তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

প্রকাশিত: ১৬:৩৭, ১৯ অক্টোবর ২০২১

তরুণীর ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন সিংগাইর উপজেলার জামশা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান মিঠু (৫০)। সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে নিজ বাড়ি থেকে মিঠুকে গ্রেফতার করে  সিংগাইর থানার পুলিশ। মিঠু জামশা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগেরও সভাপতি। 

এক তরুণীর দায়ের করা মামলায় আদালত থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হলে তাকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) আদালতে উপস্থিত করা করা হয় বলে জানিয়েছেন সিংগাইর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম।

জানা যায়, গত ৫ সেপ্টেম্বর দক্ষিণ জামশা গ্রামের এক তরুণী (২১) মানিকগঞ্জ আদালতের শিশু ও নারী নির্যাতন দমন অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন। (আদালতের মিস পিটিশন মামলা নম্বর- ১৬৩/২০২১।)

মামলার বিবরণে জানা গেছে, চেয়ারম্যান মিঠু ১০০ টাকার জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পের মাধ্যমে কথিত বিয়ের ঘোষণা দিয়ে ওই তরুণীকে নিয়ে বসবাস করছিলেন। এক পর্যায়ে ওই তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। তবে চেয়ারম্যান কৌশলে বাচ্চা নষ্ট করে ফেলেন। পরবর্তীতে কাবিননামা চাইলে তাদের মধ্যে সমস্যা বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে চেয়ারম্যান মারধর করেন বলে অভিযোগ করেন ওই তরুণী। 

এদিকে চেয়ারম্যান মিঠু ওই তরুণীকে বিবাহিত স্ত্রী দাবি করেছেন। তিনি বলেন, আমার দ্বিতীয় স্ত্রীর আগেও একাধিক বিয়ে হয়েছে। অন্য পুরুষদের মতোই আমাকেও ফাঁদে ফেলে বিয়ে করতে বাধ্য করে। আদালতে আইনজীবীর মাধ্যমে এফিডেভিট করে এবং উভয়পক্ষের সাক্ষীদের উপস্থিতিতে তাকে বিয়ে করেছি।

গ্রেফতার ওই চেয়ারম্যান আরও দাবি করেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমাকে ঘায়েল করতে চাইছে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী। আমার দ্বিতীয় স্ত্রীকে ব্যবহার করে ধর্ষণ মামলা করানো হয়েছে।  এবার নৌকা না পাওয়ায় আগামী ১১ নভেম্বর ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্রও জমা দিয়েছেন তিনি।