মারিওপোলে ইউক্রেনীয় সৈন্যদের আত্মসমর্পণের আহ্বান রুশ সেনাবাহিনীর

প্রকাশিত: ১৩:০৯, ১৭ এপ্রিল ২০২২

মারিওপোলে ইউক্রেনীয় সৈন্যদের আত্মসমর্পণের আহ্বান রুশ সেনাবাহিনীর

মারিউপোলে জীবন রক্ষার সুযোগ হিসেবে ইউক্রেনের সৈন্যদের মধ্যে আত্মসমর্পণের আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। ইউক্রেনীয় সৈন্যদের ভেতর যারা অস্ত্র সমর্পণ করবে তাদের জীবনের নিশ্চয়তা দেওয়া হবে।  তবে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি আগেই বলেছেন, মারিওপোলে ইউক্রেনের যোদ্ধাদের নিশ্চিহ্ন করার অর্থ হলো আলোচনার সমাপ্তি টেনে দেওয়া। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সোমবার থেকে মারিওপোলে আরও কড়াকড়ি আরোপ করতে যাচ্ছে রাশিয়া। রবিবার (১৭ এপ্রিল) এক প্রতিবেদনে বিবিসি এসব তথ্য জানিয়েছে। রাশিয়া জানিয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে অস্ত্র সমর্পণ করলেই কেবল তাদের জীবনের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেওয়া হবে। এজন্য তারা কিয়েভের দিকে না তাকিয়ে নিজেদের সিদ্ধান্ত নিজেদের নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে ইউক্রেনের সৈন্যদের। তারা বলছে, ইউক্রেনের যেসব সৈন্য ও বিদেশি ভাড়াটে যোদ্ধারা মারিউপোলে এখনও লড়াই করছে, তারা স্থানীয় সময় সকাল ৬টা থেকে বেলা একটার মধ্যে তাদের অস্ত্র সমর্পণ করলে তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।এটা করবে তাদের বন্দি হিসেবে জেনেভা কনভেনশন অনুযায়ী আচরণ করা হবে। তবে যারা আত্মসমর্পণ করবে না তাদের বিষয়ে কী হবে সে সম্পর্কে দেশটি তাদের বিবৃতিতে কিছু উল্লেখ করেনি।  রাশিয়ার দাবি, ইউক্রেনের সৈন্যদের শহরটির একটি ছোট এলাকায় ঘিরে রাখা হয়েছে।

মারিউপোলে কী হয়েছে

ইউক্রেনের এই বড় বন্দর নগরীটি আগামী কয়েক দিনের ভেতর রাশিয়া দখল করে নেবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ছয় সপ্তাহ ধরে সেখানে রাশিয়ার হামলা চলছে এবং এতে মারা গেছে হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিক। যারা বেঁচে গেছে তারাও কনকনে ঠাণ্ডায় ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।  বোমায় শহরটি তছনছ করে দিয়েছে রুশরা। ফলে বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, পানি ও ঔষধের চরম সংকট তৈরি হয়েছে। হাজার হাজার মানুষ শহরটির আরও উত্তরে সরে গেছে। ইউক্রেনের  প্রেসিডেন্টও স্বীকার করেছেন যে শহরটির অল্প অংশই তাদের নিয়ন্ত্রণে আছে।