শনিবার   ২৪ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৮ ১৪২৬   ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

রাজনৈতিক ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতাদের সাথে সুজনের গোলটেবিল বৈঠক

প্রকাশিত: ৭ আগস্ট ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : সুজন নারায়ণগঞ্জ জেলা এবং মহানগরের আয়োজনে বাংলাদেশের রাজনৈতীক সংষ্কার ও নাগরিকের ভাবনা নিয়ে শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

বুধবার (৭ আগস্ট) নগরের আলী আহম্মদ চুনকা পাঠাগারের স্টুডিও থিয়েটার ভবনে বিকেল ৫ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত চলে এই গোলটেবিল বৈঠক। 


এ সময় নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি এডভোকেট আবুল কালাম বলেন, আমরা (বিএনপি) এক সময় সরকার দলে ছিলাম এখন নেই হয়তো আগামী দিনে আবার অবস্থার পরিবর্তন ঘটবে। কিন্তু জনসমর্থন আদায়ের জন্য তো আমাদের জনগণের কাছে বক্তব্য পরিবেশন করার একটা পরিবেশ চাই। 


সেই অধিকারটা যদি আমরা নাই পাই তাহলে নাগরিক অধিকার কেমন করে পেলাম? আমরা আজকে কোন সাংগঠনিক কোন কাজ করতে পারিনা। সভা করতে গেলে প্রশাসন থেকে আমাদের অনুমতি নিয়ে হয়।

 

এটা কি ধরনের পদ্ধতি ? সাংবিধানিক না অ-গণতান্ত্রীক ? বর্তমান সরকারকে অনুধাবন করতে হবে যে, জনগণের জন্যই রাষ্ট্র এবং জনগণের জন্যই সরকার। এভাবে বিবেচনা না করলে এক সময় আমরা জাতি হিসেবে বিলুপ্ত হয়ে যাবো। 


নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মাসুম বলেন, আমি বলতে চাই আমাদের এই যে, ৪৭ বছরের ব্যর্থতা এই ব্যর্থতাকে আমরা পাথরের মতো আমরা বহন করে যাচ্ছি। এই ব্যর্থতার শেষ নেই।

 

যারা সরকার এসেছে তাঁরা এ ব্যর্থতাকে বাড়িয়ে দিয়েছে। এটা থেকে মুক্তির উপায়টা কি? এটা থেকে মুক্তির উপায় হচ্ছে গণতন্ত্রের পুনরুদ্ধার। এই গণতন্ত্রকে যদি আপনি উদ্ধার করতে না পারেন তাহলে কোন প্রস্তাবই কাজে লাগবে না। 


সিপিবির নারায়ণগঞ্জ জেলা সভাপতি হাফিজুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনে কারা অংশ গ্রহন করে? যাদের টাকা আছে। পেশি শক্তি আছে। গডফাদার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে তাঁরা নির্বাচনে প্রার্থী হয়।

 

প্রকৃত অর্থে জনগণের প্রতিনিধি হওয়ার সুযোগই নেই। আমাদের দেশে শতকরা ৯০ ভাগ মানুষের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব যারাই করবে তাঁদের নির্বাচনে অংশ গ্রহন করার সুযোগ নেই।


 নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সহ- সভাপতি রোকন উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, আমাদের দেশে এবং আমাদের মধ্যে এই ভাবনাটা নিয়ে আসা দরকর যে, আমরা দায়িত্ব প্রাপ্ত। এখন ৩০ তারিখের নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন উঠে।

 

বাংলাদেশে যতগুলো নির্বাচন হয়েছে অনেকগুলো নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন আছে। এরশাদের সময় ৯০ ভাগ ভোট কাস্ট হয়েছিলো যেখানে ভোটের কাছেই মানুষ যায় নি। 


সুজনের কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মনয়কারী দিলিপ কুমার সরকারের সভাপতিত্বে ও নারায়ণগঞ্জ জেলা সুজনের সাধারণ সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েলের সঞ্চালনায়  গোলটেবিল বৈঠকে আরো বক্তব্য রাখেন, সুজনের নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি আব্দুল রহমান, সমমনার সভাপতি দুলাল সাহা, খেলাঘর সংগঠনের সভাপতি রথিন চক্রবর্তী, নারায়ণগঞ্জ মহিলা পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রীনা আহম্মেদ প্রমুখ।  
 

এই বিভাগের আরো খবর