পতনের মুখে ইসরায়েলি সরকার

প্রকাশিত: ১৪:২২, ৬ এপ্রিল ২০২২

পতনের মুখে ইসরায়েলি সরকার

সাত সকালে ঘুম থেকে উঠেই ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট জানতে পারলেন তার জোট সরকার দেশটির সংসদ নেসেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে। আজ বুধবার ইসরায়েলের সংবাদমাধ্যম জেরুজালেম পোস্ট এ তথ্য জানায়। প্রতিবেদনে বলা হয়, বেনেটের ডানপন্থি ইয়ামিনা দলের সংসদ সদস্য ইদিত সিলমানের পদত্যাগের ফলে সরকার গঠনের মাত্র ১০ মাসের মাথায় তা পতনের মুখে পড়েছে। এতে আরও বলা হয়, এই মুহূর্তে নেসেটে সরকার ও বিরোধীদলের সদস্য সংখ্যা সমান সমান। জোটের আরেকজন সদস্য পদত্যাগ করলেই সরকারের পতন হবে এবং দেশটিকে আবার নির্বাচনে যেতে হবে। এর আগে কোনো দল সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় ইসরায়েলকে পর পর ৩ বার নির্বাচনে যেতে হয়েছিল। অবশেষে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুবিরোধী ডান-বাম ও মধ্যপন্থিদের জোট ১২০ সদস্যের মধ্যে ৬১ জনের সমর্থন নিয়ে সরকার গড়ে। ক্ষমতাসীন জোটের সদস্যরা ইদিত সিলমানের পদত্যাগকে 'কাণ্ডজ্ঞানহীন' বলে নিন্দা জানালেও তার এমন সিদ্ধান্তে ভীষণ খুশি বিরোধী নেতানিয়াহুর দল। নেতানিয়াহু ইতোমধ্যে সিলমানকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, তার দল সরকার গঠন করতে পারলে সিলমানকে মন্ত্রীত্ব দেওয়া হবে। ইসরায়েল ইহুদি সংস্কৃতি থেকে সরে যাচ্ছে—এমন অভিযোগে সিলমান পদত্যাগ করলেও বিশ্লেষকরা মনে করছেন তার পদত্যাগের পেছনে অন্য কারণ থাকতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বেনেট গণমাধ্যমকে বলেছেন, তিনি সিলমানের পদত্যাগের বিষয়টি জানতেন না। আজ সকালে আচমকা খবরটি জানার পর তিনি খুব বিস্মিত হয়েছেন। এ ঘটনার পর তিনি আজকের নির্ধারিত সব অনুষ্ঠান বাতিল করেছেন উল্লেখ করে সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী বেনেট পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ার লাপিদের সঙ্গে শিগগির বৈঠক করবেন। বেনেট আশা করেন, সিলম্যান তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবেন। কেননা, তিনি ক্ষমতাসীন জোটের চেয়ারম্যান।