শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২১ ১৪২৬   ১০ শা'বান ১৪৪১

রূপগঞ্জে আখের বাম্পার ফলন 

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

রূপগঞ্জ (যুগের চিন্তা ২৪) : ‘ইক্ষু রস অতি মিষ্ট’ এ মিষ্ট রসের মিষ্টি হাসি এখন কৃষকের মুখে। এবার রূপগঞ্জে আখের বাম্পার ফলন হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসির ঝিলিক। চলতি বছরে উপজেলায় প্রায় এক হাজার হেক্টর জমিতে আখ চাষ করা হয়েছে। আখের বাম্পার ফলন হওয়ায় অনেকেই এখন আখ চাষের দিকে ঝুঁকছে। প্রতি হেক্টর থেকে কৃষকরা আট থেকে দশ লাখ টাকার আখ বিক্রি করছে। সে হিসেবে এবার ১০ কোটি টাকার আখ বিক্রি হবে বলে উপজেলা কৃষি বিভাগ জানিয়েছে। 


রূপগঞ্জ কৃষি আফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি বছর রূপগঞ্জে ১ হাজার হেক্টর (৭ শত ৫০ বিঘা) জমিতে আখ চাষ করা হয়েছে।এর মধ্যে লতারি জবা আখ ৭০ হেক্টর, মিছড়ি দানা আখ ১০ হেক্টর, বাশ টেনাই আখ ১০ হেক্টর , সূর্যমুখী আখ ৫ হেক্টর আখ, ঈশ্বরদী ১৬ আখ ৫ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়েছে। 


এলাকার আখ চাষিরা জানায়, গত ২ বছরে রূপগঞ্জের আনাবাদি জমিতে আখ চাষ শুরু করেছেন তারা। ধান চাষে অমানুসিক পরিশ্রম, মূলধন বেশি লাগার কারণে অনেক কৃষকই ধান চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে শুরু করেছেন। একই সঙ্গে তারা ধানের বিকল্প ফসল চাষের চেষ্টা চালাচ্ছেন। যেসব কৃষক ধান চাষ করতেন তাদের অনেকেই এখন আখসহ বিভিন্ন ফসলের চাষ করে লাভবান হচ্ছেন। 


এ ছাড়া কৃষকরা আখক্ষেতে সাথী ফসল হিসেবে আলু, গাজর ও শিম চাষ করে লাভবান হচ্ছেন। আখক্ষেতে সাথী ফসল হিসেবে বাঁধাকপি, ফুলকপিসহ আরও কয়েকটি কৃষি ফসল চাষে রূপগঞ্জ কৃষি বিভাগ প্রযুক্তি সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। রূপগঞ্জে মাটি ও আবহাওয়া আখ চাষের উপযোগী এবং জলাবদ্ধতা না থাকায় চলতি মৌসুমে আখের বাম্পার ফলন হয়েছে। প্রতি হেক্টর আখ চাষে কৃষকের খরচ হয়েছে ২ লাখ টাকা। আর প্রতি হেক্টরে উৎপাদিত আখ ১০ থেকে ১১ লাখ টাকায় বিক্রি হচ্ছে বলে জানা গেছে।


মুড়াপাড়া ইউনিয়নের আখ চাষী মনির মিয়া জানান, তিনি প্রায় ১০ শতক জমিতে মিছড়ি দানা জাতের আখ চাষ করেছেন। তার মোট ব্যয় হয়েছে ৫০ হাজার টাকা। বিক্রয়মূল্য পাচ্ছেন ৮০ হাজার টাকা। আগে এসব ভূমিতে ধান চাষ করে তিনি খরচ বাদ দিয়ে ৫ হাজার টাকাও লাভ করতে পারতেন না। ভোলাব এলাকার আখ চাষী রহমাতুল্লাহ জানান, তিনি ২ লাখ টাকা খরচ করে আখ চাষ করেছেন। প্রায় সাড়ে ৩ লাখ টাকা বিক্রি করবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করছেন তিনি।


রূপগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মুরাদুল হাসান জানান, বেলে, দো-আঁশ থেকে শুরু করে এঁটেল পর্যন্ত সব মাটিতেই আখ চাষ করা সম্ভব হলেও পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থাযুক্ত এঁটেল-দোআঁশ মাটি আখ চাষের জন্য সর্বোত্তম। তিনি বলেন, রূপগঞ্জে শীতলক্ষ্যার চরের জমিতে আখ চাষের অনুকূল পরিবেশ বিদ্যমান। 

এই বিভাগের আরো খবর