বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯   আষাঢ় ৪ ১৪২৬   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

‘বন্ধুসভার উদ্দেশ্যে এমন প্রজন্ম গড়ে তোলা যারা আলোকিত মানুষ হবে’

প্রকাশিত: ১৪ এপ্রিল ২০১৯  

স্টাফ রিপোটার (যুগের চিন্তা ২৪) : নারায়ণগঞ্জ বন্ধুসভার উপদেষ্টা ও সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বি বলেন, আমাদের বিভিন্ন সমস্যা রয়েছে। কিন্তু বাঙালির কোনটা ন্যায়, কোনটা অন্যায় কোনটা সাদা, কোনটা কালো তা বেছে নেয়ার যোগ্যতা এবং দক্ষতা দুটোই রয়েছে।

 

আর এ দক্ষতা রয়েছে বলেই ছোট্ট একটি মেয়ে তাঁকে নির্যাতনের মাধ্যমে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে তাতে সমস্ত মানুষকে কিন্তু নাড়িয়ে তুলেছে। এটি হচ্ছে আমাদের আশা এবং ভরসার জায়গা।

 

রোববার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে সংগঠনের কার্যালয়ে প্রথম আলো বন্ধুসভা নারায়ণগঞ্জের প্রকাশনা ‘পাললিক’ এর মোড়ক উন্মোচন ও বর্ষবরণ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ সকল কথা বলেন।


এ সময় তিনি বন্ধুসভার উদ্দেশ্যে বলেন, বন্ধুসভা একটি পাঠক সংগঠন এবং বন্ধুসভার বিষয়টা এই নয় যে, এটি প্রথম আলোর পাঠক সংখ্যা বৃদ্ধি করবে। বন্ধুসভার উদ্দেশ্যে হলো এই সংগঠনটির মাধ্যমে আমাদের দেশে এমন একটি প্রজন্ম গড়ে তোলা যারা একসময় আলোকিত মানুষ হয়ে উঠবে। যে মানুষগুলো এই দেশটাকে আমাদের দেশ হিসেবে বিশ্ব দরবারে হাজির করবে। 


বন্ধুসভা কিন্তু সেই বিশ্বাস থেকেই ভরসা থেকেই তারা কর্মপরিকল্পনা  পরিচালনা করছে এবং প্রথম আলো  সেই বিশ্বাসের জায়গা থেকেই উঠে এসেছে। তাই প্রথম আলো মনে করে এই দেশ বদলাবে, পরিবর্তন হবে। এই দেশের মানুষই এই দেশটাকে বদলাবে।

 

রফিউর রাব্বি বলেন, আমাদের এখনকার নববর্ষ এবং প্রায় ত্রিশ বছর আগের নববর্ষ যদি আমরা মিলাই তাহলে একটা পরিবর্তন দেখা যাবে। ১৯৬৭ সালে আমাদের এই নারায়ণগঞ্জে সাহিত্য বিতান নামে একটি সংগঠন পহেলা বৈশাখের একটা আয়োজন করেছিল। তখন  তাদের সকলের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করা হয়েছিল এবং তাদের নামের পেছনে হিন্দু নামটি জুড়ে দেওয়া হয়েছিল।


স্বাধীনতার পরে ১৯৭৭ সালে ‘পলাশ’ নামে একটি সংগঠন থেকে আমরা বৈশাখের আয়োজন করেছিলাম তখন কিন্তু আয়োজনে একটা দূর্বলতা ছিল। এর পর নারায়ণগঞ্জে আমরা মঙ্গল শোভাযাত্রা শুরু করলাম যা এখনকারমতো এত আনুষ্ঠানিকতা ছিলনা, সাজসজ্জা ছিলনা।

 

