রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২২ ১৪২৬   ১১ শা'বান ১৪৪১

মিউচুয়েল ক্লাব নিয়ে আমার বহুদিনের স্বপ্ন ছিল : মেয়র আইভী

প্রকাশিত: ১৭ মার্চ ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা.সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, আমার বহুদিনের স্বপ্ন ছিলো; এই মিউচুয়েল ক্লাব নিয়ে। আমরা যখন থেকে জেনেছি, বোঝার বয়স যখন থেকে হয়েছে, তখন আমি বাবার কাছ থেকে জেনেছি, নাজমা রহমান, আনসার আলী, মফিজ কাকা থেকে এমনকি এখনও যারা গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ আছেন তারা আওয়ামী লীগ অফিসে বক্তব্যে বলতেন যে, এই নারায়ণগঞ্জ থেকেই আওয়ামী লীগের জন্ম এই মিউচুয়েল ক্লাব থেকে আওয়ামীলীগের জন্ম। তখন থেকেই আমার ভেতরে উৎসাহ-অনুপ্রেরণা ছিলো যে আমি এ মিউচুয়েল ক্লাবের জায়গাটি, এর ইতিহাস ঐতিহ্য কিভাবে সংগ্রহ করবো! আমি সুযোগের অপেক্ষায় ছিলাম। আরো বেশি উৎসাহ যুগিয়েছে বছর দুই-এক আগে যখন আমাদের সিটি করপোরেশনে দু‘জন বিদেশী মুক্তিযোদ্ধা এসেছিলেন। তার সাথে এসেছিলেন রোজ গার্ডেনের মালিক এবং রোজ গার্ডেনের মালিক আমাকে বললেন যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোজ গার্ডেনের যে ভবনটি ছিলো তা পুরোটাই তিনি কিনে নিয়েছেন। সেখানে জাতির পিতার স্মৃতি সংগ্রহ করার জন্য। প্রথম সভাটি মিউচুয়েল ক্লাবে হয়েছিলো পরবর্তীতে তিনদিন পর ২৩ জুন রোজ গার্ডেনে  যে সভাটি হয়েছিলো যেখানে আওয়ামীলীগের কমিটির আত্মপ্রকাশ করেছিলো। আমি ওনার কাছ থেকে এ তথ্যগুলো জানার পর থেকেই আমার মনে হল যে সে জায়গাটি যদি প্রধানমন্ত্রী কিনে সংরক্ষণ করে নিতে পারেন তাহলে আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী কেন এ মিউচুয়েল ক্লাবটি সংরক্ষণ করতে পারবো না। 

 

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) সকালে শহরের পাইকপাড়া শাহসুজা রোডে জাতির পিতা  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর  রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে নাসিক আয়োজিত আওয়ামীলীগ প্রতিষ্ঠার স্মৃতি বিজড়িত ১৯২৭  সালে স্থাপিত মিউচুয়েল ক্লাব ভবন পুনঃনির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মেয়র এসব কথা বলেন। 

অনুষ্ঠানে মিউচুয়েল ক্লাবের সদস্য সচিব ও জেলা আওয়ামী লীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক খালিদ হাসানের সঞ্চালনায় ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সিও আবুল আমিনের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, সাবেক সংরক্ষিত নারী সাংসদ এড.হোসনে আরা বাবলী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের অন্যতম সদস্য এড. আনিসুর রহমান দিপু, জেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির, মিউচুয়েল ক্লাবের যুগ্ম আহ্বায়ক শারফুদ্দীন আহমেদ,আমরা নারায়ণগঞ্জবাসীর সভাপতি হাজী নুরুদ্দীন আহমেদ, পাইকপাড়া এলাকার প্রবীণ ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা শহীদুল্লাহ। 

 

জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মেয়র আইভী মিউচুয়েল ক্লাব প্রসঙ্গে আরো বলেন, ‘পাঁচ থেকে ছয় বছর আগে, আমি কিছু তথ্য সংগ্রহ করে ছিলাম। সেটা হল এই যে ১৯৮২ সালে জেলা যুবলীগের অধিবেশন হয়েছিলো তখন আমাদের শেখ সেলিম ভাই এমপি ছিলেন এবং সে এই অধিবেশনের প্রধান অতিথি ছিলেন। সেখানে একটি স্মরণিকা ছিলো, সেখানে তখন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একটি বাণীতে লিখেছিলেন যে এই মিউচুয়েল ক্লাবেই আওয়ামী লীগের প্রথম সভাটি হয় এবং আওয়ামীলীগের জন্ম এই মিউচুয়েল ক্লাবেই। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীতে ১০১ নং পৃষ্ঠায় স্পষ্ট করে লেখা আছে বঙ্গবন্ধু যখন এখানে এসেছিলেন তখন ১৪৪ ধারা জারি হল। রহমতউল্লাহ্ ইন্সস্টিটিউটে মিটিং করার কথা ছিলো, সেখানেও ১৪৪ ধারা জারি থাকায় তারা এদিক দিয়ে চলে যাচ্ছিলেন তখন আমাদের বশির সরকারের নেতৃত্বে তখন তারা তখন এখানে সভার আয়োজন করলেন। এখানে সভার মধ্যে দিয়েই একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিলো। যে কমিটিটি পরবর্তীতে রোজ গার্ডেনে আত্মপ্রকাশ করা হয়। সেই সুবাদে আমাদের নারায়ণগঞ্জ আমি মনে করি পূর্ণভূমি। যেখানে আওয়ামী লীগের জন্ম আমাদের জন্য তা গর্বিত হওয়ার মতই।’ 

 

মিউচুয়েল ক্লাবের ভিত্তিপ্রস্তর হওয়ার পর নবনির্মিত ভবন প্রসঙ্গে বলেন, ‘ভিত্তি প্রস্তরের মধ্যে দিয়ে আমরা মিচুয়্যাল ক্লাবটি পুর্নঃনির্মাণের কাজ শুরু করবো। চারতলা বিশিষ্ট এই ভবনটিতে সেই প্রতিষ্ঠার ২৩ জুন থেকে আওয়ামীলীগের যে আওয়ামীলীগের প্রেসিডেন্ট-সেক্রেটারি ছিলো এবং বর্তমানেও যারা আছে তাদের সকলের ছবিসহ সংযুক্তি থাকবে। বঙ্গবন্ধুর জীবনী থাকবে। দোতলায় একটি শেখ রাসেল কর্ণার যেখানে শুধু রাসেলকে নিয়ে লেখা থাকবে। এছাড়া ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু পরিবারকে হত্যা করা হয়েছিলো যেসকল ঘটনা স্মৃতি বিজরিত কিছু ইতিহাস থাকবে এবং প্রথম তিনটি তলায় মুরুব্বিদের বসার ব্যবস্থা থাকবে। এখানে আমরা পর্যাপ্ত পরিমাণ বই দিব। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম এখান থেকে অনেক কিছু জানতে পারবে।  আমরা এভাবেই মিউচুয়েল ক্লাবটি সাজিয়েছি। আমরা চলতি বছরের ২৩ জুন। যেদিন আওয়ামী লীগের জন্মদিন, আমরা সেই দিন এই ভবনটির কাজ উদ্বোধনের চেষ্টা থাকবে।’  

 

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এড.আসাদুজ্জামান আসাদ, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রানু খন্দকার, মহিলা বিষক সম্পাদক মরিয়ম কল্পনা, মহানগর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আহাম্মদ আলী রেজা উজ্জল, প্যানেল মেয়র আফরোজা হাসান বিভা, কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু, কাউন্সিলর কবির হোসেইন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর মিনোয়ারা বেগম প্রমুখ। 

এই বিভাগের আরো খবর