সোমবার   ১৭ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৪ ১৪২৬   ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

বাড়িওলার ছেলের কান্ড, কিশোরী ৬ মাসের গর্ভবতী

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : বাবা শারিরীক প্রতিবন্দী। মা চাকুরী করেন ফতুল্লার একটি গার্মেন্টস কারখানায়। দুই মেয়ে থাকেন বাড়িতে। বাড়ি ওলার ছেলের কু নজর পড়ে ভাড়াটিয়া কিশোরীর (১৬) উপর। বিভিন্ন সময় কিশোরীকে নানা প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে সে। 


এখন  কিশোরী ৬ মাসের অন্তঃসত্বা। ফতুল্লার পৌষার পুকুর পাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে কিশোরীর মা ফতুল্লা মডেল থানায় বাদী হয়ে আকাশকে আসামী করেছে। পুলিশ  শনিবার দুপুরে অভিযুক্ত আকাশ (১৭) কে গ্রেফতার করেছে। 


ধর্ষিতার বাবা শারিরীক প্রতিবন্দী।  অভাবের সংসারে তার মা ফতুল্লার একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করে। প্রায় ৭/৮ বছর যাবৎ তারা ভাড়া থাকেন ফতুল্লার পৌষার পুকুর পাড় এলাকার সেলিম মিয়ার বাড়িতে। সে ও তার  একটি ছোট বোন বাড়িতে থাকে। এই সুযোগটি নেয় বাড়িওলার ছেলে আকাশ।


বিভিন্ন সময় সে কিশোরীকে তার বাসায় ডেকে নিয়ে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে। গত ৪/৫ মাস আসে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তার মা ফতুল্লার একটি ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে মেয়েকে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করান। 


এসময় তিনি জানতে পারেন যে তার মেয়ে ৫ মাসের অন্তঃস্বত্তা। এ বিষয়টি আকাশের পরিবারের লোকজন স্থানীয়ভাবে মিমাংসা করার আশ্বাস দেয় হয়। কিন্তু  কেউ এ বিষয়ে এগিয়ে আসেনি। 


বর্তমানে মেয়েটি ৬ মাসের অন্তঃস্বত্তা। এরই মধ্যে মেয়েটির অবস্থার অবনতি ঘটলে তার মা ফতুল্লা মডেল থানায় শনিবার একটি লিখিত অভিযোগ দেয়। পুলিশ সোমবার দুপুরে আকাশকে গ্রেফতার করে। 


এব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো.আসলাম হোসেন বলেন,বাদীর অভিযোগ এজাহার হিসেবে নেয়া হয়েছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে।  
 

এই বিভাগের আরো খবর