সেখানে চিনি আর চুনে তৈরি হয় ‘খেজুরের গুড়’

প্রকাশিত: ২০:১৩, ২৩ ডিসেম্বর ২০২১

সেখানে চিনি আর চুনে তৈরি হয় ‘খেজুরের গুড়’

শীতকালে দেশব্যাপী বেশ চাহিদা থাকে খেজুরের গুড়ের। এ সময় দামটাও বেশি থাকে। অধিক মুনাফা লাভের আসায় তাই ভেজাল খেজুরের গুড় তৈরিতে তৎপর হয়ে ওঠে অসাধু চক্র। মানিকগঞ্জের হরিরামপুরের ঝিটকা এলাকায় এমনই এক চক্রের সন্ধান পাওয়া গেছে। তারা চিনি ও চুনের সমন্বয়ে তৈরি করে ভেজাল খেজুরের গুড়। বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) সকালে অভিযান চালিয়ে এর সঙ্গে জড়িত তিন জনকে ১৮ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর, মানিকগঞ্জ অফিস।

গুড় তৈরি হচ্ছে

গুড় তৈরি হচ্ছেজেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফের নির্দেশে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে হরিরামপুর উপজেলার ঝিটকা, মজমপাড়া, হাপানিয়া ও গোপিনাথপুর এলাকায় ভেজালবিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর মানিকগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান রুমেল। আসাদুজ্জামান রুমেল জানান, রাজশাহী থেকে আসা কিছু মৌসুমি গুড় ব্যবসায়ী এক মণ রসের সঙ্গে এক মণ চিনি ও চুন দিয়ে দুই মণ ভেজাল খেজুরের গুড় তৈরি করছিলেন। এই অভিযোগসহ অপরিচ্ছন্ন ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে গুড় তৈরির দায়ে হরিরামপুরের ঠাকুর পাড়া সেন্টু মিয়াকে ৮ হাজার টাকা, হাপানিয়া গ্রামের রমজান আলীকে ৪ হাজার টাকা ও মজনু মিয়াকে ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ প্রক্রিয়ায় গুড় তৈরি না করতে সতর্ক করা হয়। ভোক্তা অধিদফতরের ভেজালবিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।