শুক্রবার   ০৩ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ১৯ ১৪২৬   ০৯ শা'বান ১৪৪১

করোনা বিধিনিষেধ অমান্য,

বন্দর ও ফতুল্লার তিন প্রবাসীকে অর্থদন্ড

প্রকাশিত: ১৮ মার্চ ২০২০  

স্টাফ রিপোর্টার : করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করায় বন্দর ও ফতুল্লার ৩ প্রবাসীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে উপজেলা প্রশাসন। 

 

এদের মধ্যে দুইজন সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার শিবু মার্কেট ও একজন বন্দর উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের বারপাড়া এলাকার বাসিন্দা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলার সিভিল সার্জন ডা. ইমতিয়াজ আহম্মেদ।

 

জানা গেছে, বুধবার (১৮ মার্চ) বিকেলে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার শিবু মার্কেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় দুই প্রবাসীকে দশ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করেন সদর উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক। 

 

সরকারি আদেশ অমান্য করার অপরাধে দুইজনকে পাঁচ হাজার টাকা করে অর্থদন্ড দেন সদর ইউএনও। একই সঙ্গে তাদেরকে বাধ্যতামূলক ১৭ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে (পর্যবেক্ষণে) পাঠানো হয়।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করে সদর ইউএনও নাহিদা বারিক জানান, বিভিন্ন দেশ থেকে ফিরে আসা সদর উপজেলা এলাকার মধ্যে বসবাসকারী অন্যান্য প্রবাসীদেরও নজরদারিতে রাখা হয়েছে। তাদের কেউ সরকারি আদেশ অমান্য করে শৃংখলা ভংগ করলে একই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

এদিকে বন্দর উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) শুক্লা সরকার জানান, বুধবার (১৮ মার্চ) সকাল থেকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের খোঁজ নিতে গিয়ে মুছাপুর বারপাড়া এলাকায় এক প্রবাসীকে বাইরে ঘোরাঘুরি করতে পাওয়া গেছে। তখন ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

 

তিনি আরও জানান, সর্বশেষ বন্দর উপজেলায় ১৩ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। এরমধ্যে কয়েকজন খুব সচেতনতার সাথে ঘরেই অবস্থান করছেন। আমাদের আহ্বান থাকবে প্রবাস থেকে কেউ দেশে ফিরলে সঙ্গে সঙ্গে যেন উপজেলা প্রশানকে জানানো হয়। এজন্য আমরা মাইকিং এর ব্যবস্থা করেছি।

 

নারায়ণগঞ্জের জেলা সিভিল সার্জন ডা. ইমতিয়াজ আহম্মেদ  জানান, জেলায় বর্তমানে ৩৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তারা প্রত্যকেই বিভিন্ন দেশের প্রবাসী এবং সম্প্রতি দেশে ফিরে এসেছেন। 

 

তবে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা এই প্রবাসীদের উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে নজিরদারিতে রাখা হয়েছে। সিভিল সার্জন করোনা নিয়ে আতংকিত না হয়ে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানিয়েছেন।

এই বিভাগের আরো খবর