বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

৭ দিনে ১৪ লাশ : ৫ হত্যা, ৩ নবজাতকসহ ৪ জনের অপচিকিৎসায় মৃত্যু

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : নারায়ণগঞ্জ জেলাজুড়ে একের পর এক মৃত্যুর ফোয়াড়া বইছেই। হত্যা, গুমের সাথে সাথে সম্প্রতি বেড়েছে অপচিকিৎসায় মৃত্যুর সংখ্যাও। গত এক সপ্তাহে তিন নবজাতকসহ ৪ জনের অপচিকিৎসায় মৃত্যু হয়েছে। 


অন্যদিকে গণমাধ্যমে পাওয়া তথ্যানুযায়ী গত এক সপ্তাহে জেলাজুড়ে হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে ৫টি, খাল থেকে আজ্ঞাত লাশ উদ্ধার ১ টি, সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ২ জনের এবং বন্দরে পানিতে ডুবে ২ শিশু মারা গেছে। অর্থাৎ ১৩ অক্টোবর থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জে লাশের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৪টি। 


গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, গতকাল রোববার ২০ অক্টোবর ফতুল্লায় জেনারেল হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনায় শিশুর বাবা মাসুম মিয়া বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। শিশুটির নানী জানান, গত বুধবার বিকেল ৪টায় ফতুল্লা জেনারেল হাসপাতালে তার মেয়ে পিংকিকে ভর্তি করানো হয়। 


একই দিন বিকেল সাড়ে ৫টায় অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ছেলে সন্তান জন্ম নেয়। এ ঘটনার পর থেকে নবজাতক শিশুর অবস্থার অবনতি হতে থাকে। শনিবার রাতে অবস্থার অবনতি ঘটলে ক্লিনিকটির চিকিৎসকেরা জোর করে অন্যত্র চিকিৎসা নিতে রোগীকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু রাত গভীর হওয়ায় সম্ভব হয়নি। রবিবার ভোরে ঢাকা শিশু হাসপাতালে নেয়ার পথে নবজাতকের মৃত্যু হয়।


২০ অক্টোবর আড়াইহাজারে কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের পূর্বকান্দি এলাকার মটর সাইকেলের ধাক্কায় রেজিয়া খাতুন (৭০) নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়।নিহত বৃদ্ধার ছেলে বাচ্চু মিয়া জানান, তার মা বাড়ি থেকে বের হয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় বেপরোয়া গতির একটি মটর সাইকেল তাকে ধাক্কা দেয়। 
এতে তিনি মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত প্রাপ্ত হন। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কত্যর্বরত চিকিৎসক তাকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয়রা বাইকটি আটক করেছে।


একই দিন সকালে বন্দরে পুরান বন্দর সমরক্ষেত্র চৌধুরী বাড়ি এলাকায় রনি (৩০) নামে এক ব্যবসায়ীকে হাত ও পায়ের রগ কেটে এবং কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নিহত রনির বাবা সালাউদ্দিন জানান, রনি একটি মশার কয়েলের ডিলার ছিলেন। শনিবার রাতে মদনপুর থেকে আসার পথে কয়েকজন যুবক তার ওপর হামলা করে।


এক পর্যায়ে তারা রনির হাত ও পায়ের রগ কেটে দেয়। পরে তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে। রোববার সকালে তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় সে।


অন্যদিকে রোববার দুপুরে সোনারগাঁয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশের এক কনস্টেবল নিহত হয়। মোটরসাইকেলযোগে রূপগঞ্জের গাউছিয়া যাওয়ার পথে তিনি ট্রাক চাপায় নিহত হন।নিহত আরিফ মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া উপজেলার কালিপুরা গ্রামের মৃত সিরাজ বেপারীর ছেলে।


 
কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি মোজাফফর আলী জানান, আরিফ হোসেন নামের এক পুলিশ কনস্টেবল (ঢাকা মেট্টো ল- ১৩-৮৫৯৮) মোটরসাইকেলযোগে ব্যক্তিগত কাজে গাউছিয়া যাচ্ছিলেন। ১৮ অক্টোবর সকালে বন্দর উপজেলার বেজেরগাঁও এলাকায় পানিতে ডুবে মিরাজ (৭) ও অয়ন (৫) নামে দুই শিশুর মৃত্যু হয়।


