বুধবার   ১৬ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ৩০ ১৪২৬   ১৬ সফর ১৪৪১

হঠাৎ বাড়লো পেঁয়াজ ও বয়লার মুরগির দাম

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : এক সপ্তাহের ব্যবধানে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন বাজারে বেড়েছে পেয়াজ ও বয়লার মুরগির দাম। তবে বাড়েনি কোন প্রকার সবজির দাম।


রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) সরেজমিনে নগরির দিগুবাবুর বাজারে গিয়ে দেখা যায়, ভালো মানের দেশি পেঁয়াজ ৭০ টাকা, কিং নামের এক ধরণের পেঁয়াজ ৬৫ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা। অথচ গত বৃহস্পতিবারেও  দেশি পেঁয়াজ ৫০-৫৫ টাকা ও ভারতীয় পেয়াজ ৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।


আবুল হাসেম নামের এক পেঁয়াজের ব্যবসায়ী বলেন, আমাদের বাংলাদেশে প্রতি বছর যে পরিমানে পেঁয়াজের প্রয়োজন হয়, সে পরিমানে আমরা পেঁয়াজ উৎপাদন করতে পারিনা। ফলে আমরা সেই ঘাটতি মেটাতে ভারতের কাছ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করি।

 

আর এখন ভারত পেঁয়াজের রপ্তানিমূল্য বৃদ্ধি করায় আমাদের (পাইকারি ব্যবসায়ী) বেশি দামে পেঁয়াজ আমদানি করে বিক্রি করতে হচ্ছে।


অন্যদিকে বাজারের খুচরা বিক্রেতারা জানান, দামটা মূলত বেড়েছে পাইকারি বাজারে। তাই খুচরা বাজারেও এর প্রভাব পড়ছে। পাইকারি বাজারে দর কমলে আমরাও কম দামেই বিক্রি করবো।


পেঁয়াজের দাম বাড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে রশিদ মিয়া নামে একজন বলেন, পেঁয়াজের দাম তো দিনদিন বাড়ছেই। কমছে না কেন? যদি এভাবেই জিনিসের দাম বাড়তে থাকে তাহলে আমরা কি খাবো?

 

আমরা সরকারকে বলতে চাই, অন্যদেশ থেকে পণ্য আমদানির কথা বাদ দিয়; নিজের দেশে উৎপাদন বৃদ্ধির চেষ্টা করুন।অন্যদিকে বাজারে আদা ১৬০ টাকা কেজি, রসুন ১৬০ টাকা কেজি ও আলু ৯০ টাকা পাল্লা বিক্রি হচ্ছে।


এছাড়া, বাজারে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজি প্রতি ২০ থেকে ৩০ টাকা বেড়েছে বয়লার মুরগির দাম। বিক্রি হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা কেজি। অথচ গত সপ্তাহে এই বয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে কেজিপ্রতি ১১০-১২০ টাকা দরে। আনিস মিয়া নামে এক মুরগি বিক্রেতারা বলেন, আসলে কোরবানী ঈদের পর বাজারে মুরগির চাহিদা কম ছিলো তখন   খামারিরা লোকসান গুনছে কিছু টাকা।

 

তাই এখন চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় তাঁরা (খামারিরা) দাম বাড়িয়ে দিয়েছে সেই লোকসান মিটিয়ে নেওয়ার জন্য। তবে দু‘এক সপ্তাহের মধ্যে দাম কমে যাওয়ার আশ্বাসও দেন তাঁরা।


অন্যদিকে বাজারে গরুর মাংস ৫৫০ টাকা কেজি ও খাসির মাংস ৭৫০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। সপ্তাহের ব্যবধানে বাজারে অনেক পণ্যের দাম বাড়লেও তেমন ভাবে বাড়েনি বিভিন্ন সবজির দাম। দেখাযায় গত সপ্তাহের চেয়ে কম কিংবা আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে অধিকাংশ সবজি।


শিম ১২০-১২৫ টাকা কেজি, টমেটো ৭০-৮০ টাকা কেজি, বেগুন ৪০-৫০ টাকা কেজি, বরবটি ৬০-৬৫ টাকা কেজি, কাঁচামরিচ ৫০-৬০ টাকা কেজি, উস্তা ৬০-৭০ টাকা কেজি, করলা ৫০ টাকা কেজি, কাকরুল ৪০-৫০ টাকা কেজি ও ঢেঁড়স ৩০-৪০ থেকে ৪০ টাকা  কেজি, ফুলকপি ৩০-৪০ টাকা কেজি, শসা ২৫-৩০ টাকা কেজি, পুঁইশাক ২০ টাকা, মুলা ৪০ টাকা ও পেঁপে ১৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।
 

এই বিভাগের আরো খবর