সোমবার   ২২ এপ্রিল ২০১৯   বৈশাখ ৮ ১৪২৬   ১৬ শা'বান ১৪৪০

`ভূতের গ্রাম` বিক্রি হবে, কিনবেন নাকি !

প্রকাশিত: ২ এপ্রিল ২০১৯  

ডেস্ক রিপোর্ট (যুগের চিন্তা ২৪) : ভূত আছে না নেই, তা তর্ক সাপেক্ষ। যারা অবিশ্বাসী, তাদের ব্যপরটা আলাদা। কিন্তু যারা মনে করেন, অশরীরীরা চারপাশে রয়েছেন, এই গ্রাম তাদের জন্য। কিন্তু কী এমন রয়েছে সেখানে ? দূর থেকে গ্রামের থমথমে চেহারা দেখলে অন্তত এটুকু বোঝা যায় যে, এই গ্রামগুলোতে নেই কোনো প্রাণের উচ্ছ্বলতা।


স্পেনের উত্তরে গ্যালিসিয়ায় রয়েছে আকোরাদা নামের ছোট্ট একটা গ্রাম। গোটা গ্রামে রয়েছে মাত্র ছ’টা ধূসর পাথরের বাড়ি এবং দু’টি শস্যভা-ার । এগুলোর মালিক ছিল ইগলেসিয়াস পরিবার। প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে এই গ্রামে বাস করতেন ওই পরিবারের সদস্যরা। গমের খেত ছিল তাদের। কিন্তু সে সবই আজ পরিত্যক্ত এবং ধূসর অতীত ।


৫৭ বছরের এক উত্তরসূরি বাদে গত ৩০ বছর এই পরিবারের কেউ থাকেন না গ্রামে। তিনি ৯৬ হাজার ডলারে বিক্রি করতে চাইছেন পরিত্যক্ত এই গ্রাম। যাকে ঘিরে রয়েছে নানা ভৌতিক গল্প। শোনা যায়, সন্ধ্যার পর এই গ্রামগুলোতে ঢোকাই যায় না। নেমে আসে অশরীরীরা। সরা ইউরোপজুড়ে শ’খানেকের বেশি গ্রাম ঘিরে রয়েছে এমনই সব গল্প। আসলে বহু বছর পরিত্যক্ত থাকার পর গ্রামকে ঘিরে গড়ে উঠেছে নানা রটনা।


এস্টেট এজেন্সি এক্সপার্ট আলদেয়াস আবানদোনাদাস জানান, এমনই পরিত্যক্ত চল্লিশটির মতো গ্রাম বিদেশিরা কিনে সেগুলোতে প্রাণ দিয়েছেন বলা যেতে পারে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে স্পেনের জন্ম হার দ্বিতীয় সর্বনিম্ন। ২০১৭ সালে ছিল ১.৩ শতাংশ। গ্রামীণ এলাকায় বসতি ক্রমশ কমছে। কমছে অল্প বয়সীদের সংখ্যাও।


গ্রামোন্নয়ন দফতরের সমীক্ষা বলছে, ২০৫০ সালের মধ্যে দেশের ৭০ শতাংশই শহরে বাস করবে। পরিত্যক্ত গ্রামগুলো ঘিরে তাই গড়ে উঠছে এমন সব ভৌতিক গল্প।

এই বিভাগের আরো খবর