শনিবার   ২৫ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪২৬   ২০ রমজান ১৪৪০

ফুটপাত এখন তাদের দখলে !

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০১৯  

স্টাফ রিপোর্টার (যুগের চিন্তা ২৪) : শহরে ফুটপাত এখনও অনেকে দখলে রেখেছে। তবে নগরীর ফুটপাতের উপর বিভিন্ন মেডিক্যাল রিপ্রেজেন্টিভদের মটর সাইকেল রাখার কারণে জনগনের চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি হচ্ছে বেশি। 


বিশেষ করে  শহরের পপুলার ডায়াগনোষ্টিক সেন্টার,মেডিনোভা,পলি ক্লিনিকসহ মার্ক টাওয়ার,উকিল পাড়ার বেশ কিছু ফুতপাত অনেকেই দখল করে সেখানে অবৈধ পাকিং করে রাখছে তাদের বাহনগুলো। বাড়ছে যানজট দেখার কেউ নেই। 


শহরে হকার উচ্ছেদ নিয়ে ঘটেছে নানা অনাকাঙ্খিত ঘটনা। জনগনের চলা চলের পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী ব্যাক্তিদের উচ্ছেদে সিটি কর্পোরেশন ও জেলা প্রশাসন কঠোর ভুমিকায়। কিন্তু এর ফাঁকেই শহরে দিনের বেলা ফুটপাতে এক শ্রেনীর মানুষের দখলে থাকে। ফলে ভোগান্তি বাড়ে বিভিন্ন অফিস আদালতে কর্মরত ব্যাক্তি ও স্কুল কলেজে যাওয়া ছাত্র-ছাত্রীদের পড়তে হয় চরম ভোগান্তিতে। 


বিশেষ করে  শহরের বিভিন্ন ডায়াগনোষ্টিক সেন্টার,হাসপাতাল ও ঔষধের ফার্মেসীর সামনে মটর সাইকেলর জটলা দেখা যায়। এছাড়াও বিভিন্ন ব্যাংকের গ্রাহকরা ও মূল সড়কে তাদের বাহন রেখে যার যার কাজে চলে যায়। আর এই মটর সাইকেলগুলো রাখার কারনে যানজট আরো বেড়ে যায়। 


মূলত শহরের  হাতেগোনা ২/১টি ছাড়া  বহুতল ভবন ছাড়া বেশির ভাগ ভবনগুলোতে কোন  যানবাহন পার্কিংয়ের জায়গা নেই। তাই সেবা নিতে আসা ব্যাক্তিদের মূল সড়কের উপরই রাখতে হয় মটর সাইকেল,প্রাইভেটকার,সিএনজিসহ নানা রকম যানবাহন। 


শহরের একজন ব্যাবসায়ী জানা,অনেক সময় মটর সাইকেলগুলো তার  দোকানের সামনে রেখে চালকরা যে যার কাজে চলে যায়। একদিকে ব্যবসায়ীরা যেমন ক্ষতিগ্রস্থ হয় অপরদিকে সড়কেও যানজট সৃষ্টি হয়। যদি ভবনগুলোতে গাড়ি পার্কিং এর ব্যবস্থা থাকতো তাহলে এই সমস্যা গুলো হতো না। 


এই বিষয়ে জেলা ট্রাফিকের সার্জেন্ট তানজিল জানান,যানজট নিরসনে কাজ করছে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা। প্রায়ই রেকার দিয়ে অভিযান চালানো হয়।  মাঝে মধ্যে হয়তো ফুটপাত দখল করে কেউ কেউ তাদের গাড়িগুলো রাখে। তবে যারা রাখছে আমরা তাদের আইনের আওতায় আনার চেষ্টা করি। 

এই বিভাগের আরো খবর