শততম সংলাপে  সম্প্রীতি বাংলাদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৫:০৪, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

শততম সংলাপে  সম্প্রীতি বাংলাদেশ

ফাইল ছবি

শুদ্ধচিন্তায় শানিত বৈচিত্র্যময় মানুষের মুক্তপ্রাণের প্রতিধ্বনি সম্প্রীতি বাংলাদেশ সংলাপের ৫৩ তম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়েছে শনিবার রাতে। এটি ছিল সংগঠনের শততম ওয়েবিনার আয়োজন। জনতায়-জনারণ্যে আশা জাগানিয়া সংগঠনটি ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ রাত ৯টায় শুরু করে, আলোচনা চলে পরবর্তী দু’ঘন্টা। দেশ বিদেশের বিশিষ্টজন, অতিথি ও সংগঠকগণ তাঁদের মূল্যায়ন তুলে ধরেন সম্প্রীতি বাংলাদেশের এ আয়োজনে।

৫৩টি সম্প্রীতি সংলাপ ও ৪৭টি টেলিমিডিসিন মিলিয়ে এবারের আয়োজনটি ছিল শততম। সম্প্রীতি বাংলাদেশ-এর আহ্বায়ক ও নাট্যজন পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশ নেন অধ্যাপক আবদুল মান্নান, মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আলী শিকদার (অব.), অধ্যাপক বিধান চন্দ্র দাস (রাজশাহী থেকে), অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন (চট্টগ্রাম থেকে), অধ্যাপক ডা. মো. মাহবুবুর রহমান বাবু, অধ্যাপক মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান চৌধুরী (গাজীপুর থেকে), এম. নজরুল ইসলাম (সভাপতি, সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগ, ভিয়েনা থেকে), নিরঞ্জন রায় (কানাডা থেকে), অধ্যাপক ড. চন্দ্রনাথ পোদ্দার, সুতপা সেন (দিল্লি থেকে), ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাওলানা ফখরুল আশিকী, মো. হেলালউদ্দিন, তাপস হালদার, সৌমিত্র দেব, জমিরউদ্দিন জাম্পি (কুমিল্লা থেকে),  একুশে টেলিভিশনের হেড অফ ইনপুট ড. অখিল পোদ্দার, একরামুল হক লিকু (ঝিনাইদহ থেকে), অয়ন মুখার্জী, নরেশ মুখার্জী (বগুড়া থেকে), বিপ্লব পাল প্রমুখ। 

দ্বিতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিশিষ্ট লেখক ও কালের কণ্ঠ পত্রিকার সিনিয়র সহকারি সম্পাদক কবি আলী হাবিব। তিনি বলেন, অসাম্প্রদায়িক মননের স্মারক সম্প্রীতি বাংলাদেশ  জাতির জনকের ত্যাগ, আদর্শ আর প্রত্যয়দীপ্ত সংগঠকদের চেতনায় অবিরাম- উন্নয়ন, উদ্ভাসন আর প্রজ্জ্বলিত শিখা ছড়িয়ে দিচ্ছে। এটা নিতান্তই বাঙালি চেতনার আদর্শিক লড়াই।

করোনার পর গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে, শহর থেকে জনতায়-জনজীবনে পথ না হারানোর মন্ত্র পৌঁছে দিতেই প্রীতিময় সংগঠকেরা যুক্ত আছেন দুর্বার আন্দোলনে। শীঘ্রই তাই দেশের স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্প্রীতির কার্যক্রম ত্বরান্বিত করতে সংগঠকদের তাগিদ দেন পীযুষ বন্দোপাধ্যায় ।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৭ জুলাই জাতীয় জাদুঘরের শওকত ওসমান মিলনায়নে এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আত্মপ্রকাশ করে সম্প্রীতি বাংলাদেশ।