সংক্রমণের লাগাম টানা যাচ্ছে না পশ্চিমবঙ্গে

প্রকাশিত: ১৬:২৬, ১৩ জানুয়ারি ২০২২

সংক্রমণের লাগাম টানা যাচ্ছে না পশ্চিমবঙ্গে

ওমিক্রনের প্রভাবে ভারতে হু হু করে বাড়ছে সংক্রমণ। দেশটির বেশিরভাগ রাজ্যেই সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি লক্ষ্য করা গেছে। দেশটির পশ্চিমবঙ্গে নতুন করে আরও ২২ হাজার ১৫৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। একদিন আগেই আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২১ হাজার ৯৮। বিশেষজ্ঞরা আগেই সতর্ক করেছেন যে, পশ্চিমবঙ্গে করোনার সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালসহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলা হাসপাতালগুলোতেও চিকিৎসক, নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীরা বেশি পরিমাণে আক্রান্ত হচ্ছেন। রাজ্য সরকার এ বিষয়ে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে। ইতোমধ্যে কলকাতাসহ অন্যান্য জেলায় কনটেইনমেন্ট জোন বাড়ানো হয়েছে। ওমিক্রনের কারণে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হচ্ছে। কলকাতাসহ পুরো পশ্চিমবঙ্গেই ওমিক্রনে আক্রান্তের হার বাড়ছে। এখন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে ওমিক্রনে আক্রান্তের সংখ্যা ২৯৪। ভারতে ওমিক্রনে আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে। এই তালিকায় পশ্চিমবঙ্গ ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে। কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী দুই ২৪ পরগনায় সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি। কলকাতায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ৭ হাজার ৬০ এবং ২৪ পরগনায় ৪ হাজার ৩২৬। কলকাতায় শুরু হতে চলছে তিনটির বেশি সেফ হোম। এখন পর্যন্ত প্রতিদিন সেফ হোমে পুরোপুরি কাজ শুরু হলেও সংক্রমিত ব্যক্তিদের আসার সংখ্যা খুবই কম। মৃদু উপসর্গ নিয়ে অনেকেই নিজ বাড়িতেই আইসোলেশনে থাকছেন। তাই তাদের সেফ হোমে আসার প্রয়োজন হচ্ছে না। যাদের বাড়িতে আইসোলেশনে থাকার মতো পর্যাপ্ত ঘর নেই এবং মৃদু বা একটু বেশি উপসর্গ রয়েছে অথবা বাড়িতে লোক সংখ্যা বেশি তারা সেফ হোমে আসছেন। আগের সময়ের মতো এবারও সরকারের পক্ষ থেকেই খাওয়া-দাওয়া, থাকার ব্যবস্থা, প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র দেওয়া এবং নিয়মিত চিকিৎসকের চেকআপের বন্দোবস্ত থাকছে এই সেফ হোমে।