সোমবার   ২২ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ৭ ১৪২৬   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

শামীম ওসমানকে সমর্থন দিতে বলায় পদত্যাগ করেছিলাম : এসএম আকরাম

প্রকাশিত: ৯ মার্চ ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : নাগরিক ঐক্যের উপদেষ্টা ও সাবেক সাংসদ এসএম আকরাম বলেছেন,  আওয়ামী লীগের বিপর্যস্ত অবস্থায় আমাকে জেলার দায়িত্ব দেয়া হয়েছিলো। ক্ষমতার তুঙ্গে থাকা অবস্থায় আমি আওয়ামী লীগ ছেড়েছি। ২০১১ সালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শামীম ওসমানকে সমর্থন দিতে বললে তা মেনে নিতে না পেরে নির্বাচনের পরদিন আমি দল থেকে পদত্যাগ করি। বিরোধীদলে থেকেও জনগণের সেবা করা যায়। 

শনিবার (৯ মার্চ) সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জের থানা পুকুর পাড়ের লয়েল ট্যাংক রোডে নাগরিক ঐক্যের এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন

গত ৩০ জানুয়ারি সুষ্ঠু নির্বাচন হলে নির্বাচনে জিততেন বলে দাবি করেন তিনি।  আকরাম বলেন, নির্বাচন তো হয়ে গেছে ২৯ জানুয়ারি রাতে। ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন হলে জিততাম। আওয়ামীলীগ একটি বড় দল। সংখ্যাতত্ত্ববিদদের মতে, নির্বাচন যদি সুষ্ঠুও করা হতো তবে আওয়ামী লীগ অন্তত ৬২টি আসন পেত। কিন্তু তিনশো আসনে এখন আওয়ামীলীগ তিনশো দুইটা আসন পায়। দেশের মানুষ গণতন্ত্রের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে। আওয়ামীলীগের লোকজন এমপি হওয়ার জন্য নিজেদের বিবেককে বিক্রি করে দিয়েছে।
 

২০০৩ সালে নারায়ণগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে এসএম আকরাম বলেন, আমরা (আওয়ামী লীগ) তখন বিরোধী দল। তখন আজকের নারায়ণগঞ্জের বড় বড় আওয়ামী লীগাররাও পালিয়ে গিয়েছিলো। তখনকার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মতিন চৌধুরীকে সুষ্ঠু নির্বাচনের অনুরোধ করেছিলাম। তিনি সেই কথা রেখেছিলেন। ওই সুষ্ঠু নির্বাচনে বর্তমান নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী পৌর মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলো। জনগণের ভোটের তোয়াক্কা না করে জোর করে ক্ষমতায় থাকার মধ্যে কোন বাহাদুরি নাই।  

নারাায়ণগঞ্জ জেলা নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক ইকবাল কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সমন্বয়কারী শহীদুল্লাহ কায়সার, কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য মমিনুল হক, অ্যাডভোকেট ফজলুল হক, জেলা মহিলা দলের আহবায়ক রাশিদা জামাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় ইকবাল কবিরকে আহবায়ক ও কবির হোসেনকে সদস্য সচিব করে নাগরিক ঐক্য নারায়ণগঞ্জ জেলার ২৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়। 
 

এই বিভাগের আরো খবর