সোমবার   ০৬ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২৩ ১৪২৬   ১২ শা'বান ১৪৪১

বন্দরে থানায় অভিযোগ করায় ফের হামলা

প্রকাশিত: ২৬ মার্চ ২০২০  

বন্দর প্রতিনিধি :  বন্দরে হামলার ঘটনায়  আহত পরিবারের পক্ষে থানায় অভিযোগ করায় ফের ওই ভূক্তভোগী পরিবারের ওপর ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা হামলা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে । ফের  হামলার ঘটনায়  গ্রামবাসী উত্তেজিত হয়ে  ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করে। 

এসময় দুইজন পালিয়ে গেলেও  সোহাগ নামের একজনকে আটক করে গ্রামবাসী। ২৬ র্মাচ (বৃহস্পতিবার) বিকাল ৪টায় বন্দর উপজেলার তিনগাঁও এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, বন্দর উপজেলা বন্দর ইউনিয়ন তিনগাঁও গ্রামের ভাড়াটিয়া শাহ আলমের স্ত্রী শিরিনা আক্তারের সঙ্গে  একই বাড়ির ভাড়াটিয়া  ফরিদ মিয়ার স্ত্রী সাফিয়া বেগমের ঝগড়া হয়। 

এর জের ধরে গত ২৫ মার্চ রাতে ফরিদ মিয়াসহ অজ্ঞাত নামা ৫-৬ জন মিলে ভাড়াটিয়া  শাহ আলম(৪০) তার  স্ত্রী শিরিনা আক্তার(৩৫)   মেয়ে সানজিদা(১৭)  ও ছেলে সাজ্জাদ(১৫)কে পিটিয়ে কুপিয়ে জখম করে।

এ ঘটনায় শাহ আলম বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে বন্দর ফাঁড়ী উপ-পরিদর্শক গোপালসহ সঙ্গীয় র্ফোস বিষয়টি তদন্ত করেন।  আহত শাহ আলম থানায় অভিযোগ দায়ের করায় আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে অভিযুক্ত ফরিদ। 

শাহ আলম ও তার পরিবারকে শাহেস্তা করতে ফরিদ সোনারগাঁ থেকে সন্ত্রাসী ভাড়া করে  নিয়ে  বৃহস্পতিবার বিকালে ফের শাহ আলমের পরিবারের ওপর হামলা চালায়। আহতদের ডাকচিৎকারে গ্রামবাসী জরো হয়ে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের অবরুদ্ধ করার চেষ্টা করে। 

ওই সময় সামিদ ও মনির নামের দুইজন পালিয়ে গেলেও সোহাগ নামে একজনকে আটক করে উত্তেজিত এলাকাবাসী। আটক সোহাগ লাঙ্গলবন্দ চিড়াইপাড়া কলোনী পাড়া এলাকার  মৃত মনির হোসেনের ছেলে। 

পলাতক মনির হোসেন বন্দরের মালিভিটা গ্রামের মৃত ইয়াকুব মিয়ার ছেলে, সামির সোনারগাঁও র্জানালিষ্ট ক্লাবের সদস্য বলে আটক সোহাগ জানিয়েছে।  
 

এই বিভাগের আরো খবর