সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

শোক দিবস উপলক্ষে ‘পেশাজীবি সমন্বয় পরিষদ’ এর উদ্যোগে আলোচনা সভা

প্রকাশিত: ২১ আগস্ট ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : মহান স্বাধীনতার স্থপতি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ‘পেশাজীবি সমন্বয় পরিষদ’ এর উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

 

মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে সংগঠনের সভাপতি বিচারপতি এ এফ এম মেসবাহউদ্দিন এর সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক এড. মোতাহার হোসেন সাজু'র পরিচালনায় এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহান জাতীয় সংসদ এর স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এম.পি.।

 

আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন এড. মাহবুবে আলম, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস এম.পি, ইকবাল সোবহান চৌধুরী,  অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, এ.এম. আমিন উদ্দিন, সাংবাদিক  মনজুরুল আহসান বুলবুল, স্বাচীপ এর সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান, সাংবাদিক ওমর ফারুক, এড. মোতাহার হোসেন সাজু, শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, সাবেক এম.পি এড. সোহরাব উদ্দিন,  এড.আনিসুর রহমান দিপু, এড. আব্দুল আলীম মিয়া জুয়েল,  সাংবাদিক ইউসুফ বাবলু,  এড. এস. এম মুনির,  এড. ড. বশির আহমেদ,  এড. রবিউল আলম বুদু, এড. আজাহার উল্লাহ ভুইয়া, এড. জান্নাতুল রূপা প্রমুখ।

 

প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর অসীম সাহসিকতা, অসাম্প্রদায়িক চেতনা, বাংলার মানুষের প্রতি সীমাহীন ভালোবাসার কথা, প্রায় ১৪ বৎসরের কারা অভ্যন্তরের অনেক স্মৃতি যাহা বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা সহ বিভিন্ন দেশী বিদেশী বইয়ে অনুরণিত হয়েছে তাহা তুলে ধরেন। শেখ ফজলে নুর তাপস এম.পি' তাঁর বক্তব্যে ৭৫’র ১৫ ই আগষ্টের ভয়াবহ স্মৃতির কথা, কষ্টের কথা, ৭৫ পরবর্তী সময়ে ভালো স্কুলে ভর্তির সুযোগ না দেয়া, বাসা ভাড়া না দেয়াসহ অনেক স্মৃতি রোমন্থন করেন যখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র পৌনে ছয় বছর। এতে আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। ৭৫’এ স্বপরিবারে বঙ্গবন্ধুসহ তাঁর পিতা, অন্তঃসত্তা মাকে হত্যার পর জিয়াউর রহমান খলনায়কের ভূমিকায় থেকে ঘাতকদের বিদেশে পাড়ি জমানো, চাকুরীর ব্যবস্থাসহ যে ন্যাক্কারজনক ভুমিকায় অবতীর্ণ হন তার কঠোর সমালোচনা করেন এবং আমৃত্যু তাঁর বিচার চাইবেন বলে জানান।
 

এই বিভাগের আরো খবর