 
১৭ অক্টোবর সোনারগাঁয়ের পুরাতন সেবা জেনারেল হাসপাতাল নামে একটি ক্লিনিকে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগী মৃত্যুর অভিযোগ উঠে। ওই রোগীর উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের দমদমা গ্রামের রুহুল আমিনের স্ত্রী মালেকা আক্তার। 

 

তার পিত্তথলিতে পাথর অপসারণের জন্য বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র সার্জারি কনসাল্ট্যান্ট রিয়াজ মোর্শেদের তত্ত্বাবধানে অপারেশন হয়। অপারেশনের পর রোগীর অবস্থার অবনতি হলে ডা. ইকরামের মাধ্যমে সিদ্ধিরগঞ্জ প্রি অ্যাকটিভ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।


 
ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার রোগীকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় সেবা জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. দেবব্রত দাস জানান অপারেশনের পর অজ্ঞান করার জন্য এন্সথ্যাসিয়ার মাত্রা কম বা বেশি হওয়ার কারণে রোগীর অবস্থা এমন হয়েছে।


 
১৬ অক্টোবর বুধবার রাতে রূপগঞ্জের ভুলতা জেনারেল হাসপাতালে ফাতেমা নামে এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফাতেমা আউখাবো এলাকার রাকিবের স্ত্রী। নিহত পরিবারের দাবি সিজার ডেলিভারি করার সময় ডা.নাসরিন ভুলক্রমে তার রগ কেটে ফেললে ফাতেমার মৃত্যু হয়েছে। 
একই দিন সকালে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মী জিয়াসমিনের অপচিকিৎসায় শাহী মসজিদ এলাকার কামরুল মিয়ার নবজাতক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। নাম বিহীন একটি ক্লিনিকে এই ঘটনা ঘটনা ঘটে।


১৪ অক্টোবর আড়াইহাজারে বিশ্বনন্দী ইউনিয়নের কড়ইতলা পাঁচানীপাড়া এলাকায় পারিবারিক কলহের জের ধরে গৃহবধূ কুলসুমকে (১৯) বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠে। এ ঘটনার পর থেকে স্বামী শাহ আলমের পলাতক। নিহতের পরিবারের দাবি স্বামীসহ তার পরিবারের অন্য সদস্যরা তাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে।  


একই দিন বিকালে ফতুল্লার কুতুবপুরের নন্দলালপুর এলাকার বাড়ির চারতলার ছাদ থেকে ফেলে আড়াই বছরের শিশুপুত্র আশফাক জামান জাহিনকে হত্যা করেছে শিশুটির মা রোকসানা। মানসিক ভারসাম্যহীন রোকসানা। শিশুটিকে আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক জাহিনকে মৃত ঘোষণা করেন। 


প্রথমে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে পরিবার। পরে রাত সাড়ে ১০টায় পুলিশ স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে মানসিক ভারসাম্যহীন রোকসানা আক্তারকে গ্রেফতার করেছে।


 ১৪ অক্টোবর সোনারগাঁ উপজেলায় প্রতিপক্ষের ইটের আঘাতে দ্বীন ইসলাম (২৬) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে ৪ অক্টোবর পিরোজপুর ইউনিয়নের নয়াগাঁও গ্রামের দ্বীন ইসলামের সঙ্গে ওই গ্রামের আহসান উল্লাহর তর্ক বিতর্ক হয়। 


এক পর্যায়ে আহসানউল্লাহসহ আরও কয়েকজন ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকালে তার মৃত্যু হয়।


১৩ অক্টোবর সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নে জাহাজ তৈরি কারখানায় আনন্দ শিপইয়ার্ডে রফিকুল ইসলাম নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। কারখানায় কর্মরত অবস্থায় তার উপর ক্রেন থেকে লোহার পাইপ পড়ে তার মৃত্যু হয়েছে।


সর্বশেষ ২০ অক্টেবর (রোববার) রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি এলাকার একটি খাল থেকে অজ্ঞাত (৪৫) একটি লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক জানান, লোক মুখে শুনে অজ্ঞাত লাশটি উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর