভুল থাকেই, কিছু ইতিবাচক বিষয়ও থাকে। আমার মনে হয়, ক্যাচ দুটি গুরুত্বপূর্ণ ছিল। লিটন খুবই ভালো ফিল্ডার।’ 

মুশফিক এরপরই খানিকটা রসিকতা করে বলেন, ‘আমার কাছ থেকে মিস (ক্যাচ ছাড়লে) হলে হয়তো ভিন্ন কিছু হতো। আমি ওরকম মানের ফিল্ডার না, সে আমাদের অন্যতম সেরা ফিল্ডার। মুহূর্তটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল, জুটি ভাঙা দরকার ছিল।’  মনে করেন ম্যাচে ছোট-খাটো কিছু ভুলের কারণেই হারতে হলো। তাঁর ব্যাখ্যা, ‘সাধারণত শারজার উইকেট যেমন হয়, ১৪০-১৫০ জেতার মতো স্কোর। আজকের উইকেটে ব্যাটিং করে যেটা টের পেয়েছি, (সীমানার) এক দিক ছোট ছিল। আমরা জানতাম ১৭০ হয়তো জয়ের মতো সংগ্রহ না, কিন্তু আমরা যদি শুরুটা ভালো করি এবং সুযোগগুলো নিতে পারি তাহলে ম্যাচে থাকতে পারব। আমরা দ্রুত উইকেট নিলেও ওরা প্রথম ৬ ওভারে ভালো করেছে। সাকিবের ওই ওভারে আমরা আবারও ম্যাচে ফিরেছিলাম। কিন্তু উইকেটে সেট ব্যাটসম্যান থাকায় খুব সহজে ম্যাচটা বের করেছে। সব মিলিয়ে আমি মনে করি, দায়-টায় নয়, আমরা ছোটখাটো কিছু ভুল করেছি, সে কারণে ম্যাচটা জিততে পারিনি।’