শুক্রবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৫ ১৪২৬   ২০ মুহররম ১৪৪১

ময়লার স্তূপের দুর্গন্ধ, বিপাকে শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী

প্রকাশিত: ১৫ জুন ২০১৯  

বন্দর (যুগের চিন্তা ২৪) : বন্দরে স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বি এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সংলগ্ন নাসিকের ময়লার স্তূপ। ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধ প্রতিনিয়ত সহ্য করতে হচ্ছে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীর। একাধিক বার স্থানীয় নাসিক ২২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিল সুলতান আহম্মেদের কাছে অভিযোগ করেও কোন ফল পায়নি। রহস্যজনক কারণে কোন ব্যবস্থা  নেননি বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। দ্রুত ময়লার স্তূপ অপসারণ করা না হলে যেকোন সময় আন্দলনে নামতে পারেন বলে জানিয়েছেনশিক্ষার্থীরা। 

 

শনিবার (১৫ জুন) সকালে সরজমিনে ঘুরে দেখা যায় বন্দরের বি এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, পাশে বন্দর পুলিশ ফাঁড়ি ও বি এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রাথমিক শাখা, এবং বন্দর গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে যাওয়ার রাস্তাটিতে ময়লার স্তূপ। স্কুলে আসা শিক্ষার্থীরা ও পথচারীরা নাকে কাপর দিয়ে রাস্তা দিয়ে হাঁটছেন।

 

এ ব্যপারে শিক্ষার্থীরা বলেন, ময়লা ফেলে আমাদের স্কুলের প্রধান রাস্তাটির সৌন্দর্য নষ্ট করে রেখেছে। ময়লার দুর্গন্ধে নিশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। সারা দিন স্কুলে থাকার পর বাসায় গিয়ে ঠিকমত খেতেও পারিনা ময়লার কথা মনে পরে যায়। কবে যে আমরা দুরবস্থা থেকে মুক্তি পাবো জানিনা। আমাদের স্কুল শিক্ষকদের কাছে একাধিক বার অভিযোগ করেছি। কিন্তু  কোনো কাজ হয়নি। 

 

আশেপাশের একাধিক দোকান মালিকরা জানান, আগের চেয়ে বর্তমানে বেশি হচ্ছে। কারণ পাশেই মীম কমিনিউটি সেন্টার। কমিনিউটি সেন্টারের গরু, খাশি, মুরগি কাটা ময়লা এবং পরিত্যক্ত খাবার এখন এখানে ফেলা হয়। যা থেকে অনেক দুর্গন্ধ বের হয়। 

 

বন্দর বিএম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো.আজিজুর রহমান বলেন, আমার স্কুলের ২হাজার ৯০জন শিক্ষার্থী প্রতিদিন এই ময়লা আবর্জনার দুর্গন্ধ সহ্য করে স্কুলে আসছে। আমি কাউন্সিলর সুলতান আহম্মেদকে একাধিক বার বলেছি এটার একটা সমাধান করতে। আমাদের শিক্ষার্থীদের কষ্ট হয়। কিন্তু তিনি কোন ব্যবস্থাই নিচ্ছে না। 

 

বি এম ইউনিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের নির্বাচিত অভিভাবক প্রতিনিধি ও বন্দর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন সিদ্দিক বলেন, আমি নবনির্বাচিত আভিভাবক প্রতিনিধি হয়েছি। আভিভাবকরা আমাকে ভোট দিয়ে প্রতিনিধি বানিয়েছে যাতে তাদের সন্তানদের সমস্যাগুলি আমি দেখতে পারি। স্কুল সংলগ্ন ময়লার স্তূপের কারণে শিক্ষার্থীদের সমস্যা হচ্ছে। এ বিষয় নিয়ে আমি স্থানীয় কাউন্সিলর সুলতান আহম্মেদের সাথে কথা বলবো। কাজ না হলে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভীর সাথে কথা বলবো। এর পরওে এ সমস্যার সমাধান না হলে আন্দোলন করবো। তবু শিক্ষার্থীদের এই দুর্ভোগ থেকে মুক্ত করবো।

 

নাসিক ২২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুলতান আহম্মেদের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, এখানে এত ময়লা কোথা থেকে আসে বুঝিনা । ময়লা সরাতে না সরাতেই আবার ময়লা ভরে যায়। দেখি কী করা যায়।  

এই বিভাগের আরো খবর