রোববার   ১৭ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২ ১৪২৬   ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

বর্তমান প্রজন্মের কাছে ফুটবল খেলা হারিয়ে যাচ্ছে : আবদুল গাফ্ফার

প্রকাশিত: ২০ জুলাই ২০১৯  

যুগের চিন্তা ২৪ : জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত বাংলাদেশ ফুটবল দলের সাবেক ফুটবলার আবদুল গাফ্ফার বলেছেন, আমাদের বর্তমান প্রজন্মের কাছ থেকে ফুটবল খেলাটা হারিয়ে যাচ্ছে। আজকে নারায়নগঞ্জে এসে মনে হচ্ছে এককালের মাঠ কাপানো ফুটবলার চুন্নু, মুন্না, এমিলি, জাকির ও গাউসদের শহরে ফুটবল আবার প্রান ফিরে পাচ্ছে। 

 

তিনি বলেন, আমাদের খেলার মাঠ গুলো এখন নেই। সে মাঠে এখন বড় বড় অট্রালিকা আর বানির্জ্যিক ভবন তৈরী হচ্ছে। কিন্তু আমরা কেউ ভাবছি না খেলাধুলার জন্য মাঠ প্রয়োজন। আমাদের ছেলে মেয়েরা এখন মাঠের জন্য খেলতে পারছেনা। যে কারনে তারা এখন মোবাইলের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে এখন খেলার মাঠ নেই। 

 

শনিবার বিকেলে দিবগুবাবুর বাজরের অগ্রনী ব্যাংক খেলার মাঠে বিদ্যানিকেতন হাই স্কুল আয়োজিত আন্তঃ শ্রেণী ফুটবল প্রতিযোগিতার ফাইনালে পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। 

 

এর আগে খেলার উদ্বোধন করেন অগ্রনী ব্যাংকের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক আনিসুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিদ্যানিকেতন হাই স্কুল পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও দৈনিক সংবাদের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক কাশেম হুমায়ুন, অগ্রনী ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক আবদুস সালাম মোল্লা, উপ মহাব্যবস্থাপক আমিনুল হক,জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক ফুটবলার জাকির হোসেন,বিদ্যানিকেতন ট্রাষ্টের সদস্য সচিব দেলোয়ার হোসেন চুন্নু, সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান আবদুস সালাম, ট্রাষ্টের সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন সোহেল, হোসেন ব্যাপারী, আরাফাদুুর রহমান বান্টি, নবনীত সাহা,রতন কুমার সাহা, প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার সাহা সাহা বেশ কয়েকজন জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক খেলোয়ার।

 


এ ছাড়াও সাবেক ফুটবলার আবদুল গাফ্ফার আরো বলেন, খেলাধুলা পরিচালনার জন্য কোন শিক্ষক নেই স্কুলে। আমরা শিক্ষার্থীদের হাতে ফুটবল তুলে দিতে পারছিনা।যে কারনে খেলাধুলার পরিবর্তে আমাদের সন্তানরা মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ছে। একমাত্র খেলাধুলাই একজন তরুন কিংবা যুবককে নেশার পথ থেকে ফেরাতে পারে। 


তিনি নারায়নগঞ্জের তরুন প্রজন্মকে খেলাধুলা করার আহবান জানিয়ে বলেন, ফুটবল কিংবা ক্রিকেট যে কোন খেলাকেই আমাদের বেছে নিতে হবে। তাহলেই  আমরা বর্তমানের তরুন প্রজন্মকে সত্যিকারের মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারবো। 


অগ্রনী ব্যাংকের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালন আনিসুর রহমান বলেন, আমাদের ছেলে মেয়েরা এখন আর খেলাধুলা করতে চায়না। তারা কৃত্রিম এবং যান্ত্রিক সভ্যতায় বসবাস করছে। আমরা যারা অভিভাবক তাদেরকে নিজেরা নিজেদের সন্তানদের মাঠে নিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন অগ্রনী ব্যাংক খেলাধুলায় পৃষ্টপোষকতা করতে এগিয়ে আসবে। তিনি দ্বিগুবাবুর বাজার মাঠটিকে ফুটবল খেলার উপযোগী করে তোলার জন্য ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দেন।

বিদ্যানিকেতন হাই স্কুলের আন্তঃ শ্রেনী ফুটবল খেলায় বিভিন্ন শ্রেনীর আটটি দল অংশ গ্রহন করে। ফাইনাল খেলায় সপ্তম শ্রেনীর সাথে দশম শ্রেনীর মধ্যে অনুষ্টিত হয়। সপ্তম শ্রেনী ট্রাইব্রেকারে দশম শ্রেনীকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ান হয়।
 

এই বিভাগের আরো খবর