তিনি আরও বলেন, আজকে আমরা যেই বিষয়টা লক্ষ্য করলাম যে, প্রত্যেকটা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বৈশাখের অনুষ্ঠান বাধ্যতামূলক করেছে। আমাদের সংষ্কৃতির একটি বিশাল পরিবর্তন যে প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিশুদেরকে জানান দিচ্ছে পহেলা বৈশাখ সর্ম্পকে। পহেলা বৈশাখ যে, আমাদের সামাজিক উৎসব সার্বজনিন উৎসব এই বার্তাটা সারা দেশে গ্রাম থেকে শহর পর্যন্ত ছড়িয়েছে।


বাঙালীর দুইটি সার্বজনীন আয়োজন রয়েছে। এর মধ্যে একটি পহেলা বৈশাখ এবং অপরটি একুশের আয়োজন। আমরা বাঙালী সংস্কৃতি যখন বলি হাজার বছরের অসাম্প্রদায়িক ধর্ম বর্ণ র্নিবিশেষে এই ভূখণ্ডে বসবাসরত সকল মানুষের কথা বলি।


তিনি উল্লেখ করেন, বৈশাখ যেমন আমাদের জন্য শুভ হয়েছে ঠিক তেমনি আবার অশুভ ইঙ্গিতও রয়েছে। যেমন, হেফাজতের আমীর কাল এবং আজ বলেছে, এটি হিন্দুয়ানি বিজাতীয় একটি সংস্কৃতি। মুসলমানিত্ব থাকবেনা যদি কেউ মঙ্গল শোভাযাত্রায় যায় ।


এই কথাগুলো আমরা ষাটের দশকে বহু বহু শুনেছি এবং আজ আমরা সেই জায়গা থেকে বের হয়ে এই জায়গাতে দাঁড়িয়েছি। এখনো এই কথাগুলো উচ্চারিত হচ্ছে স্বল্প স্বরে। কিন্তু এটি কখনো আমাদের এই ভূখন্ডে জায়গা করে নিতে পারবে না বলে আমি মনে করি।


সংগঠনের সভাপতি আফরনি সুলতানা জেমীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অর্পণ আহম্মেদ রাজুর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন সাবেক সভাপতি রাসেল আদিত্য, সাব্বির আল ফাহাদ, প্রথম আলো নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা গোলাম রব্বানী শিমুল এবং মো. মোয়াজ্জেম হোসেন।


এসময় উপস্থিত ছিলেন, যুগের চিন্তা ২৪ এর বার্তা সম্পাদক মাহফুজ সিহান, নারায়ণগঞ্জ বন্ধু সভার সহসভাপতি আরাফাত বাপ্পি, সাংগঠনিক সম্পাদক জহির আলম রুবেল, নারীবিষয়ক সম্পাদক শারমিন সুলতারা আন্নি, পাঠচক্র সম্পাদক হাসানুজ্জামান, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সৌরভ হোসেন, যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক সিফাত তানজুম সুমাইয়া, প্রচার সম্পাদক আফসানা আক্তার, মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক শামীমা রীতা, দপ্তর সম্পাদক মো. বেলায়েত হোসেন, সাহিত্য সম্পাদক হাবিবুর রহমান, পাঠাগার সম্পাদক নয়ন আহমেদ, প্রশিক্ষণ সম্পাদক হানিফ হোসেন, অর্থ সম্পাদক মনিকা আক্তার, সমাজকল্যাণ সম্পাদক তাহমিনা আক্তার, ক্রীড়া সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, অনুষ্ঠান সম্পাদক সোহেল হাওলাদার, বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক নুসরাত জাহান ইয়ামিম, দুর্যোগ ও ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হান্নান সেয়ান, সদস্য সুমাইয়া জাহান চৌধুরী রিসা, নাহিদ হাসান, সঞ্জয় পাল প্রমুখ।

 

আলোচনা পর্ব শেষে বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান, আবৃত্তিসহ বিভিন্ন  পরিবেশনা করেন বন্ধুসভার বন্ধুরা।
 

এই বিভাগের আরো খবর