রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২ ১৪২৬   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

৩ নং ওয়ার্ডে ব্যাস্ততম সড়ক দখল করে গরুর হাট, চরম জনভোগান্তি

প্রকাশিত: ৮ আগস্ট ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৩নং ওয়ার্ডে জনবহুল ব্যস্ততম সড়ক দখল করে ঈদুল আযহা উপলক্ষে গড়ে উঠেছে কোরবানির অস্থায়ী গরুর হাট। স্থানীয় হাজার হাজার মানুষ রয়েছে চরম জনদুর্ভোগে। 


সাধারন জনগণের ভোটে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েও জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের তীব্র সমালোচনা করছেন স্থানীয়রা।


জানা গেছে, নাসিক ৩ নং ওয়ার্ডের মাদানীনগর এলাকায় বালুর মাঠ উল্লেখ করে অস্থায়ী গরুর হাট ইজারা দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন। 
প্রকৃতপক্ষে ইজারায় উল্লেখিত এলাকায় কোন বালুর মাঠ নেই। শাজাহান সাজু নামে এক লোক হাটের ইজাদার হলেও এর আসল নিয়ন্ত্রক ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল।


মাঠ না থাকায় মাদানী নগর ক্যানেলপা চৌরাস্তা থেকে পশ্চিম দিকে মৌচাক পর্যন্ত সড়ক সম্পূর্ণ বন্ধ করে বসানো হয়েছে হাট। 
চৌরাস্তা থেকে সানারপাড় যেতে প্রধান সড়কের নিমাইকাশারী পর্যন্ত এবং চৌরাস্তা থেকে পূর্ব দিকে (দুই লেন) বটতলা সড়কের ১ লেন দখল করে এ হাট বসানো হয়েছে। 


এতে এই তিনটি সড়ক দিয়ে কোন যানবাহন চলাচল করতে পারছেনা। পায়ে হেটে যেতেও চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে পথচারীদের।


সড়কের উপর গরুর হাট বসানো সরকারি ভাবে নিষেধ করা হলেও তা আমলে নেয়নি কাউন্সিলর বাদল। এতে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে জনমনে।


কবির নামে মাদানীনগর চৌরাস্তার এক বাসিন্ধা ক্ষোভের সাথে বলেন, মাদানীনগর চৌরাস্তা থেকে নয়াআটি মুক্তিনগর বটতলা ক্যানেলপাড় হয়ে চিটাগাং রোডের এই সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা কিন্তু কাউন্সিলর বাদল রাস্তাটি পুরোপুরি দখল করে গরুর হাট বসিয়েছে। ফলে এ ওয়ার্ডের পশ্চিম ও উত্তর অংশের লোকজনের যাতায়াতের জন্য বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছে।


নিমাইকাশারী এলাকার বাসিন্ধা আব্দুল জলিল জানান, ভাই সরকার রাস্তা করে জনগনের চলাচলের জন্য কিন্তু কাউন্সিলর হয়েও বাদল নিজের পকেট ভারী করার জন্য রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে হাট বসিয়েছে। জনগনকে ভোগান্তির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানাই।


বাগমারা এলাকার সামছু নামে একব্যক্তি জানায়, বাদল নুর হোসেনের ভাতিজা হওয়ায় ক্ষমতার জোরে জনগনকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে মাদানীনগর থেকে মৌচাক বাস স্ট্যান্ডে রোডের রাস্তাটি পুরোপুরি বন্ধ করে দিয়েছে তাই আমাদের চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। এছাড়া নিমাইকাশীর রাস্তারও একপাশ দখল করে রখেছে। প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান ধরে চলছে।


সড়ক দখল করে হাট বসানো বিষয়ে কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করলেও সে ফোনটি রিসিভ করেন নাই।


এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী এএফএম এহতেশামুল হক বলেন, কাউন্সিলররা যেভাবে আমাদেরকে অবগত করেছে আমরা সে ভাবেই হাটের ইজারা দিয়েছি। 


কেউ যদি রাস্তা দখল করে হাট বসিয়ে জনগনের ভোগান্তি সৃষ্টি করে তার বিরুদ্ধে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব। আমি এখনই ওই ওয়ার্ডের কাউন্সিলরের সাথে কথা বলছি এবং সিটি কর্পোরেশনের লোক পাঠাচ্ছি দেখার জন্য।  
 

এই বিভাগের আরো খবর